দাদাভাই-ইউনূস ফর্মুলার ‘কোয়ালিশন সরকার’ আসছে?

আর কোনো সংখ্যাগরিষ্ঠের সরকার নয়- এবার রাজনীতির রহস্যপুরুষ সিরাজুল আলম খান দাদাভাই এবং শান্তিতে নোবেল বিজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূসের ফর্মুলার ‘কোয়ালিশন সরকার’ আসছে বাংলাদেশে। এমনটি আলোচনা করতে শুরু করেছে রাজনীতি, কূটনীতি ও অর্থনীতি ক্ষেত্রের তথ্যাভিজ্ঞ মহল। কোয়ালিশন সরকারের ক্ষেত্র প্রস’ত করার কাজ এরমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে এবং চলবে বছরখানেক।
এই সরকারের প্রধান অংশীদারিত্ব গ্রহণের জন্য আন্তর্জাতিক ‘স্বার্থান্বেষী’ মহল একটি তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তি উত্থানের ইন্ধন জোগাচ্ছে। যার আনুষ্ঠানিক সূচনা শুধুমাত্র সময়ের ব্যাপার বলেই ভাবা হচ্ছে। যে কোয়ালিশন সরকার আসছে তার পেছনে অকুণ্ঠ সমর্থন থাকবে সাম্রাজ্যবাদী সরকার, দাতা সংস্থা ও বেসামরিক সংস্থার। এ নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছে বড় বড় রাজনৈতিক দলের নীতিনির্ধারক মহল। কিন’ জরুরি অবস্থা জারি থাকায় রাজনীতিকরা কিংকর্তব্যবিমূঢ় অবস্থায় আছেন।
দাদাভাই-ইউনূস প্রণীত কোয়ালিশন সরকারের ফর্মুলার মধ্যে রয়েছে সরকার হবে কেন্দ্রীয় ফেডারেল ব্যবস্থার। দ্বিকক্ষবিশিষ্ট সংসদীয় ব্যবস্থা থাকবে। প্রধানমন্ত্রী হবে সংখ্যাগরিষ্ঠ এবং উপপ্রধানমন্ত্রী হবে সংখ্যালঘিষ্ঠ দল থেকে। প্রধানমন্ত্রী হবেন নির্বাহী প্রধান। জাতীয় সংসদে দলীয় ভিত্তিতে নির্বাচিত আনুপাতিক হারে সদস্য নিয়ে গঠিত হবে মন্ত্রিপরিষদ। দেশকে ৭ অথবা ৯টি প্রদেশে বিভক্ত করা হবে। উপজেলাভিত্তিক স্বশাসিত স্থানীয় সরকার থাকবে। নির্দলীয় ব্যক্তিকে আলোচনার ভিত্তিতে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন করা হবে। সাংবিধানিক আদালত গঠন করা হবে। সরকারের মেয়াদ ৫ বছরের নিচে নামিয়ে আনা হবে। মেয়াদ শেষে কোয়ালিশন সরকার রাষ্ট্রপতির নেতৃত্বে গঠিত অন্তর্বর্তীকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করবে। এ সরকারের অধীনে পরবর্তী জাতীয় নির্বাচন হবে।
দেশে একটি কোয়ালিশন সরকার গঠনের ক্ষেত্রে সিরাজুল আলম খানকে জড়িয়ে পত্রপত্রিকায় যে লেখালেখি হচ্ছে সে ব্যাপারে তার প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি আমাদের সময়কে বলেন, একাত্তরে বিদেশি শাসকদের তাড়ালেও তারা যে আইন ও বিধিতে দেশ শাসন করতো তা বদলানো হয়নি। যদিও নিজেদের উপযোগী শাসন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠাই ছিল স্বাধীনতার মূলকথা। কিন’ ঔপনিবেশিক শাসন কাঠামোর মধ্যে দেশীয় শাসকদের ক্ষমতায় বসিয়ে জনগণের জন্য এক ধরনের পরাধীনতা বা অভ্যন্তরীণ ঔপনিবেশিকবাদ প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এ থেকে বেরিয়ে আসতে এবং স্বাধীন দেশের উপযোগী ব্যবস্থাদি গড়ে তুলতে নতুন কিছু প্রয়োজন। সেজন্য নতুন প্রস্তাবনা দিয়েছি। Source:দৈনিক আমাদের সময়
Date:2007-02-11

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: