ভোটার তালিকা নিয়ে চট্টগ্রামের রাজনীতি আবার উত্তপ্ত ১৪ ও চার দলের চাপের মুখে নির্বাচন অফিসের কর্মকর্তারা

ভোটার তালিকা সংশোধন নিয়ে চট্টগ্রামের রাজনীতি আবার উত্তপ্ত হয়ে উঠছে৷ ইলেকশন কমিশনের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী গত শুক্রবার থেকে দেশ জুড়ে ভোটার তালিকা সংশোধনের কাজ শুরু হয়েছে৷ তবে গত তিন দিনে চট্টগ্রামে এ কাজের অগ্রগতি নিয়ে প্রধান দুই জোটের নেতাকর্মীরা সন্তুষ্ট হতে পারেননি৷ গত শনিবার চিটাগং প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন অফিসের সমালোচনা করেন নগর ১৪ দলের নেতারা৷ তারা বলেন, যোগ্য ভোটারকে তালিকাভুক্ত না করে সহায়ক কর্মকর্তারা শুধু মৃত ভোটার ও স্থানান্তরিত ভোটারদের নাম তালিকা থেকে বাদ দিচ্ছেন৷
অন্যদিকে গতকাল রবিবার নগরীর জামালখান এলাকায় নির্বাচন অফিসে গিয়ে ভোটার তালিকা সংশোধনের চলমান প্রক্রিয়ার ব্যাপারে নিজেদের আপত্তির কারণগুলো তুলে ধরেন নগর চার দলের নেতারা৷ জেলা নির্বাচন অফিসারদের সঙ্গে দেখা করে তারা জানান, কোনো দলের হুমকি কিংবা রক্তচক্ষুর কারণে যেন হালনাগাদ কাজে ব্যাঘাত না ঘটে৷ গত ছয় বছরে বিপুলসংখ্যক ভোটারের মৃত্যু ও স্থান পরিবর্তনের কারণে অনেক অযোগ্য ভোটারের নাম তালিকায় রয়ে গেছে৷ তারা এসব নাম বাদ দেয়ার অনুরোধ করেন৷ এর অন্যথা হলে কঠোর রাজনৈতিক কর্মসূচি দেয়ার হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন চার দল নেতারা৷ নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমে নিয়োজিত সরকারি কর্মকর্তাদের কাজে ১৪ দলের নেতাকর্মীরা হস্তক্ষেপ করছে বলে তারা অভিযোগ করেন৷ এছাড়া সিটি করপোরেশন থেকে ভুয়া সার্টিফিকেট দিয়ে ভোটার করার চেষ্টা চলছে বলেও তারা অভিযোগ করেন৷
এদিকে নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, ১৪ ও চার দল নেতাদের পরস্পরবিরোধী ভূমিকায় চাপের মুখে রয়েছেন নগরীর নির্বাচন অফিসের কর্মকর্তারা৷ ১৪ দলের নেতারা শনিবার দুপুরে জেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে অফিসারদের এক রকম শাসিয়ে আসেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে৷ গতকাল রবিবার ভোটার তালিকা হালনাগাদ করতে গিয়ে নাজেহাল হয়েছেন এক মহিলা সহায়ক কর্মকর্তাসহ অন্তত ছয় জন ৷
সূত্র জানায়, নগরীর পাঠানটুলী বাংলাবাজারের মুন্সীবাড়ি এলাকায় গতকাল দুপুরে ভোটার তালিকা হালনাগাদ করতে গিয়ে আওয়ামী লীগ সমর্থিত ওয়ার্ড কমিশনার নজরুল বাহাদুরের তোপের মুখে পড়েন সহায়ক কর্মকর্তা খাজা আজমেরি স্কুলের শিক্ষক রাশেদ মান্নান ও বীণা বড়–য়া৷ বাংলাবাজার এলাকার প্রায় হাজারখানেক ভোটারের নাম তালিকায় না থাকার অভিযোগ তুলে ওয়ার্ড কমিশনারের লোকজন তাদেরকে একটি ঘরে আটকে রাখে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়৷ পরে সুপারভাইজার হুমায়ুন কবির গিয়ে তাদের উদ্ধার করেন৷
এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে নজরুল বাহাদুর যায়যায়দিনকে জানান, ভোটার তালিকায় নাম বাদ পড়ার কারণে এলাকার লোকজন দুই কর্মকর্তাকে আটকে রেখেছিল৷ পরে আমরা গিয়ে তাকে ছাড়িয়ে আনি৷
ওই এলাকার সহকারী রেজিস্ট্রেশন অফিসার ইকবাল তারেক জানান, ‘কোনো কারণ ছাড়াই দুজন সহায়ক কর্মকর্তাকে আটকে রাখার বিষয়টি আমরা কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি৷ স্থানীয় ওয়ার্ড কমিশনার তার অফিসে বসে হালনাগাদ করার জন্য সহায়ক কর্মকর্তাদের ওপর চাপ সৃষ্টি করেন৷ আমরা তাকে বলি, কমিশনারের অফিসে বসে নয়, আমরা এ কাজ নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ অনুযায়ী বাড়ি বাড়ি গিয়ে করবো৷’
দক্ষিণ কাট্টলি প্রাণহরি প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষিকা ও নির্বাচনী সহায়ক কর্মকর্তা চৌধুরী সুলতানা ইয়াসমিন গতকাল বিকালে ওই এলাকায় হালনাগাদ করতে যান৷ স্থানীয় কয়েক যুবক তার কাছ থেকে ফরম কেড়ে নেয় বলে অভিযোগ পাওয়া যায়৷ একটি রাজনৈতিক দলের পরিচয় দিয়ে কয়েক যুবক এলাকার সহকারী রেজিস্ট্রেশন অফিসার শামসুদ্দিনকে ২০০০ সালের ভোটার লিস্ট নিয়ে এলাকায় না আসার জন্য নিষেধ করেন বলে জানা যায়৷
এছাড়া জেলার কয়েকজন সহকারী রেজিস্ট্রেশন অফিসারের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সম্পৃক্ততার অভিযোগ করেছেন ১৪ দলের নেতারা৷ কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে পত্রিকায় খবর প্রকাশের পর গতকাল এসব কর্মকর্তার মধ্যে ক্ষোভ ও হতাশা লক্ষ্য করা গেছে৷ পাহাড়তলী এলাকার সহকারী রেজিস্ট্রেশন অফিসার নাসিরউদ্দিন পাটোয়ারি এক সময় চবি ভিসি অফিসে ভাংচুরের ঘটনায় জড়িত ছিলেন বলে অভিযোগ করেছেন ১৪ দল নেতারা৷ এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে নাসিরউদ্দিন যায়যায়দিনকে বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে মামলা দূরে থাক, দেশের কোনো থানায় একটি জিডি পর্যন্ত নেই৷ আমাকে বিতর্কিত করার জন্য এ অপপ্রচারের চেষ্টা চলছে৷’
সূত্রঃ http://www.jaijaidin.com/view_news.php?News-ID=22665&issue=165&nav_id=7

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: