ট্রেন চলতে শুরু করেছে গন্তব্যে পৌঁছতে দিন

বিশিষ্ট আইনজীবী, গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন দেশের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে মনত্মব্য করতে গিয়ে বলেছেন, একটি লাইনচ্যুত গাড়ি লাইনে এসেছে। আলস্নাহর রহমত আছে বলেই আমরা এ ধরনের একটি শাসন পেয়েছি। এ ব্যবস্থায় সংবিধান লংঘিত হলেও সংবিধান উড়ে যায়নি, সংবিধান নিজের জায়গায় আছে। তিনি বলেন, দেশের সাধারণ মানুষ এখন ভরসা পাচ্ছে। সবকিছু লাইনে চলছে। নির্বাসিত অবস্থা থেকে আইন ফিরে এসেছে। এ প্রক্রিয়া সফল হোক। গতকাল শুক্রবার নিজস্ব বাসভবনে দৈনিক ইত্তেফাকের সঙ্গে একান্ত সাক্ষৎকারে ড. কামাল হোসেন বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেন। আগামী নির্বাচন সম্পর্কে তিনি বলেন, এটা পুরোপুরি নির্বাচন কমিশনের বিষয়। তবে আমি বলবো, ট্রেন চলতে শুরম্ন করেছে। গনত্মব্যে পৌঁছতে দিন। এর আগে আতংক সৃষ্টি না করে আশপাশের অবস্থা দেখুন, আর বসে বসে কোকাকোলা খান।

আলাপচারিতার শুরম্নতে ড. কামাল হোসেন অতীতের প্রেড়্গাপট বর্ণনা করতে গিয়ে বলেন, দেশের অর্থবহ পরিবর্তনের জন্য সারাদেশে ঐকমত্য হয়েছিল। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য গত দু’বছর ধরে আমরা একত্রে সংগ্রাম করেছি। সন্ত্রাস, কালো টাকা এবং গডফাদারদের দৌরাত্ম্যে নির্বাচনের মাধ্যমে যে সংসদ হয়েছিল তার কোরাম হতো না। সেখানে জনগণের কথা শোনা যেতো না। সংসদের কোন গুরম্নত্বপূর্ণ বিষয়ে নীতিনির্ধারণ হয়নি। ড. কামাল বলেন, আমাদের সামনে সুযোগ এসেছে। এবার অর্থবহ নির্বাচন হবে, যে লড়্গ্যে দেশের মানুষ আন্দোলন করেছে তা পূরণ হবে। তিনি বলেন, সাধারণ মানুষ দলীয় প্রশাসন, গডফাদার থেকে মুক্তি চায়। তিনি দেশের সম্ভাবনার কথা উলেস্নখ করে বলেন, অপার সম্ভাবনার দেশ বাংলাদেশ। এতকিছুর মধ্যেও প্রবৃদ্ধি বাড়ছে। শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। তৈরি পোশাক শিল্পের শ্রমিকরা জীবনবাজি রেখে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। কম পয়সায় এতো ভালো কাজ পৃথিবীর কোথাও হয় না। ২৮ অক্টোবরের পরবর্তী ঘটনা সম্পর্কে ড. কামাল বলেন, আমরা আশা করেছিলাম ওই সময়ের পরে একটি নির্দলীয় সরকার হবে, কারণ নির্দলীয় সরকার না থাকলে আইনের শাসন নিশ্চিত হয় না। কিন্তু দলীয় প্রেসিডেন্ট তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান হওয়ায় আইনের প্রয়োগ নিরপেড়্গ হয়নি। এক সম্প্রদায়ের লোক আইনের ঊর্ধ্বে ছিল। পর্দার আড়াল থেকে দলীয় শাসন চলেছে, সবকিছু করা হয়েছে সংবিধান লংঘন করে। নির্বাসিত অবস্থা থেকে আইন এখন ফিরে এসেছে। এক প্রশ্নের জবাবে ড. কামাল বলেন, বর্তমান তত্ত্বাবধায়ক সরকার ড়্গমতা নেয়ার কিছুদিনের মধ্যে নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন হয়েছে। দুর্নীতি দমন কমিশন পুনর্গঠন হচ্ছে।

এখন নির্ভেজাল শুদ্ধ ভোটার তালিকা তৈরিতে হাত দেয়া উচিত। বর্তমান শাসনের সাংবিধানিক ভিত্তি সম্পর্কে তিনি বলেন, সংবিধান নিজের জায়গায় আছে। সংবিধান লংঘতি হলেও তা উড়ে যায়নি। অনত্মর্বর্তীকালীন ব্যবস্থা সংবিধান স্বীকৃত। তিনি আরো বলেন, আমরা শুধু অশুভ চিনত্মা করতে অভ্যসত্ম ছিলাম। ভোটার তালিকা নিয়ে যা খুশি তাই করা হয়েছে। বিচার বিভাগ পৃথকীকরণ নিয়ে সবাই নাটক করেছে। বর্তমানে যে প্রক্রিয়া শুরম্ন হয়েছে তা সফল হোক। প্রত্যেক এলাকার বাসিন্দাদের সতর্ক হয়ে ভোটার তালিকা তৈরিতে সহায়তা করতে হবে, নির্বাচনের জন্য ভালো প্রার্থী খুঁজে বের করতে হবে। রাজনৈতিক দলগুলো যাতে টাকার বিনিময়ে মনোনয়ন বিক্রি করতে না পারে তা দেখতে হবে।

বর্তমান ব্যবস্থায় সেনাবাহিনীর ভূমিকা সম্পর্কে ড. কামাল হোসেন বলেন, দেশ গঠনে রাষ্ট্রের সবকয়টি প্রতিষ্ঠানের ভূমিকা রাখা উচিত। পুলিশ প্রশাসন, দেশরড়্গা বাহিনী সবাই ভূমিকা রাখতে পারে। শীর্ষ রাজনৈতিক ও ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, আইনের চোখে সকলেই সমান। সে আইনী প্রক্রিয়াই এখন শুরম্ন হয়েছে। দেশে একটি সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরে আসছে। সাম্প্রতিককালের বসিত্ম উচ্ছেদ সম্পর্কে ড. কামাল বলেন, সংবিধানে সবার আশ্রয় পাবার কথা বলা হয়েছে। বসিত্ম উচ্ছেদ প্রধান্য দেয়া উচিত নয়। বসিত্মবাসীদের প্রায় সবাই উৎপাদন প্রক্রিয়ার সঙ্গে জড়িত। তারা জাতীয় অর্থনীতিতে অবদান রাখছে। বরং যারা জাতীয় অর্থনীতির ড়্গতি করছে তাদের বিরম্নদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া উচিত। অপরদিকে বসিত্মবাসীদের জন্য স্বল্পমূল্যের আবাসন ব্যবস্থা চালু করা উচিত। ড. কামাল হোসেন বর্তমান অনত্মর্বর্তীকালীন সরকারের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের প্রশংসা করে বলেন, জনগণের কাছে দেশের মালিকানা ফিরিয়ে দিতে তারা দ্রম্নত কাজ করবেন বলে আশা করি। Source:দৈনিক ইত্তেফাক
Date:2007-02-10

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: