শীতে গতকাল সারা দেশে ৫৪ জনের মৃত্যু

তীব্র শৈত্যপ্রবাহে গতকাল সারা দেশে ৫৪ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ বিভিন্ন জেলা থেকে প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী চলনবিল অঞ্চলে আটজন, ঠাকুরগাওয়ে সাতজন, গাইবান্ধায় ছয়জন, বরিশালে ছয়জন, সাতক্ষীরায় তিনজন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তিনজন, বগুড়ায় তিনজন, ঝালকাঠিতে তিনজন, রাজবাড়ীতে দুইজন, নাটোরে দুইজন, পঞ্চগড়ে দুইজন, নীলফামারীতে দুইজন, কালিয়াকৈরে দুইজন, নওগায় দুইজন, সৈয়দপুরে দুইজন ও কুষ্টিয়ায় একজন শৈত্যপ্রবাহে মারা যায়৷ এদিকে আবহাওয়া অধিদফতর সূত্র জানায়, আজ রবিবারও সারা দেশে শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকবে৷
বিভিন্ন জেলা থেকে প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী তীব্র শৈত্যপ্রবাহের কারণে সারা দেশে মানুষের জীবনযাত্রায় স্থবিরতা নেমে এসেছে৷ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বিশেষত উত্তরাঞ্চলে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া মানুষ ঘর থেকে বের হচ্ছে না৷ ফলে বিভিন্ন শহরের রাস্তঘাট ও মার্কেটগুলো প্রায় জনশূন্য৷
শৈত্যপ্রবাহের প্রভাব পড়ছে বিভিন্ন যান্ত্রিক যানবাহনে৷ দক্ষিণাঞ্চল থেকে ঢাকাগামী লঞ্চগুলো গন্তব্যে পৌছেছে নির্ধারিত সময়ের পাচ-ছয় ঘণ্টা পর৷ আন্তঃনগর বিভিন্ন বাস সার্ভিসে যাত্রীসংখ্যাও কমে গেছে৷ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ঠাণ্ডার কারণে মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে বিভিন্ন রোগে৷ শীতের কারণে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বন্ধ থাকায় বিভিন্ন স্থানে শ্রমজীবী মানুষের জীবনে নেমে এসেছে দুর্ভোগ৷ গতকাল দেশের কোথাও কোথাও সূর্য দেখা যায়নি৷ আবার কোথাও সূর্য উঠেছে দুপুরের পর৷ বিভিন্ন স্থানে ছিল ঘন কুয়াশা৷
এদিকে আবহাওয়া অধিদফতর সূত্র জানায়, আজ রবিবার সারা দেশে শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকবে৷ শেষরাত থেকে সকাল পর্যন্ত নদী অববাহিকায় মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা এবং অন্যত্র হালকা থেকে মাঝারি কুয়াশা পড়তে পারে৷ ফরিদপুর, রাজশাহী, ইশ্বরদী, দিনাজপুর, সাতক্ষীরা, যশোর ও চুয়াডাঙ্গা অঞ্চলের ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে, যা পরবর্তী ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে৷ রাতের আবহাওয়া অপরিবর্তিত থাকবে৷ গতকাল শনিবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২২ দশমিক ১ সে. এবং সর্বনিম্ন ছিল ১২ দশমিক ৮ সে.৷
ঠাকুরগাও প্রতিনিধি জানান, ঠাকুরগাওয়ে ছয় দিন ধরে অবিরাম শৈত্যপ্রবাহ চলছে৷ কনকনে শীতে দরিদ্র মানুষ বেসামাল হয়ে পড়েছে৷ তীব্র শীত ও শীতজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় দুই শিশুসহ আরো সাতজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে৷ শীতবস্ত্র, কাজ ও খাদ্যের দাবিতে শত শত দরিদ্র মানুষ শহরে বিক্ষোভ মিছিল করে শনিবার জেলা প্রশাসকের বাসভবন ঘেরাও করে৷ শীতে মৃতরা হচ্ছেন সদর উপজেলার চামেশ্বরী গ্রামের আবদুর রহিমের তিন মাস বয়সী কন্যাশিশু খুশি, হরিপুর উপজেলার ডাঙ্গিপাড়ার রমিজউদ্দিনের ১৫ দিন বয়সী শিশুপুত্র কনক, গোবিন্দনগরের প্রদীপ দে (৬৬), রানীশংকৈলের বাচোর গ্রামের কমলা রানী (৬০), করনাইট পশ্চিমপাড়া গ্রামের জয়নব বেগম (৬২), পীরগঞ্জের দুর্গাপুর গ্রামের সুনিল বর্মন (৫৫) ও জাবরহাট বৃদ্ধিগাওয়ের শহিদুর রহমান (৬৮)৷ সারা দিন সূর্যের মুখ দেখা যাচ্ছে না৷ শনিবার তাপমাত্রা কিছুটা বাড়লেও শীতের তীব্রতা কমেনি৷ জেলার নিম্ন আয়ের এক লাখ পরিবার শীত মোকাবেলায় হিমশিম খাচ্ছে৷ দিন আনে দিন খায় এমন লোকদের সমস্যা আরো বেশি৷ তীব্র শীতে মাঠে কাজ নেই৷ তাই তাদের ঘরে খাবারও নেই৷ এই পরিবারগুলোকে বাচাতে সরকারের কোনো উদ্যোগ নেই৷ শনিবার কয়েকশ’ নিরন্ন শীতার্ত মানুষ শীতবস্ত্র, কাজ ও খাদ্যের দাবিতে অফিস বন্ধ থাকায় জেলা প্রশাসকের বাসভবন ঘেরাও করে৷ জেলা প্রশাসক শাফায়েত হোসেন তাদের শীতবস্ত্র দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিলে বিক্ষোভকারীরা ঘরে ফিরে যায়৷ তিনি জানান, ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে দুই হাজার কম্বল পাওয়া গেছে এবং আরো দুই হাজার কম্বল পাওয়ার প্রতিশ্রুতি পাওয়া গেছে৷ তবে ১৫ হাজার কম্বল চেয়ে জরুরি ফ্যাক্স বার্তা পাঠানো হয়েছে বলে জানানো হয়৷ সদর উপজেলায় এলডিপির উদ্যোগে কেন্দ্রীয় সহসভাপতি স্থানীয় নেতা ফিরোজ মাহমুদ হাসান গত তিন দিনে ১০ হাজার মানুষের মধ্যে কম্বল ও গরম কাপড় বিতরণ করেছেন৷
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, প্রচণ্ড শীত ও শীতজনিত রোগে শুক্রবার সিরাজগঞ্জে আরো তিনজন মারা গেছে৷ এ নিয়ে গত দু’দিনে সিরাজগঞ্জে শীতে মৃতের সংখ্যা সাতজন৷ এরা হচ্ছে রায়গঞ্জ উপজেলার গারুদহ গ্রামের নুরুল ইসলাম, ধানগড়া গ্রামের সাইফুল ইসলাম (৬৫), জাহেদা বেগম (৬৫), আবদুর রহমান (৫৫), প্রামাণিক পাড়ার ফরজ আলী (৫৮), সদর উপজেলার খোকশাবাড়ী গ্রামের ফকির আলী (৪৫) এবং উল্লাপাড়া উপজেলার পাঙ্গাসী গ্রামের এক শিশুসহ সাতজন৷
সূত্রঃ http://www.jaijaidin.com/view_news.php?News-ID=25106&issue=185&nav_id=7

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: