পাল্টে যাচ্ছে চির অনিয়মের রাজধানী ঢাকার চেনা চিত্র হকারশূন্য ফুটপাথ রাজপথ ০ নেই এলোমেলো পার্কিং

পাল্টে গেছে ঢাকার চিরচেনা চিত্র৷ ফুটপাথ ও রাজপথ হকারশূন্য, চলছে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, বাস স্টেশনে নেই গাড়ির এলোমেলো অবস্থান৷ সবকিছু যেন নিয়মের মধ্যে চলে এসেছে৷ অনিয়মে অভ্যস্ত চোখে অচেনা লাগে৷
সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ফুটপাথে হকারদের কলকাকলি নেই৷ নির্বিঘ্নে সাধারণ মানুষ ফুটপাথ দিয়ে হেটে যাচ্ছে৷ অথচ কয়েকদিন আগেও ফুটপাথ দিয়ে হাটা ছিল অনেকটা যুদ্ধে জেতার মতো৷ শুধু হকার নয়, রাজধানীর জুড়ে চলছে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান৷
পাশাপাশি দু’দিন ধরে কয়েকটি রাস্তায় সেনা সদস্যরা যানজট নিরসনে ট্রাফিক পুলিশকে সহায়তা করছেন৷ ফলে কয়েকদিনে নগরীর যানজটও অনেকটা সহনীয় পর্যায়ে চলে এসেছে৷ আগের মতো কোনো বাস স্টেশনে লোকাল বাসের ভিড় লক্ষ্য করা যায় না৷ গাড়ির ড্রাইভাররা বাধ্য হয়েই মেনে চলছে ট্রাফিক সিগনাল!
নীলক্ষেত, নিউ মার্কেট, গাউছিয়া মার্কেট, ফার্মগেট, মালিবাগ, গুলিস্তানসহ রাজধানীর অনেক এলাকা ঘুরে চোখে পড়েনি হকারদের আনাগোনা৷ পুরো ফুটপাথ ফাকা৷ হকারদের জবরদখল ফুটপাথ ছাড়িয়ে বিস্তৃত হয়েছিল রাজপথে৷ এখন তা-ও নেই৷ অবাধে চলাচল করছে পথচারীরা৷ রাজপথ দখলমুক্ত

থাকায় আগের মতো যানজটও ততোটা চোখে পড়ে না৷ প্রধান সড়কে আগের মতো এলোমেলো গাড়ি পার্কিং চোখে পড়ে না৷ আগে সড়কের এক-তৃতীয়াংশ দখল করে রাখতো গাড়ি৷ ফলে বেশির ভাগ সময়ই লেগে থাকতো যানজট৷
নীলক্ষেত, নিউমার্কেট, গাউছিয়া, গুলিস্তান, ফার্মগেট, মিরপুর, যাত্রাবাড়ী, মালিবাগ,
মহাখালীসহ পুরো শহরের প্রায় ১৬৩ কিলোমিটার ফুটপাথের বেশির ভাগই ছিল হকারদের দখলে৷ এসব ফুটপাথ দিয়ে চলাচলের উপায় ছিল না৷ কোথাও পুরনো বই, সবজি, সিডি ক্যাসেট ও কাপড়ের বাজার বসিয়ে ফুটপাথ দখল হয়েছিল, কোথাও ফুটপাথের অস্তিত্বই ছিল না৷
শাহবাগে ঢাকা ইউনিভার্সিটির প্রবেশমুখে প্রধান রাস্তা দখল করে চলতো ফুলের ব্যবসা৷ প্রায় সময় এখানে যানজট লেগে থাকতো৷ এসব অবৈধ ফুলের দোকান উচ্ছেদের ফলে যানজট অনেকটা কমে গেছে৷ হাই কোর্টের বটতলা থেকে শুরু করে দোয়েল চত্বর পর্যন্ত ফুটপাথ দখল করে চলতো মৃত্শিল্প ও নার্সারির ব্যবসা৷ শিশু একাডেমীতে নানা অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আসা অভিভাবকদের শিশুদের নিয়ে হাটতে হতো প্রধান সড়ক দিয়ে৷
শুধু ফুটপাথ দখল নয়, এসব ফুটপাথের দোকান থেকে কিছু কেনাকাটা করতে গিয়ে নানা ঝামেলা পোহাতে হতো সাধারণ ক্রেতাদের৷
গুলশান, বনানী, ধানমন্ডি, কল্যাণপুর, জয়কালী মন্দির, শাহজাহানপুর, উত্তরাসহ নগরীর বিভিন্ন স্থানে বহুতল ভবনের গ্রাউন্ড ফ্লোর ও আন্ডারগ্রাউন্ড পার্কিং স্থানে সুপারমল, রেস্টুরেন্টসহ বিভিন্ন ধরনের বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান চালানোর বিরুদ্ধে রাজউক ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা সরকারি জায়গায় স্থাপিত সব ধরনের অবৈধ স্থপনা উচ্ছেদের অভিযান পরিচালনা করছেন৷
ফুটপাথের অনেক দোকানদার বলেন, পুলিশসহ স্থানীয় প্রভাবশালীদের নিয়মিত মাসোহারা দিয়েই তারা ফুটপাথে ব্যবসা করতেন৷ নীলক্ষেত ও নিউ মার্কেটের আশপাশেই রয়েছে দেশের নামকরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঢাকা ইউনিভার্সিটি, ঢাকা মেডিকাল কলেজ হসপিটাল, বুয়েট, ইডেন ও ঢাকা কলেজ৷ এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের প্রতিদিনই নানা প্রয়োজনে নীলক্ষেত ও নিউ মার্কেট আসতে হয়৷ ঢাকা ইউনিভার্সিটির ছাত্রী ইশিতা ইসলাম অভিযোগ করেন, ফুটপাথ, এমনকি সড়কও দখল হয়ে যাওয়ায় প্রতিদিন তারা চলতে গিয়ে নানা সমস্যায় পড়তেন৷ ফুটপাথ ধরে হাটার কোনো অবস্থা ছিল না৷ এখন অনেকটা ভালো লাগছে৷ তিনি বলেন, ফুটপাথ হলো মানুষের চলাচলের জন্য৷ সেটা অবৈধভাবে দখল করে দোকান চালাবে, এটা মেনে নেয়া যায় না৷
মিরপুর থেকে গাউছিয়া মার্কেটে শপিং করতে আসা ব্যাংক কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বলেন, হকারদের উত্পাতে ঠিকমতো কেনাকাটা করা যেতো না৷ শপিং ব্যাগ নিয়ে ফুটপাথ দিয়ে হাটতে রীতিমতো যুদ্ধ করতে হয়৷ গাউছিয়া মার্কেটের ফুটপাথগুলো হকাররা মেলার মতো চারদিক থেকে দখল করে রাখতো৷ এমনকি ওভার বৃজগুলোও রক্ষা পেতো না এসব অবৈধ হকারের হাত থেকে৷ বৃজে ওঠার সিড়িগুলোও দখলের হাত থেকে রক্ষা পেতো না৷ ফলে পথচারীদের ওভার বৃজ দিয়ে পার হতে হিমশিম খেতে হতো৷ হকার উচ্ছেদের ফলে রাজধানীর শপিং মলের দোকানদাররা খুশি৷ নূরজাহান মার্কেটের এক দোকান মালিক সেকান্দার খান বলেন, ফুটপাথের ব্যবসায়ীদের কারণে তাদের বেচাকেনা কম হতো৷ তিনি বলেন, ‘আমরা যে টি-শার্ট ১০০ থেকে ১২০ টাকায় বিক্রি করি, সেটা তারা ৪০-৬০ টাকায় বিক্রি করছে৷ ফলে ক্রেতারাও সেদিকেই ঝুকতেন৷’
এ ব্যাপারে সিটি করপোরেশনের সম্পত্তি কর্মকর্তা রুহুল আমিনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি যায়যায়দিনকে বলেন, একাধিকবার এসব দোকান উচ্ছেদ করা হলেও কিছুদিন পরেই তারা আবার কোনো কোনো মহলকে ম্যানেজ করে বসে যেতো৷ এ ব্যাপারে পুলিশের সহায়তা দরকার৷ তাদের নিয়মিত উচ্ছেদ অভিযান চালানো উচিত৷ পাশাপাশি স্থানীয় কমিশনার এবং মার্কেটের মূল মালিকদের সচেতনতা দরকার৷
সূত্রঃ http://www.jaijaidin.com/view_news.php?News-ID=27171&issue=203&nav_id=7

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: