সচিবদের প্রতি চিফ অ্যাডভাইজরের হুশিয়ারি অসততা ও পক্ষপাতিত্বের প্রমাণ পেলে কঠোর সাজা

সততা বজায় রেখে নিরপেক্ষভাবে দায়িত্ব পালনের জন্য সচিবদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন কেয়ারটেকার সরকারের চিফ অ্যাডভাইজর ড. ফখরুদ্দীন আহমদ৷  বলেছেন, কারো অসততা ও পক্ষপাতিত্বের প্রমাণ পেলে কঠোর শাস্তি দেয়া হবে৷ কোনো রাজনৈতিক দল সরকারি চাকরিজীবীদের প্রভু নয় উল্লেখ করে ড. ফখরুদ্দীন বলেন, সরকারি অফিসার ও কর্মচারীদের ইমেজ সঙ্কট দূর করতে হবে৷ তিনি হুশিয়ার করে বলেন, প্রকল্প বাস্তবায়নে কোনো গড়িমসি ও ব্যর্থতা সহ্য করা হবে না৷ চিফ অ্যাডভাইজর হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের একাদশ দিনে গতকাল মঙ্গলবার জনপ্রশাসনের সচিবদের উদ্দেশে বক্তৃতা করেন ড. ফখরুদ্দীন আহমদ৷ গতকাল তিনি বাংলাদেশ সচিবালয়ে ক্যাবিনেট ডিভিশনে অফিস করেন৷ সেখানকার কনফারেন্স রুমে সচিবদের সভায় চিফ অ্যাডভাইজরের বক্তৃতার পর বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের আটজন সচিব বক্তব্য দেন৷ শেষে আবারো সমাপনী বক্তৃতা করেন চিফ অ্যাডভাইজর৷ সরকারের সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সচিবরা এ বৈঠকে অংশ নেন৷ বৈঠক শেষে চিফ অ্যাডভাইজরের প্রেস সেক্রেটারি সৈয়দ ফাহিম মুনেম টিপু সাংবাদিকদের বৃফ করেন৷
বৈঠকের শুরুতেই সচিবদের উদ্দেশে পঠিত সূচনা বক্তব্যে ড. ফখরুদ্দীন আহমদ বলেন, আপনারা সবাই আমার এ দায়িত্ব নেয়ার পটভূমি সম্পর্কে জানেন৷ দেশ চালানোর দায়িত্ব মূলত নির্বাচিত সরকারের৷ আমি এবং আমার উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্যরা সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণে একটি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্ব নিয়েছি৷ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের ক্ষেত্র সৃষ্টিতে সরকারি অফিসারদের অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে৷ প্রশাসনের নিরপেক্ষতা সম্পর্কে জনমনে আস্থা সৃষ্টি করতে হবে৷ তিনি বলেন, নির্বাচন অনুষ্ঠানের দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের৷ তবে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের পূর্ব শর্তগুলো পূরণ এবং জনমনে আস্থা ও ইতিবাচক মনোভাব সৃষ্টির বিষয়ে সরকারি কর্মকর্তারা প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবেন৷
ড. ফখরুদ্দীন বলেন, কেয়ারটেকার সরকার দেশের অর্থনীতিকে সচল ও গতিশীল রাখতে প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ নেবে৷ অর্থনীতিকে চাঙ্গা রাখতে যেসব ক্ষেত্রকে অধিকতর গুরুত্ব দেয়া জরুরি, সেসব ক্ষেত্র চিহ্নিত করে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করতে হবে৷ দেশের উন্নয়ন ও পরিসেবা খাতগুলোর সঠিক সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে৷ দেশের বিদ্যুত্ খাতের অব্যবস্থার কারণে জনগণের যে ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে তা দূর করতে হবে৷ শিল্প ও কলকারখানা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং আবাসিক এলাকায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুত্ সরবরাহ নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় সব কার্যক্রম তাড়াতাড়ি শুরু করতে হবে৷
তিনি বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম একটানা বাড়ার কারণে জনমনে হতাশা বিরাজ করছে৷ তাই দ্রব্যমূল্য সহনশীল পর্যায়ে রাখার বিষয়ে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে৷ কৃষকরা যাতে প্রয়োজনীয় সার পেতে পারেন, সে জন্য ব্যবস্থাপনার উন্নয়নের মাধ্যমে প্রতিটি জেলায় পর্যাপ্ত পরিমাণ সার সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে৷
চিফ অ্যাডভাইজর বলেন, দেশের বিদ্যমান পররাষ্ট্র নীতির আওতায় বৈদেশিক ও আন্তর্জাতিক সুসম্পর্ক সমুন্নত রাখতে হবে৷ বন্ধুপ্রতীম দেশগুলো ও উন্নয়ন সহযোগীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রক্ষা করা হবে৷ তিনি বলেন, জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকার প্রয়োজনীয় সব রকম পদক্ষেপ নিতে বদ্ধপরিকর৷ কোনো অবস্থাতেই যেন জনমনে ভয়-ভীতির সঞ্চার না হয়, তা নিশ্চিত করতেও সরকার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে৷ কোনো অবস্থাতেই সন্ত্রাসী কার্যক্রম গ্রাহ্য করা হবে না৷ অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার এবং সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ চালু থাকবে৷
ড. ফখরুদ্দীন আহমদ বলেন, এর আগে জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে আমি বলেছিলাম, সরকারি অফিসারদের মনে রাখতে হবে তারা প্রজাতন্ত্রের কর্মী, জনগণের সেবক, অন্য কারো নন৷ দেশের জনগণের দেয়া করের টাকায় কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতাসহ সরকারের সব কার্যাদি পরিচালিত হয়৷ সুতরাং সরকারের সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌছে দেয়ার বিষয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সচেষ্ট থাকতে হবে৷ তাদের সব ধরনের ভয়-ভীতির ঊর্ধ্বে থেকে নিরপেক্ষতার সঙ্গে সরকারের সব কাজের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে৷
তিনি বলেন, সরকারের নিরপেক্ষতা নিশ্চিত করতে প্রশাসনে প্রয়োজনীয় সব ধরনের পরিবর্তন করা হবে৷ জনমনে প্রশ্ন উত্থাপিত হতে পারে, এমন কোনো কাজ কেউ করবেন না৷ সব ধরনের প্রশ্নের ঊর্ধ্বে থেকে সততা, নিষ্ঠা, স্বচ্ছতা ও নিরপেক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করতে হবে৷ যদি কারো কাজের বিষয়ে প্রশ্ন ওঠে এবং প্রমাণ মেলে কোনো অফিসার বা কর্মচারী সততা, নিষ্ঠা ও নিরপেক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেননি; তাহলে তাকে কঠোর শাস্তি দেয়া হবে৷
চিফ অ্যাডভাইজর বলেন, জনপ্রশাসনে গতি আনতে এবং স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করতে হবে৷ তিনি বলেন, এ বিষয়ে আমি ও আমার উপদেষ্টামণ্ডলী অত্যন্ত সজাগ৷ প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনার জন্য আমাদের সময়মতো অবহিত রাখবেন৷
বৈঠক শেষে চিফ অ্যাডভাইজরের প্রেস সেক্রেটারি সৈয়দ ফাহিম মুনেম সাংবাদিকদের জানান, চিফ অ্যাডভাইজরের সঙ্গে বৈঠকে সচিবরা কেয়ারটেকার সরকারকে দায়িত্ব পালনে প্রয়োজনীয় সব রকম সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন৷
বৈঠক সূত্র জানায়, চিফ অ্যাডভাইজরের বক্তব্যের পর আটজন সচিব বক্তব্য রাখেন৷ স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব সফররাজ হোসেন ও যোগাযোগ সচিব ইসমাইল জবিউল্লাহ প্রায় অভিন্ন ভাষায় বলেন, আমরা সরকারি চাকুরে৷ নিয়ম অনুযায়ী কাজ না করলে সরকার আমাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে, এটাই স্বাভাবিক৷ এছাড়া তারা সচিব ও উপসচিব স্তরে ছুটির জন্য চিফ অ্যাডভাইজরের পরিবর্তে ক্যাবিনেট সেক্রেটারির কাছ থেকে অনুমতি নেয়ার প্রস্তাব করেন৷ তারা বলেন, চিফ অ্যাডভাইজরের কাছ থেকে অনুমতি নেয়ার প্রক্রিয়া বেশ দীর্ঘ৷ এ কারণে অনেক সময় ছুটি মঞ্জুর হওয়ার পর আর ছুটির প্রয়োজন থাকে না৷
এ প্রসঙ্গে বৈঠকে চিফ অ্যাডভাইজর বলেন, সব বিষয়ে তার মতামতের প্রয়োজন নেই৷ তবে জটিল বিষয়গুলো প্রধান উপদেষ্টার কাছে পাঠানো যেতে পারে৷ বৈঠকে বিদ্যুত্ সচিব এস এম জাফরুল্লাহ বলেন, চলমান বিদ্যুত্ সমস্যা মোকাবেলায় পাইপলাইনে থাকা প্রকল্পগুলো জরুরি ভিত্তিতে পারচেজ কমিটিতে পাঠানোর প্রক্রিয়া করা হচ্ছে৷
শিল্প সচিব মোঃ নূরুল আমীন বলেন, সার নিয়ে কেউ যাতে কারসাজি করতে না পারে সে জন্য বিষয়টিকে খুব নিবিড়ভাবে মনিটর করা হচ্ছে৷
সমাপনী বক্তব্যে চিফ অ্যাডভাইজর নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে রাখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য স্বরাষ্ট্র সচিব ও বাণিজ্য সচিবকে নির্দেশ দেন৷
সূত্রঃ http://www.jaijaidin.com/view_news.php?News-ID=27048&issue=202&nav_id=1

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: