সাংবাদিকদের সঙ্গে মান্নান ভূঁইয়ার মতবিনিময় সব সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিকে বিতর্কিত করে ফেলেছে ১৪ দল

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোট দেশের সব সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান ও সম্মানিত ব্যক্তিদের বিতর্কিত করছে বলে অভিযোগ করে বিএনপি মহাসচিব আবদুল মান্নান ভূঁইয়া বলেছেন, এভাবে সবাইকে বিতর্কিত বানিয়ে দিলে ভবিষ্যতে কেউ কোনো গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব নিতে চাইবেন না৷ গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় বনানীতে বিএনপি চেয়ারপার্সনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে মান্নান ভূঁইয়া এ কথা বলেন৷ এ সময় তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন৷ তত্ত্বাবধায়ক সরকার কোনো রাজনৈতিক জোটের অন্যায় দাবি মেনে নিলে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট আন্দোলন করবে বলেও মান্নান ভূঁইয়া সাফ জানিয়ে দেন৷
তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টাদের সঙ্গে বিএনপি আবার কখন বৈঠক করবে তা জানতে চাইলে বিএনপি মহাসচিব বলেন, বৈঠকের কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি৷ সরকারের সঙ্গে এখন বৈঠকের কোনো প্রয়োজন আছে বলেও মনে করি না৷ আমরা আমাদের দাবির কথা আগেই সরকারকে জানিয়েছি৷ তারা আমাদের সিদ্ধান্ত জানাবেন৷ আমরা তার প্রতিক্রিয়া জানাবো৷
প্রশাসনের ব্যাপক রদবদল সম্পর্কে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, নির্বাচনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট নয় তেমন কাউকে যেন বদলি করে হয়রানি করা না হয়, সে কথা আমরা সরকারকে জানিয়েছি৷ তবে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টার এখতিয়ার আছে৷ তার ওপর আমাদের আস্থাও আছে৷ তিনি যুক্তিসঙ্গত কারণে কাউকে বদলি করলে করতে পারেন৷ একই সঙ্গে তত্ত্বাবধায়ক সরকারকে দায়িত্বের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দায়িত্ব হলো নির্বাচন কমিশনকে সহায়তা, নির্বাচন আয়োজন ও দৈনন্দিন কাজকর্ম পরিচালনা করা৷ কোনো অন্যায় দাবির কাছে মাথা নত করলে যদি নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে না হয়, নির্বাচনকে প্রভাবিত করার সুযোগ তৈরি হয়, সংবিধান ব্যাহত হয় আমরা তা মানবো না৷ আমরা প্রতিবাদ করবো৷ প্রয়োজনে আন্দোলন করবো৷
মান্নান ভূঁইয়া আরো বলেন, নির্বাচন সম্পন্ন করে ৯০ দিনের মধ্যেই নির্বাচিত সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে৷ সে জন্য ঘোষিত তারিখ ঠিক রাখতে হবে৷ নির্বাচনের পরও কিছু কাজ থাকে৷ নির্বাচনের পর কিছুদিন সময় হাতে রাখতে হয়৷ তিনি বলেন, আমরা চাই সব দল নির্বাচনে আসুক৷ তাই ঘোষিত তারিখ ঠিক রেখে নির্বাচনের অন্যান্য শেডিউল নির্বাচন কমিশন চাইলে পেছাতে পারে৷
সরকার চাইলে নির্বাচনের সময় আরো এক মাস পেছাতে পারে বলে রাজনৈতিক অঙ্গনে যে আলোচনা হচ্ছে সে সম্পর্কে মান্নান ভূঁইয়া বলেন, যারা এ কথা বলছে তারা সংবিধানের ভুল ব্যাখ্যা দিচ্ছে৷ জনগণকে বিভ্রান্ত করছে৷
আওয়ামী লীগ নির্বাচনের শেডিউল পেছানোর দাবিকে জনগণের দাবি বলে যে প্রচারণা চালাচ্ছে সেদিকে মনোযোগ আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, এ দেশের জনগণের দায়িত্ব তাদের কাধে কে দিল? তিনি আরো বলেন, গত নির্বাচনে আমরাই দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছিলাম৷
আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে সারা দেশে ১৪ দলের রাজনৈতিক কর্মসূচিকে অরাজক হিসেবে দাবি করে তিনি বলেন, তারা শান্তিপূর্ণভাবে গাড়ি ভাংচুর করবে, শান্তিপূর্ণভাবে আগুন জ্বালাবে, শান্তিপূর্ণভাবে মানুষ হত্যা করবে, শান্তিপূর্ণভাবে আদালতে তাণ্ডব চালাবে৷ আর কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে সরকার বসে থাকবে, তা তো হয় না৷ আমরা রাজনৈতিক আন্দোলন কর্মসূচির নামে এসব অরাজক কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করেছি৷ তত্ত্বাবধায়ক সরকারকে আহ্বান জানিয়েছি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে৷ সংবিধানের আওতায় থেকে সরকার কোনো সিদ্ধান্ত নিলে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট সহযোগিতা করবে বলে ঘোষণা দেন তিনি৷
এ সময় বিএনপি নেতাদের মধ্যে নজরুল ইসলাম খান, আমানউল্লাহ আমান, মফিকুল হাসান তৃপ্তি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন৷

সূত্রঃ http://www.jaijaidin.com/view_news.php?News-ID=22204&issue=161&nav_id=7

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: