মহাজোটের মহাসমাবেশ ১০ জানুয়ারি জালিয়াতির নির্বাচনকে বৈধতা দিতে পারি না : শেখ হাসিনা

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও মহাজোট নেত্রী শেখ হাসিনা সিভিল প্রশাসন, সেনাবাহিনী ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীর সদস্যদের ভোট চোরদের সহযোগিতা না করার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন৷ গতকাল শুক্রবার ধানমন্ডি কার্যালয়ে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ আহ্বান জানান৷ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম সভায় সভাপতিত্ব করেন৷
শেখ হাসিনা বলেন, আজ সারা দেশের মানুষ একদিকে এবং ভোট চোররা একদিকে৷ বাংলার মাটিতে ভোট চোরদের কোনো ঠাই হবে না৷ আন্দোলনের মধ্য দিয়েই আমরা এ ভোট চুরির খেলা বন্ধ করতে চাই৷
শেখ হাসিনা ২২ জানুয়ারির নির্বাচন বয়কটের পূর্ব ঘোষণা উল্লেখ করে বলেন, আমরা আগে থেকে ঠিক করে রাখা জালিয়াতির নির্বাচনের ফলাফলকে বৈধতা দিতে নির্বাচনে যেতে পারি না৷ আমরা চাই একটি অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন, যাতে জনগণ নির্ভয়ে ভোট দিয়ে তাদের পছন্দের সরকার গঠন করতে পারেন৷
শেখ হাসিনা ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠানে খালেদা জিয়ার সাংবিধানিক ধারাবাহিকতার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বলেন, একটি নির্ভুল ভোটার তালিকা ছাড়া কিভাবে নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব?

তিনি বলেন, আরেকটি ১৫ ফেব্রুয়ারি মার্কা নির্বাচন করতে চাইলে এ দেশের জনগণই তা প্রতিহত করবে৷ সভায় আওয়ামী লীগ নেত্রী মতিয়া চৌধুরী ও ওবায়দুল কাদের উপস্থিত ছিলেন৷
পল্টনে মহাজোটের মহাসমাবেশ
১০ জানুয়ারি
আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট আগামী ১০ জানুয়ারি রাজধানীর পল্টন ময়দানে আবারো মহাসমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে৷ শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আয়োজিত ওই মহাসমাবেশ থেকে আন্দোলনের পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করবে মহাজোট৷ এরশাদের জাতীয় পার্টি ও বি চৌধুরী-অলির এলডিপি জোটে যুক্ত হওয়ার পর গতকাল শুক্রবার রাতে প্রথমবারের মতো মহাজোটের সমন্বয় সভা শেষে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আবদুল জলিল এ ঘোষণা দেন৷ এ সময় তিনি ৭ ও ৮ জানুয়ারির অবরোধ ৯ তারিখ পর্যন্ত গড়াতে পারে বলেও আভাস দেন৷ প্রসঙ্গত, বর্তমান কেয়ারটেকার সরকার দায়িত্ব নেয়ার পর আওয়ামী জোট এর আগে পল্টন ময়দানে তিনবার মহাসমাবেশ করেছে৷ তাদের সর্বশেষ মহাসমাবেশটি ছিল ১৮ ডিসেম্বর৷
আবদুল জলিলের গুলশানের বাসভবনে আমির হোসেন আমুর সভাপতিত্বে মহাজোটের সমন্বয় সভায় তোফায়েল আহমেদ, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, আবদুর রাজ্জাক, জাপা মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার, এলডিপির মেজর (অব.) আবদুল মান্নান, মাহী বি চৌধুরী, রাশেদ খান মেনন, হাসানুল হক ইনুসহ জোটভুক্ত দলগুলোর নেতারা উপস্থিত ছিলেন৷
আবদুল জলিল বলেন, আজ দেশের মানুষ একদিকে আর ইয়াজউদ্দিন একদিকে৷ তিনি বিএনপি-জামায়াত জোটকে ক্ষমতায় ফেরাতে প্রহসনের নির্বাচনের আয়োজন করেছেন৷ তিনি এ উদ্যোগের মধ্য দিয়ে জাতিকে সংঘাতের দিকে ঠেলে দিচ্ছেন৷ বাংলার মানুষ যে কোনো মূল্যে এ অবৈধ নির্বাচন প্রতিহত করবে৷
তিনি বলেন, আমরা নির্বাচন করতে চেয়েছিলাম৷ কিন্তু কোনো ষড়যন্ত্রের নির্বাচনের মধ্য দিয়ে আমরা সাজানো ফলের বৈধতা দিতে পারি না৷
সূত্রঃ http://www.jaijaidin.com/view_news.php?News-ID=24979&issue=184&nav_id=1

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: