জাতির উদ্দেশে প্রথম ভাষণে চিফ অ্যাডভাইজর ড. ফখরুদ্দীনের আভাস ভোট হবে সবকিছু সংস্কারের পর  নির্ভুল ভোটার লিস্ট ষ ইলেকশন কমিশন পুনর্গঠন  কালো টাকা ও পেশিশক্তির প্রভাবমুক্ত নির্বাচন  দুর্নীতি দমন কমিশন সক্রিয় করা  দ্রুততম সময়ে নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতা হস্তান্তর

দায়িত্ব নেয়ার ৯ দিন পর জাতির উদ্দেশে দেয়া প্রথম রেডিও ও টেলিভিশন ভাষণে চিফ অ্যাডভাইজর ড. ফখরুদ্দীন আহমদ স্পষ্ট আভাস দিয়েছেন, সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে প্রয়োজনীয় সব সংস্কার সম্পন্ন করার পরই নির্বাচন৷ তিনি বলেন, আমাদের প্রধান দায়িত্ব হচ্ছে একটি স্বচ্ছ, শান্তিপূর্ণ ও সত্যিকারের গণতান্ত্রিক নির্বাচনের জন্য অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি করা৷ এ জন্য প্রয়োজন সুনির্দিষ্ট কর্মসূচি ও কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন এবং বাস্তবায়ন৷
ড. ফখরুদ্দীন বলেন, সবার কাছে গ্রহণযোগ্য, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করে যথাসম্ভব কম সময়ে নির্বাচিত সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে চায় তত্ত্বাবধায়ক সরকার৷ একই সঙ্গে নির্বাচনকে দুর্নীতি ও সন্ত্রাসমুক্ত করতে তারা দৃঢ়প্রতিজ্ঞ৷ এ জন্য নির্বাচন কমিশন ও নির্বাচনী প্রক্রিয়ার সংস্কার সাধনে যেমন সুদৃঢ় ব্যবস্থা নেয়া হবে তেমনি ভোটার আইডি কার্ড, স্বচ্ছ ব্যালট বক্স প্রবর্তনের উদ্যোগও নেয়া হবে শিগগির৷ তত্ত্বাবধায়ক সরকার বিচার বিভাগের স্বাধীনতাদানসহ জনপ্রশাসনকে জনমুখী করা, আইন-শৃঙ্খলার উন্নয়নে তত্পরতা জোরদার করা, বিদ্যুত্ সঙ্কট নিরসন ও দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে বিশেষ পদক্ষেপ গ্রহণ করবে৷ দুর্নীতি দূরীকরণের জন্য পদ্ধতিগত পুনর্বিন্যাস করে নেয়া হবে কঠোর ব্যবস্থা৷ এমন পরিবেশ সৃষ্টি করা হবে যেখানে আত্মপ্রত্যয়ে বলীয়ান নাগরিকদের মনে বিশ্বাস জন্মাবে চিত্ত যেথা ভয় শূন্য উচ্চ যেথা শির৷
গতকাল রাতে জাতির উদ্দেশে দেয়া এক ভাষণে চিফ অ্যাডভাইজর ড. ফখরুদ্দীন আহমদ উল্লিখিত আশাবাদ ব্যক্ত করেন৷ বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বেতার তার এ ভাষণ সরাসরি সম্প্রচার করে৷ এছাড়া বেসরকারি টিভি চ্যানেলগুলোতেও ভাষণ সম্প্রচার করা হয়৷
রাত পৌনে ৯টা থেকে ৯টা ৫ মিনিট পর্যন্ত ২০ মিনিটের ভাষণে চিফ অ্যাডভাইজর গত ৩৫ বছরে দেশে কাঙ্ক্ষিত সুখ সমৃদ্ধি অর্জন সম্ভব হয়নি উল্লেখ করে বলেন, সীমাহীন দুর্নীতি, জাতীয় স্বার্থের ঊর্ধ্বে ব্যক্তি ও দলীয় স্বার্থের প্রাধান্য, ক্ষমতা, বিত্ত ও প্রতিপত্তির জন্য নীতিহীন প্রতিযোগিতা, হীনস্বার্থ চরিতার্থের উদ্দেশ্যে অযাচিত ব্যক্তি বন্দনা এবং মেধা ও যোগ্যতার স্বীকৃতির পরিবর্তে কালো টাকা ও পেশী শক্তির যথেচ্ছ ব্যবহারের কারণে কাঙ্ক্ষিত সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি অর্জন সম্ভব হয়নি৷ ২২ জানুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচন বাতিল ও জরুরি অবস্থা জারির প্রেক্ষাপট বর্ণনা করে বলেন, বাংলাদেশের মাটি ও মানুষের সুখ, সমৃদ্ধি, শান্তি ও সার্বিকভাবে সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করার উদ্দেশে এক সঙ্কটময় পরিস্থিততে তাকে ও তার উপদেষ্টাদের দায়িত্ব গ্রহণ করতে হয়েছে৷ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যে বিতর্ক, অনিশ্চয়তা ও অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছিল তা কেবল দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি, সামাজিক স্বস্তি ও নিরাপত্তাকেই বিঘ্নিত করেনি বরং দেশের গণতান্ত্রিক কাঠামোকে হুমকির সম্মুখীন করে তুলেছিল৷ ধ্বংসাত্মক ও অন্তর্ঘাতমূলক কার্যকলাপ, পরস্পর বিরোধী রাজনৈতিক দলের মধ্যে সহিংস ও বৈরী মনোভাব, সুষ্ঠু ও স্বচ্ছ নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের কাঙ্ক্ষিত ব্যবস্থার অনুপস্থিতি দেশের নির্ধারিত নির্বাচনকে শুধু অসম্ভব নয় বরং গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা ও কাঠোমোকেই বিপন্ন করে তুলেছিল৷
দেশ আজ এক কঠিন চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন এ অভিমত ব্যক্ত করে চিফ অ্যাডভাইজর বলেন, দেশের রাজনৈতিক ও সামজিক সুস্থিতি, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠান এবং জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত করে গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থা সমুন্নত ও সুদৃঢ় করা আজ সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ৷ তিনি বলেন, দেশের অগ্রগতি ও সমৃদ্ধির চাকাকে পুরোপুরি সচল রাখার চ্যালেঞ্জও রয়েছে আমাদের৷ আমাদের সবাইকে এসব চ্যালেঞ্জ দৃঢ়প্রত্যয়ের সঙ্গে মোকাবেলা করতে হবে৷ আমাদের ভবিষ্যতকে করতে হবে আরো বেশি উজ্জ্বল, আলোকিত ও কর্মমুখর৷
বর্তমান সরকারের প্রধান দায়িত্ব সম্পর্কে ড. ফখরুদ্দীন আহমদ বলেন, আমাদের প্রধান দায়িত্ব হচ্ছে একটি স্বচ্ছ, শান্তিপূর্ণ ও সত্যিকারের গণতান্ত্রিক নির্বাচনের জন্য অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি করা৷ এর জন্য প্রয়োজন সুনির্দিষ্ট কর্মসূচি ও কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন৷
নির্বাচন কমিশন সম্পর্কে চিফ অ্যাডভাইজর বলেন, এটা অপ্রিয় হলেও সত্য যে, অতীতে নির্বাচনক কমিশনের কর্মকাণ্ড সম্পূর্ণভাবে পক্ষপাতিত্বের ঊর্ধ্বে থাকতে পারেনি৷ বর্তমান নির্বাচন কমিশনও বিতর্কিত হয়ে পড়েছে৷ নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন তাই জরুরি৷ একটি অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ
নির্বাচনের জন্য নির্ভুল ও সঠিক ভোটার তালিকা প্রণয়ন এবং প্রকাশ সমান জরুরি৷ তিনি উল্লেখ করেন নির্বাচনী বিধিমালার প্রতিপালন ও নির্বাচনী ব্যয় মনিটরের বিষয়ে তার সরকার যথাযথ পদক্ষেপ নিবে৷ বিভিন্ন মহলের ভোটার আইডি কার্ড ও স্বচ্ছ ব্যালট বক্সের দাবির ব্যাপারেও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে৷ রাজনৈতিক দলগুলো কর্তৃক সত্ ও যোগ্য প্রার্থী মনোনয়ন দেয়ার বিষয়টিকে একটি গণদাবি ও সময়ের দাবি হিসেবে চিফ অ্যাডভাইজর অভিমত ব্যক্ত করেন৷ তিনি দৃঢ় আস্থা ব্যক্ত করে বলেন, নির্বাচনকে দুর্নীতি ও সন্ত্রাসমুক্ত করার ব্যাপারে বর্তমান সরকার সংকল্পবদ্ধ৷ কালো টাকা ও পেশীশক্তি যাতে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনে জনগণের ইচ্ছার সঠিক প্রতিফলনকে বাধাগ্রস্ত করতে না পারে সে জন্য নির্বাচনের সার্বিক প্রক্রিয়া ও পদ্ধতি সংস্কারের সুদৃঢ় কার্যক্রম নেয়া হবে৷ বিশেষ করে নির্বাচনে অংশগ্রহণে ইচ্ছুক সবার সমুদয় সম্পত্তি ও অর্থ উপার্জনের বিশদ বিবরণ এবং তার বৈধতা প্রমাণের বিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়া হবে৷
যৌথ বাহিনীর তত্পরতার ফলে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে, এ আশাবাদ ব্যক্ত করে ড. ফখরুদ্দীন আহমদ বলেন, গডফাদার, দাগী অপরাধী, সন্ত্রাসী, চাদাবাজ ও সমাজ বিরোধীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা সরকার গ্রহণ করবে৷ পবিত্র ধর্মের নামে বোমাবাজি, চরমপন্থী তত্পরতা, অবৈধ অস্ত্র, চোরাকারবারের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে চিফ অ্যাডভাইজর উল্লেখ করেন৷
প্রশাসনকে নির্দলীয় ও নিরপেক্ষ করে তোলার আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি বলেন, সরকারি কর্মকর্তাদের মনে রাখতে হবে রাজনৈতিক দলগুলো তাদের প্রভু নয়৷ তারা হচ্ছেন প্রজাতন্ত্রের নিরপেক্ষ কর্মী৷ জনগণের সেবক৷
তত্ত্বাবধায়ক সরকার স্বল্পসময়ের মধ্যে বিচার বিভাগকে নির্বাহী বিভাগ থেকে পৃথক করার ব্যাপারে বলিষ্ঠ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে উল্লেখ করে ড. ফখরুদ্দীন আহমদ বলেন, বিচার বিভাগ হবে স্বাধীন ও নিরপেক্ষ৷ বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিশ্চিত করার জন্য তারা যে পদক্ষেপ নিয়েছেন তা দেশের বিচার ব্যবস্থার ইতিহাসে একটি মাইলফলক হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে৷
তিনি বলেন, দেশের জনগণ চায় দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হোক৷ এরই পরিপ্রেক্ষিতে সরকার দুর্নীতি দমনে পদ্ধতিগত উপায়ে একটি দৃঢ় কর্যক্রম শিগগির শুরু করবে৷ দুর্নীতি দমন কমিশন এবং সংশ্লিষ্ট সরকারি সংস্থাগুলোকে পুনর্বিন্যাস ও সক্রিয় করা হবে৷
বিদ্যুত্ সঙ্কট সম্পর্কে চিফ অ্যাডভাইজর বলেন, নতুন বিদ্যুত্ কেন্দ্র নির্মাণের জন্য বিপুল অর্থ ও দীর্ঘ সময়ের প্রয়োজন৷ রাতারাতি বিদ্যুত্ উত্পাদন বৃদ্ধির আশা করা তাই যুক্তিযুক্ত নয়৷ তবে বিদ্যুত্ সরবরাহ যথাসম্ভব বাড়াতে দুর্নীতি রোধ ও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার ওপর গুরুত্বারোপ করা হবে৷
ড. ফখরুদ্দীন আহমদ বলেন, দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণের জন্য বন্দর অব্যবস্থাপনা, পণ্য পরিবহনে চাদাবাজি, কিছু অসাধু ব্যবসায়ীচক্র কর্তৃক বাজার কুক্ষিগত করাসহ যেসব তত্পরতা বাজারে পণ্য সরবরাহে বিঘ্ন ঘটায় এবং দ্রব্যমূল্যে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে সেসবের বিরুদ্ধে যথাযথ ও কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে৷
তিনি যুক্তিহীন আবেগ নির্ভর স্বার্থকেন্দ্রিকতার বিপরীতে সুনির্দিষ্ট কর্মসূচি ভিত্তিক প্রগতিশীল চিন্তা চেতনার ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রেখে ধর্মভিত্তিক ও সামাজিক বিভাজনের অশুভ রাহুগ্রাস থেকে জাতিকে মুক্ত রাখতে হবে৷ এমন সমাজ সৃষ্টির জন্য পদক্ষেপ নিতে হবে – ‘চিত্ত যেথা ভয় শূন্য, উচ্চ যেথা শির’৷ তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন গণমাধ্যম ও বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা জাতিকে সঠিক পথে চলতে সহায়তা করবে৷ আন্তর্জাতিক উগ্রবাদ ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে যেতে তিনি সংকল্প ব্যক্ত করেন৷ চিফ অ্যাডভাইজর বলেন, যথাসম্ভব স্বল্পতম সময়ে নির্বাচিত সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরে তার সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ৷
সূত্রঃ http://www.jaijaidin.com/view_news.php?News-ID=26807&issue=200&nav_id=1

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: