আ’লীগ-খেলাফত চুক্তি ।। ১৩ দলে ৰোভ ।। বিভিন্ন সংগঠনের নিন্দা

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও খেলাফত মজলিসের সঙ্গে সম্পাদিত ৫ দফা চুক্তি নিয়ে ১৪ দলীয় জোটের শরিক ১৩ দলের মধ্যে ব্যাপক তোলপাড় চলছে। বিভিন্ন সংগঠন পৃথক পৃথক বিবৃতিতে চুক্তির বিষয়ে তীব্র ৰোভ প্রকাশ করে অবিলম্বে এ চুক্তি বাতিলের দাবি জানিয়েছে। ১৪ দলের শরীকদের কেউ কেউ ইতিমধ্যে ঘোষণা দিয়েছেন যে, তারা কখনোই জঙ্গি এবং সাম্প্রদায়িক শক্তির সাথে ৰমতায় যাবেন না। সম্পাদিত চুক্তির বিষয়ে দেশবাসীকে ১১ দলের অভিমত জানানোর জন্য আজ মঙ্গলবার জরম্নরী সাংবাদিক সম্মেলন ডেকেছে।

গতকাল সোমবার সকালে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার ধানমন্ডিস্থ বাসভবন সুধাসদনে অনুষ্ঠিত ১৪ দলের বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে বিসত্দারিত আলোচনা হয়েছে। বৈঠকে শেখ হাসিনা ১১ দলের নেতৃবৃন্দকে বলেছেন যে, এটি পুরোপুরি আওয়ামী লীগের ব্যাপার, ১৪ দলের ব্যাপার নয়। আর ফতোয়ার ব্যাপারে শৃংখলা থাকা উচিত। সংৰিপ্ত ওই বৈঠক শেষে ১১ দলের নেতৃবৃন্দ খেলাফত মজলিসের সাথে চুক্তির ব্যাপারে তাদের পূর্বের অবস্থানের কথা জানান।

অবশ্য আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক আদর্শ ও চেতনা থেকে আওয়ামী লীগ সরে আসেনি। খেলাফত মজলিসের সাথে আওয়ামী লীগের চুক্তিকে সংবাদপত্রে ভুলভাবে তুলে ধরা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, ওই চুক্তির কারণে ১৪ দলের মধ্যে কোন সমস্যা হবে না।

এদিকে ১৪ দলের অন্যতম শরীক দল বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেছে, খেলাফত মজলিসের সাথে আওয়ামী লীগের যে চুক্তি আমরা তার বিরম্নদ্ধে। দলের সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেন, অসাম্প্রদায়িক সরকারকে ৰমতায় আনার জন্য আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছি। এলৰ্যে আমাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। তিনি বলেন, আমরা কখনোই জঙ্গিবাদ এবং সাম্প্রদায়িক শক্তির সঙ্গে ৰমতায় যাবো না। এদিকে বিভিন্ন সংগঠন আওয়ামী লীগ এবং খেলাফত মজলিসের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তির ব্যাপারে তীব্র ৰোভ প্রকাশ করেছে।

তরিকত ফেডারেশন গতকাল সোমবার দলের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সৈয়দ নজিবুল বাশার মাইজভান্ডারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক জরম্নরি সভায় খেলাফত মজলিসের সঙ্গে আওয়ামী লীগের চুক্তি স্বাৰরে উদ্বেগ ও বিস্ময় প্রকাশ করে বলেছে, মহাজোটের নামে বাছ বিচার ছাড়াই জামায়াত-বিএনপির দীর্ঘ ৫ বছরের অপকর্মের সাথী, ফতোয়াবাজ, জঙ্গিদের গডফাদার ও স্বীকৃত সাম্প্রদায়িক শক্তির সঙ্গে সমঝোতা চুক্তি স্বাৰরের ঘটনা দেশবাসীর সঙ্গে সঙ্গে তরিকত ফেডারেশনকে উদ্বিগ্ন ও বিস্মিত করেছে। অবিলম্বে মহাজোট থেকে জঙ্গি, ফতোয়াবাজ ও সাম্প্রদায়িক অপশক্তির অপসারণ দাবি করে সভায় বলা হয়, অন্যথায় তরিকত ফেডারেশনসহ দেশের হক্কানী সুন্নী পীর, মাশায়েখ ওলামায়ে কেরাম ও তরিকতপন্থী জনতা মহাজোটে থাকা না থাকার ব্যাপারে নতুন চিনত্দা ভাবনা করতে বাধ্য হবে। সভায় আলহাজ্ব মওলানা জাকির হোসাইন, সৈয়দ গোলাম মুসাবি্বর হোসাইন চিশতী, আলহাজ্ব হাবিবুল বাশার মাইজভান্ডারী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মানবাধিকার বাসত্দবায়ন সংস্থার মহাসচিব এডভোকেট সিগমা হুদা এবং নির্বাহী পরিচালক এলিনা খান এক যুক্ত বিবৃতিতে বলেন, ফতোয়াকে উৎসাহিত করে খেলাফত মজলিসের সঙ্গে আওয়ামী লীগের স্বাৰরিত চুক্তি দেশের নারী সমাজকে আরো পেছনে ঠেলে দেবে, নারী নির্যাতনকে আরো উৎসাহিত করবে এবং দেশে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করবে।

জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতি আওয়ামী লীগের সঙ্গে খেলাফত মজলিসের ৫ দফা চুক্তি বাতিলের দাবি জানিয়ে বলেছে, আওয়ামী লীগের এই হঠকারী সিদ্ধানত্দ সাম্প্রদায়িকতা এবং মৌলবাদের বিরম্নদ্ধে আন্দোলনরত প্রগতিশীল নারী সমাজসহ দেশের সুশীল সমাজকে সত্দম্ভিত করেছে। তাদের এই সিদ্ধানত্দে দেশের প্রচলিত আইন ও আদালত সম্পর্কে জনগণের মধ্যে বিভ্রানত্দি ও প্রশ্ন সৃষ্ট করেছে।

৫ বাম দল গতকাল এক জরম্নরি সভায় বলেছে, আওয়ামী লীগ নির্বাচনে জয়লাভের জন্য জনস্বার্থ বিরোধী যে কোন চুক্তি করতে পারে, খেলাফত মজলিসের সঙ্গে চুক্তির মধ্য দিয়ে তা আবার প্রমাণিত হয়েছে।

নারী মুক্তি সংসদ, সিটিজেন রাইটস মুভমেন্ট, জাতীয় হিন্দু ছাত্র মহাজোট, নারী সাংবাদিক কেন্দ্র, জাতীয় গণফ্রন্ট এবং পথনাটক পরিষদও খেলাফত মজলিসের সঙ্গে আওয়ামী লীগের চুক্তি স্বাৰরে নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে।

এদিকে খেলাফত মজলিসের সঙ্গে আওয়ামী লীগের সমঝোতা স্মারক বাতিলের দাবিতে ধানমন্ডির সুধাসদনের সামনে সোমবার বিকেল চারটার দিকে বিৰোভ প্রদর্শন করেছেন সুশীল সমাজের কয়েকজন প্রতিনিধি। ব্যানারসহ বেশকিছু নাগরিক সুধাসদনের সামনে দাঁড়িয়ে বিৰোভ প্রদর্শনের সময় আওয়ামী লীগ কর্মীদের সঙ্গে তাদের উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। এক পর্যায়ে আওয়ামী লীগ কর্মীরা তাদের ব্যানার ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এ সময় ফ র মাহমুদ হাসানসহ কয়েকজন শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত সচিবের কাছে স্মারকলিপি দেন। স্মারকলিপিতে স্বাৰর করেন ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী, ড. এস এম আরিফ আলম, হাবিবুর রহমান চৌধুরী, জীবন রায় চৌধুরী, নিশাত জাহান রানাসহ ৩০ জন নাগরিক।

সূত্রঃ http://ittefaq.com/get.php?d=06/12/26/w/n_zzztrm

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: