চাপাই নবাবগঞ্জ সীমান্তে বিডিআর-বিএসএফ গুলিবর্ষণ নওগায় বিএসএফের এক বাংলাদেশি হত্যা কুড়িগ্রামে অপহরণ সাতক্ষীরায় পুশ ইন

নওগার ধামইরহাট সীমান্তে গতকাল বুধবার গুলি করে হত্যার পর এক বাংলাদেশির লাশ নিয়ে গেছে ইনডিয়ার সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ৷ এর আগের দিন চাপাই নবাবগঞ্জের পোলাডাঙ্গা সীমান্তে বিডিআর ও বিএসএফের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে৷ বিএসএফ কুড়িগ্রামের রৌমারী সীমান্ত থেকে এক বাংলাদেশি নাগরিককে অপহরণ করেছে৷ এছাড়া বিএসএফ মঙ্গলবার রাতে সাতক্ষীরা সীমান্তে ১৬ বাংলাভাষীকে পুশ ইন করেছে৷ এর চার ঘণ্টার মধ্যেই বিডিআর তাদের পুশ ব্যাক করতে সক্ষম হয়৷ এসব ঘটনায় সীমান্তের সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলোতে উত্তেজনা বিরাজ করছে৷
নওগা প্রতিনিধি জানান, গতকাল বিএসএফ জেলার ধামইরহাট উপজেলার কালুপাড়া সীমান্তের ২৬ নাম্বার মেইন পিলারের কাছে এক বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যার পর লাশ নিয়ে গেছে৷ নিহত বাংলাদেশি ধামইরহাট উপজেলার আলতাদীঘি গ্রামের খাতের আলীর ছেলে এমদাদুল হক (৩৪)৷ গতকাল সকাল ৭টায় এমদাদুল হক সীমান্ত সংলগ্ন তার আবাদি জমি দেখতে গেলে ইনডিয়ার ১১৫ বিএসএফ শুভ্রা ক্যাম্পের সদস্যরা তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে৷ গুলিতে ঘটনাস্থলেই এমদাদুল হক নিহত হন৷ লাশ নো ম্যান্স ল্যান্ডে পড়ে থাকে৷ পরে বিএসএফ লাশ ইনডিয়ায় নিয়ে যায়৷
চাপাই নবাবগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, সদর উপজেলার আলাতুলী ইউনিয়নের পোলাডাঙ্গা সীমান্তে বিডিআর-বিএসএফের মধ্যে গতকাল সকালে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে৷ এতে কোনো হতাহতের ঘটনা না ঘটলেও সীমান্তে উত্তেজনা বিরাজ করছে৷ বিডিআর জানায়, গতকাল ভোর সাড়ে ৫টায় ইনডিয়ার মুর্শিদাবাদ জেলার লালগোলা থানার চররেনুকা বিএসএফ ফাড়ির সদস্যরা কোনো উস্কানি ছাড়াই বাংলাদেশের পোলাডাঙ্গা বিডিআর ক্যাম্প লক্ষ্য করে তিন রাউন্ড গুলি ছোড়ে৷ জবাবে বিডিআরও নয় রাউন্ড গুলি চালায়৷ ৩৯ রাইফেলস ব্যাটালিয়নের অ্যাডজুট্যান্ট ক্যাপ্টেন তৌফিক জানান, সীমান্তে এ গোলাগুলির ঘটনায় কোনো হতাহতের ঘটনা না ঘটলেও বিডিআর সতর্ক অবস্থায় রয়েছে৷
রৌমারী সংবাদদাতা জানান, গত মঙ্গলবার বিকালে উপজেলার সীমান্ত থেকে বিএসএফ এক বাংলাদেশি নাগরিককে অপহরণ করেছে৷ তার নাম মোকছেদ আলী (২৫)৷ বোল্লাপাড়া সীমান্ত গ্রাম থেকে ইনডিয়ার কুচলমারা বিএসএফ ক্যাম্পের একটি দল এ অপহরণের ঘটনা ঘটায়৷ এলাকাবাসী ও বিডিআর জানায়, ১০৬৩ নাম্বার পিলারের ১ সাব এম পিলারের কাছে ফকর জামানের জমিতে মোকছেদ কাজ করছিল৷ এ সময় বিএসএফের ওই দলটি বিনা উস্কানিতে বাংলাদেশে ঢুকে তাকে ধরে নিয়ে যায়৷ এ নিয়ে সীমান্তে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে৷
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি জানান, গত মঙ্গলবার রাতে বিএসএফ ইনডিয়ার ১৬ বাংলাভাষীকে সাতক্ষীরা সীমান্ত দিয়ে পুশ ইন করার চার ঘণ্টার মধ্যে বিডিআর তাদের পুশ ব্যাক করেছে৷ এ নিয়ে সীমান্তে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছে৷ বিডিআর সূত্র জানায়, ইনডিয়ার বসিরহাট মহকুমার স্বরূপনগর থানার হাকিমপুর বিএসএফ ক্যাম্পের জওয়ানরা সে দেশে বসবাসকারী বাংলাভাষী ১৬ নাগরিককে সাতক্ষীরার কাকডাঙ্গা সীমান্তের মেইন পিলার ১৩-এর ৩ রেফারেন্স পিলার ৭ বরাবর বাংলাদেশে পুশ ইন করে৷ এর দু’দিন আগে ইনডিয়ান পুলিশ মন্টু শেখ (৫০), রাবেয়া খাতুন (৩৫), সাকিলা আক্তার (১৬), ইসলাম শেখ (৫০), কল্পনা রানী (৩৫), ইসমাইল শেখ (১০), জুলমত শেখ (৫০), আবু বককার (৫০), কিসমত (৬৫), সুফিয়া বিবি (৪৫), জয়নাব বিবি (৫০), দুলু বিবি (৫০), মনোয়ারা (৫৫), গোলাম রসুল (৬০), রিজিয়া খাতুন (৫৪) ও আতাহার মোড়লকে (৬৫) আটকে বিএসএফে সোপর্দ করে৷ বিএসএফ সুযোগ বুঝে তাদের সাতক্ষীরা সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে পুশ ইন করে৷ তারা প্রত্যেকে ইনডিয়ার মুর্শিদাবাদ জেলার লালবাগ থানার হামানপুর গ্রামের অধিবাসী৷ পুশ ইন করার জানান, তাদের প্রত্যেকের ইনডিয়ান রেশন কার্ড রয়েছে৷ বিডিআর তাদের আটক করে বিএসএফের সঙ্গে আলোচনার চেষ্টা করে কিন্তু তাতে বিএসএফ ইতিবাচক সাড়া না দেয়ায় মঙ্গলবার রাত দেড়টার মধ্যে প্রথমে সাত ও পরে নয়জন করে দুই দফায় পুশ ব্যাক করে৷
সাতক্ষীরা ৪১ রাইফেলস ব্যাটালিয়নের অপারেশন অফিসার মেজর কামরুল হাসান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন৷
সূত্রঃ http://www.jaijaidin.com/view_news.php?News-ID=27170&issue=203&nav_id=7

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: