সীমান্তে আরো এক বাংলাদেশি হত্যা, একজন অপহৃত

সীমান্তে আরো এক বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা করেছে বিএসএফ৷ বিনা উস্কানিতে বাংলাদেশকে টার্গেট করে গুলিবর্ষণও অব্যাহত রেখেছে তারা৷ বিএসএফ সোমবার দিনাজপুরের বিরল উপজেলা সীমান্তে বাংলাদেশের তরুণ এক গরু ব্যবসায়ীকে গুলি করে হত্যা ও আহত অন্য একজনকে ধরে নিয়ে যায়৷ এছাড়া গতকালও বিনা উস্কানিতে বিএসএফের গুলিবর্ষণের জের ধরে চুয়াডাঙ্গার বাড়াদী সীমান্তে বিডিআর-বিএসএফের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে৷ কয়েক দফা গোলাগুলিতে সীমান্তবর্তী গ্রামবাসীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে৷ বিডিআর অতিরিক্ত শক্তি বাড়ানোর পাশাপাশি সীমান্তে সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থা জারি করেছে৷ বিডিআর ও গ্রামবাসীর বরাত দিয়ে এ সম্পর্কে আমাদের প্রতিনিধদের পাঠানো রিপোর্ট :
দিনাজপুর : দিনাজপুরের বিরল উপজেলার ৮ নাম্বার ধর্মজানপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক জানান, গত সোমবার সন্ধ্যায় বিরল উপজেলার সাতজন গরু ব্যবসায়ী গরু কেনার জন্য ইনডিয়ার পশ্চিম দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ থানার কাটাবাড়ি ডাবরা বিল এলাকায় যান৷ সেখান থেকে কেনা গরু নিয়ে তারা পরদিন মঙ্গলবার ভোর ৬টায় বাংলাদেশ সীমানায় প্রবেশ করার সময় গোবরাবিলা ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যরা তাদের টার্গেট করে গুলি ছোড়ে৷ জীবন বাচাতে পাচ ব্যবসায়ী গরু রেখে দৌড়ে বাংলাদেশের সীমানায় চলে আসেন৷ অন্য দু’জন গুলিবিদ্ধ হয়৷ এর মধ্যে বিরল উপজেলার চকেরভিটা গ্রামের মৃত আলী হাসানের ছেলে শহিদুল (২২) নিহত এবং একই উপজেলার ধর্মজানপুর গ্রামের তোরাব আলীর পুত্র নুরুল ইসলাম (২৫) গুরুতর আহত হয়৷ হতাহতদের বিএসএফ তাদের ক্যাম্পে নিয়ে যায়৷ নিহত ব্যবসায়ীর লাশ গতকাল পর্যন্ত ফেরত দেয়া হয়নি৷ এ ব্যাপারে গতকাল বিকাল সাড়ে ৪টায় স্থানীয় এনায়েতপুর বিডিআর ক্যাম্পে পাঠানো এক বার্তায় বিএসএফ জানায়, তাদের গুলিতে একজন বাংলাদেশি যুবক নিহত ও অন্য একজন আটক রয়েছে৷ এ খবর জানাজানি হলে সীমান্তবর্তী জনমনে চরম ক্ষোভ ও উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে৷ দিনাজপুর ১৪ রাইফেলস ব্যাটালিয়ন এই ঘটনার কড়া প্রতিবাদ জানিয়ে ১১৬ বিএসএফ অধিনায়কের কাছে গতকাল রাত ৮টায় এক চিঠি পাঠিয়েছে৷ বিডিআরের টহল ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে৷
চুয়াডাঙ্গা : দামুড়হুদা উপজেলা বাড়াদী সীমান্তে সোমবার মধ্যরাতে বিডিআর-বিএসএফের মধ্যে শুরু হওয়া গোলাগুলি গতকাল সকাল ৭টা পর্যন্ত চলে৷ সারা দিন বিরতির পর রাত সাড়ে ১১টা থেকে একই পয়েন্টে শুরু হয় দু’পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় গোলাগুলি৷ ইনডিয়ার বিজয়পুর ক্যাম্পের বিএসএফ বিনা উস্কানিতে বাংলাদেশকে লক্ষ্য করে তিন রাউন্ড গুলি ছুড়লে বিডিআর ১০ রাউন্ড গুলি ছুড়ে এর জবাব দেয়৷ রাত সাড়ে ১২টায় আবারো বিএসএফ চার রাউন্ড গুলি চালায়৷ তাত্ক্ষণিকভাবে বিডিআরের জবাব দেয় পাল্টা গুলি ছুড়ে৷ বিডিআর-বিএসএফের মধ্যে এ গোলাগুলির ঘটনায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি৷ তবে সীমান্ত এলাকার মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে আতঙ্ক৷ অনেক পরিবার গ্রাম ছেড়ে পাশের এলাকায় পরিবার পরিজন নিয়ে রাত কাটাচ্ছে৷ ৩৫ রাইফেলস ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লে. ক. মীর মোতাহার হাসান পিএসসি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, সীমান্তে সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থা জারি করা হয়েছে৷ অতিরিক্ত শক্তি সমাবেশের পাশাপাশি জোরদার করা হয়েছে টহলদারি৷
সূত্রঃ http://www.jaijaidin.com/view_news.php?News-ID=26372&issue=196&nav_id=7

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: