দুই নেত্রীকে চায়ের দাওয়াত আজ বঙ্গভবনে দ্বিতীয় দফা প্যাকেজ প্রস্তাব কেয়ারটেকার সরকারের

দাবির পর দাবি তুলে রাজপথে সহিংস আন্দোলনরত ১৪ দলকে নির্বাচনমুখী করার লক্ষ্যে প্রথম দফা প্যাকেজ প্রস্তাব ব্যর্থ হওয়ার পর কেয়ারটেকার সরকার এবার দ্বিতীয় দফা প্যাকেজ প্রস্তাব নিয়ে এগুচ্ছে৷ এ উদ্যোগ ক’দিন আগেই শুরু হয় খালেদা জিয়া ও শেখ হাসিনার কাছে প্রেসিডেন্Uরে দূত পাঠাবার মধ্য দিয়ে৷ অ্যাডভাইজরদের পরামর্শে প্রেসিডেন্ট এ উদ্যোগ নিয়েছেন বলে জানা গেছে৷ তার উদ্যোগে ৪ ও ১৪ দলের পক্ষে দুই শীর্ষ নেত্রী খালেদা জিয়া ও শেখ হাসিনা নিমরাজি হয়েছেন বলে সূত্র জানায়৷ এতে উত্সাহিত হয়ে প্রেসিডেন্ট ও চিফ অ্যাডভাইজর প্রফেসর ড. ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদ বঙ্গভবনে দুই নেত্রীকেই চায়ের নিমন্ত্রণ করছেন৷ সূত্র জানায়, আনুষ্ঠানিক নিমন্ত্রণ ইতিমধ্যেই পৌছে দেয়া হয়েছে এবং আজই তারা আলাদা আলাদাভাবে বঙ্গভবনে চা খেতে আসতে পারেন৷
প্রসঙ্গত, চলমান রাজনৈতিক সঙ্কট নিরসনে কেয়ারটেকার সরকারের প্রথম দফা প্যাকেজ প্রস্তাব অনুযায়ী চিফ ইলেকশন কমিশনার (সিইসি) জাস্টিস আজিজ স্বেচ্ছায় তিন মাসের জন্য ছুটিতে গেছেন এবং দু’জন নতুন ইলেকশন কমিশনার নিয়োগ দেয়া হয়েছে৷ কেয়ারটেকার সরকারের উপদেষ্টারা আশা করেছিলেন, এ প্যাকেজ পদক্ষেপের ফলে সঙ্কট দূর হয়ে যাবে এবং আন্দোলনরত ১৪ দল নির্বাচনমুখী হবে৷ সরকারের স্পোকসম্যান ও তথ্য উপদেষ্টা মাহবুবুল আলম সাংবাদিকদের বলেছিলেন, আমরা সুড়ঙ্গের শেষ প্রান্তে আলো দেখতে পাচ্ছি৷ তার এ কথায় রাজনৈতিক মহলে আশার সঞ্চার হলেও বাস্তবে ঘটেছে উল্টোটা৷ সরকারের প্যাকেজ পদক্ষেপের পর ১৪ দল আন্দোলন থামায়নি৷ দাবির পর দাবি তুলে তারা আন্দোলন এখনো জিইয়ে রেখেছে এবং রাজপথে এক ধরনের লাগাতার অচলাবস্থা তৈরি করেছে৷ এ পরিস্থিততে কেয়ারটেকার সরকার আরো একটি প্যাকেজ প্রস্তাব নিয়ে হাজির হলো রাজনৈতিক পক্ষগুলোর সামনে৷
নির্ভরযোগ্য সূত্রগুলো আভাস দিয়েছে, প্রেসিডেন্Uরে দূত হয়ে প্রতিমন্ত্রীর মর্যাদায় উন্নীত তার প্রেস অ্যাডভাইজর মোখলেসুর রহমান চৌধুরী প্রথমে শেখ হাসিনা ও পরে খালেদা জিয়ার মন বুঝতে তাদের সঙ্গে দেখা করতে যান৷ মোখলেসের সঙ্গে আলাপে শেখ হাসিনা শর্তসাপেক্ষে নির্বাচনমুখী হতে মত দেন৷ খালেদা জিয়া জানান, সংবিধানের মধ্যে থেকে যে কোনো ফয়সালা বা প্রস্তাব মানতে কখনোই তাদের কোনো আপত্তি নেই৷ শেখ হাসিনার দেয়া আভাস অনুযায়ী অ্যাডভাইজরদের পরামর্শে প্রেসিডেন্ট ইলেকশন শেডিউলের নড়চড় করে এবং ইলেকশন কমিশনে শীর্ষ পর্যায়ে হাসিনার পছন্দসই কাউকে বসিয়ে সমস্যা নিরসনের উদ্যোগ নিয়েছেন৷ সে অনুযায়ী বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সিইসি জাস্টিস মাহফুজুর রহমানের চেয়েও সিনিয়র কোনো বিচারপতির নাম আওয়ামী লীগের তরফ থেকে দেয়ার জন্য বলা হয়েছে৷ আজ বঙ্গভবনে এসে শেখ হাসিনা এ প্রস্তাব কবুল করলে সঙ্কট দূর হয়ে যাবে বলে কেয়ারটেকার সরকারের আশা৷
গত বৃহস্পতিবার রাতে বঙ্গভবনে অ্যাডভাইজরি কাউন্সিলের এক অনির্ধারিত ডিনার মিটিংয়ে বিষয়গুলো স্থির করা হয়৷ সেখানে নির্বাচন কমিশনের অফিসাররাও ছিলেন৷ বৈঠকে নবম পার্লামেন্ট নির্বাচন সব রাজনৈতিক দলের কাছে গ্রহণযোগ্য করতে ইতিপূর্বে ঘোষিত শেডিউল সংবিধানের আওতায় পুনর্বিন্যাস করার জন্যও অ্যাডভাইজরি কাউন্সিল নির্বাচন কমিশনকে অনুরোধ জানায়৷ গতকাল বিষয়গুলোকে ফর্মালাইজ করা হয় অ্যাডভাইজরি কাউন্সিলের আনুষ্ঠানিক বৈঠকে৷
অ্যাডভাইজরি কাউন্সিলের এ বৈঠক শেষে সন্ধ্যার পর বঙ্গভবনের বাইরে এসে কেয়ারটেকার সরকারের স্পোকসম্যান ও তথ্য উপদেষ্টা মাহবুবুল আলম সাংবাদিকদের জানান, উপদেষ্টা পরিষদ নির্বাচন কমিশনকে অনুরোধ জানিয়েছে নির্বাচনের শেডিউল সংবিধানের আওতায় পুনর্বিন্যাসের বিষয়টি বিবেচনার জন্য৷ তবে শেডিউল পুনর্বিন্যাস করা হলেও নির্বাচন ৯০ দিনের মধ্যেই অনুষ্ঠিত হবে৷
তথ্য উপদেষ্টা সাংবাদিকদের আরো জানান, প্রেসিডেন্ট ও চিফ অ্যাডভাইজর প্রফেসর ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদ বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে পৃথকভাবে চায়ের আমন্ত্রণ জানাচ্ছেন৷ উপদেষ্টা পরিষদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তিনি নির্বাচন সংশ্লিষ্ট বিষয়াদি নিয়ে দুই নেত্রীর সঙ্গে আলোচনা করবেন৷ উপদেষ্টা মাহবুব বলেন, দুই শীর্ষ নেত্রীর সঙ্গে প্রধান উপদেষ্টার কথা বলা খুবই জরুরি৷ তবে দুই নেত্রীর কে কখন প্রেসিডেন্ট হাউসে চা খেতে যাচ্ছেন, গতকাল রাত পর্যন্ত তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি৷
বঙ্গভবনের বাইরে অপক্ষেমাণ সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তথ্য উপদেষ্টা জানান, নির্বাচনের শেডিউল পুনর্নির্ধারণ সম্পর্কিত অ্যাডভাইজরি কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী যতো দ্রুত সম্ভব নির্বাচন কমিশনকে অবহিত করা হবে৷ নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন বা নতুন নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ে সভায় কোনো আলোচনা হয়নি বলেও জানান তিনি৷
আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলের চতুর্থ দফা অবরোধ কর্মসূচি সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, অপেক্ষা করুন এবং দেখুন; ভালো কিছুর আশা করুন৷ এখনো পূর্ণ একটি দিন রয়েছে৷
অন্য এক প্রশ্নের উত্তরে মাহবুবুল আলম বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনার জাস্টিস এম এ আজিজের ছুটিতে যাওয়াটা কেয়ারটেকার সরকারের একটি সাফল্য৷ তিনি বলেন, সিইসি ছুটিতে যাওয়ার পরও কেয়ারটেকার সরকার প্রতিকূল পরিস্থিতি মোকাবেলা করছে৷ তবে একটি সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন নিশ্চিত করার জন্য আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি৷
এদিকে প্রাইভেট নিউজ এজেন্সি ইউনাইটেড নিউজ অফ বাংলাদেশ (ইউএনবি) গত রাতে জানিয়েছে, বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা গতকাল রাতেই প্রেসিডেন্Uরে চায়ের নিমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন৷ আজ শনিবার তারা পৃথকভাবে বঙ্গভবনে যেতে পারেন৷ তবে ঠিক কোন সময়ে তারা বঙ্গভবনে যাচ্ছেন সে ব্যাপারে ইউএনবি বা অন্য কোনো সূত্র সুনির্দিষ্টভাবে কিছু বলতে পারেনি৷
বঙ্গভবনের এক মুখপাত্রের বরাত দিয়ে রাষ্ট্রীয় নিউজ এজেন্সি বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বিএসএস) জানায়, প্রেসিডেন্Uরে প্রেস অ্যাডভাইজর মোখলেসুর রহমান চৌধুরীও গতকালের অ্যাডভাইজরি কাউন্সিলের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন৷

সূত্রঃ http://www.jaijaidin.com/view_news.php?News-ID=21597&issue=156&nav_id=1

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: