দল গঠনের সমর্থন চেয়ে দেশবাসীর কাছে ড. ইউনূসের খোলা চিঠি

রাজনৈতিক দল গঠনের নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন শান্তিতে নোবেল বিজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূস। আর এজন্য সমর্থন চেয়ে দেশবাসীর কাছে খোলা চিঠি লিখেছেন তিনি। কলকাতা যাওয়ার প্রাক্কালে গতকাল দুপুরে জিয়া আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তিনি সাংবাদিকদের মাধ্যমে দেশবাসীকে এ চিঠি দেন। প্রচলিত ধারার রাজনীতির আমূল পরিবর্তনের জন্যই তিনি রাজনৈতিক দল গঠন করবেন বলে প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। সমাজের নিচুস্তর থেকে শুরু করে যেকোনো পর্যায়ের মানুষের সমর্থন পাওয়ার পরই তিনি দল গঠনের ঘোষণা দেবেন।
ড. মুহাম্মদ ইউনূস সাংবাদিকদের বলেন, সবাই বলে রাজনীতি নিয়ে কথা বলতে হলে রাজনীতির মাধ্যমে বলতে হবে। তাই আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি যাদের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য রাজনীতিতে আসবো, তাদের সমর্থন পেলে অবশ্যই আমি রাজনৈতিক দল গঠন করবো। এ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, জনসমর্থনের কথা চিন্তা না করে কয়েকজন নেতাকে নিয়ে বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেবো না। যেনতেন প্রকারে একটি দল গঠন করে এই জোট সেই জোটের সঙ্গে গিয়ে নির্বাচন করে কোনো লাভ নেই। এভাবে দল গঠন করলে অন্যান্য রাজনৈতিক দলের সঙ্গে তার কোনো পার্থক্য থাকবে না বলেও তিনি মনে করেন।
গত কয়েকদিনে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে তার রাজনৈতিক দল গঠনের প্রক্রিয়ার নানামুখী খবরের প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ড. ইউনূস বলেন, আমি কোনো রাজনৈতিক দলের নেতার সঙ্গেই বৈঠক করিনি। এটা উড়ো খবর। তিনি বলেন, গত ২২ জানুয়ারি নির্বাচন হয়ে যাক এটা আমি চেয়েছিলাম।
আমি ভেবেছিলাম এর মাধ্যমে সংবিধান রক্ষার যে কথা বলা হচ্ছে তা হয়তো সফল হবে।
কিন’ শেষ পর্যন্ত তা না হওয়াতে এখন আমি বলছি রাজনীতিকে কলুষমুক্ত করতে হবে। আর এজন্য অনেকেই চান আমি রাজনীতিতে আসি। আমার নতুন করে পাওয়ার কিছু নেই। তবে দেশের তরুণ সমাজের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে আমি ভেবে দেখলাম, প্রচলিত রাজনীতি দিয়ে তাদের উজ্জল ভবিষ্যতের সম্ভাবনা নেই।
ড. ইউনূস বলেন, আমার দল গঠনের উদ্দেশ্য মানুষের মঙ্গলের জন্য। তাই স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়ার ব্যাপারে দেশবাসীর কাছে আমি সমর্থন চাইছি। কীভাবে অগ্রসর হবো সে বিষয়ে নাগরিকদের ব্যক্তিগত পরামর্শ আমি অগ্রাধিকার দেবো। সেইসঙ্গে নাগরিকরা আমাকে কীভাবে সহায়তা করতে চান তাও তাদের কাছে থেকে চিঠির আকারে জানতে চাই।
রাজনৈতিক দল গঠনের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা কবে দেবেন এ সম্পর্কিত এক প্রশ্নের জবাবে ড. ইউনূস নির্ধারিত কোনো সময় না দিয়ে বলেন, এটাও নির্ভর করবে দেশের নাগরিকদের মতামতের ওপর। নতুন দলের নামও এখনো নির্ধারণ করা হয়নি বলে জানান তিনি।
——————————————–

আপনার উদ্দেশে আমার ব্যক্তিগত চিঠি

মুহাম্মদ ইউনূস
প্রিয় নাগরিক
আমার সালাম নিন।
আপনার কাছে আমি এই চিঠিটি লিখছি এর জবাবে আপনার কাছ থেকে ব্যক্তিগতভাবে একটি চিঠি পাওয়ার আশায়। হয়তো আপনি লক্ষ্য করেছেন কী পরিস্থিতিতে দেশের বহু মানুষ আমাকে রাজনীতিতে আসার অনুরোধ করে আসছেন এবং কেন আমাকে বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করতে হয়েছে। আমাদের রাজনৈতিক সংস্কৃতি দেশকে কী পর্যায়ে নিয়ে এসেছে এবং দেশের ভবিষ্যৎ সম্ভাবনাগুলোকে কীভাবে ধূলিসাৎ করতে উদ্যোগী হয়েছে তা আপনার মতো আমিও অবলোকন করেছি। বর্তমান তত্ত্বাবধায়ক সরকার যেভাবে প্রয়োজনীয় সংস্কার করে এর পরিবর্তনের লক্ষ্যে একটি গ্রহণযোগ্য আবহ সৃষ্টির চেষ্টা করছে তা দেশের সকল মানুষের সঙ্গে আমাকেও আশাবাদী করে তুলেছে। এ অবস্থায় আমি অন্তর দিয়ে অনুভব করছি যে দেশের মানুষ আমার কাছ থেকে যা আশা করছে তার প্রতি বিনীত সম্মান দেখিয়ে জাতিকে তার যথাযোগ্য মর্যাদায় নিয়ে যাওয়ার কর্মযজ্ঞে আমার যথাসাধ্য অংশগ্রহণ করা উচিত। এটি এখন সবার কাছে স্পষ্ট যে প্রচলিত রাজনৈতিক সংস্কৃতিক বজায় রেখে তা কিছুতেই সম্ভব নয়, একমাত্র তার আমূল পরিবর্তনের মাধ্যমেই সম্ভব। আমার কাজ ও অভিজ্ঞতার মাধ্যমে এও মর্মে মর্মে অনুভব করি যে রাজনৈতিক সদিচ্ছা, যোগ্য নেতৃত্ব ও সুশাসন প্রতিষ্ঠিত করতে পারলে আমাদের সাধারণ মানুষের সহজাত উদ্যম আর সৃষ্টিশীলতা অসাধ্য সাধন করতে পারে। মানুষের ইচ্ছায় সাড়া দিয়ে আমাকে যদি রাজনৈতিক দল গঠন করতে হয় তা হবে এই উদ্দেশ্যেই নিবেদিত।
আমি বাংলাদেশের দরিদ্রতম মানুষ থেকে শুরু করে অতি ক্ষমতাবান মানুষ পর্যন্ত সকল বয়সের সকল মানুষের যে অকৃত্রিম ভালোবাসা এবং শ্রদ্ধা পেয়েছি, এই সৌভাগ্য বাংলাদেশের কোনো একক ব্যক্তির জীবনে আবার কখন আসবে তা আমার জানা নেই। আল্লাহর অসীম রহমতে আমি এক অতিশয় ভাগ্যবান মানুষ। আমার পাওয়ার আর কিছু অবশিষ্ট নাই। আমি জানি রাজনীতিতে জড়িত হওয়া মানে বিতর্কিত হওয়া। আপনারা যদি মনে করেন আমার রাজনীতিতে আসাটা দেশে নতুন রাজনৈতিক পরিমণ্ডল রচনায় সহায়ক হবে তবে আমি তার জন্য এ-ঝুঁকি নিতে প্রস’ত আছি।
অতীতের হতাশা থেকে মুক্ত হয়ে পূর্ণ উদ্যমে আমাদের সকলের স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়ে তোলার কর্মযজ্ঞ সৃষ্টির উপযুক্ত রাজনৈতিক কাঠামো গড়ে তোলার এখুনি উপযুক্ত সময়। একাজে যদি আমাকে অগ্রসর হতে হয় তাহলে আপনার এবং আপনার মতো আরো সকলের সক্রিয় অংশগ্রহণ ও সহায়তার বিশেষ প্রয়োজন। একাজে আমার কীভাবে অগ্রসর হওয়া উচিত সে সম্পর্কে আপনার পরামর্শ প্রয়োজন। একাজে আপনার অংশগ্রহণ ও সহায়তা আপনি কীভাবে দিতে ইচ্ছুক তাও আমি জানতে চাই। একটি চিঠির আকারে আপনার কাছ থেকে এসব জানতে পারলে নতুন বাংলাদেশ গড়ার উদ্দেশ্যে নতুন রাজনীতির জন্য সকলের আকাঙক্ষা বাস্তবায়নে আপনার আমার প্রয়াস শক্তি পাবে।
নতুন রাজনৈতিক দল গঠন করার ব্যাপারে আপনার পরামর্শ যেকোনো বিষয়েই দিতে পারেন নিজের মতো করে। উদাহরণস্বরূপ কতোগুলো বিষয় উল্লেখ করতে পারি: ক) সকল পাড়ার, সকল গ্রামের সকল মানুষের সঙ্গে সংযুক্ত থেকে কীভাবে এ দল তাদের আশা-আকাঙক্ষার বাস্তবায়নে কাজ করতে পারে; খ) কীভাবে সাধারণ মানুষের জীবন সংগ্রামে এবং তাদের সংকটে-সমস্যায় এ দল সহায়ক হতে পারে; গ) সকল বয়সের সকল পেশার নারী-পুরুষের স্বতঃস্ফূর্ত আ্তনিয়োগের ভিত্তিতে দলের সংগঠনকে কীভাবে গড়ে তোলা সম্ভব; ঘ) আগ্রহী ও উৎসাহী সকল পর্যায়ের সৎ ও যোগ্য মানুষদেরকে কীভাবে দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত ও এতে সক্রিয় করা যাবে; ঙ) তাদের মধ্য থেকে জন-সমর্থিত সৎ ও যোগ্য প্রার্থীদেরকে বিভিন্ন স্থানীয় ও জাতীয় নির্বাচনে কিভাবে মনোনীত করা যাবে; চ) দলের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সকল মানুষের ব্যক্তিগত স্বচ্ছতা ও সততা এবং দলের নিজের স্বচ্ছতা ও সততা কিভাবে নিশ্চিত করা যাবে; ছ) দলে আভ্যন্তরীণ গণতন্ত্র কিভাবে সুপ্রতিষ্ঠিত করা যাবে; জ) তৃণমূল থেকে সব সময় সরাসরি মতামত পাওয়া কীভাবে নিশ্চিত করা যায়; ঝ) দেশের রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানসমূহে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কীভাবে রাজনৈতিক দলের কর্মীতে রূপান্তরিত হওয়া থেকে রক্ষা করা যায়- এরকম আরো বহু প্রশ্নের আপনার চিন্তা ও পরামর্শ অত্যন্ত জরুরি।
একই সঙ্গে আপনি (এবং আপনার বন্ধুরা) এ দলে কী কী ভূমিকা পালন করতে পারেন, কীভাবে সক্রিয় অবদান রাখতে পারেন বা সমর্থন জোগাতে পারেন তাও জানা দরকার। যেমন আপনার ভূমিকা হতে পারে: ক) পাড়া বা গ্রামপর্যায়ের সংগঠনের সদস্য হিসেবে; খ) দলের জনকল্যাণমূলক উদ্যোগগুলোর অগ্রণী হিসেবে; গ) স্থানীয় সংগঠক হিসেবে; ঘ) গোষ্ঠীগত সংগঠনের সংগঠক হিসেবে; ঙ) ব্যাপকভবে মানুষের কাছে দলের আবেদন পৌঁছানোর কর্মী হিসেবে; চ) পরামর্শদাতা-গবেষক-চিন্তাবিদ ভূমিকায়; ছ) আপনার বিশেষ সক্ষমতা বা বিশেষজ্ঞের জ্ঞান দলের কাজে নিয়োজিত করার মাধ্যমে; জ) উদ্যমশীল সমর্থকের ভূমিকায় দলের গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধির জন্য সৃজনশীল নেতৃত্বদান; ঝ) সাংগঠনিক ক্ষমতা প্রকাশের মাধ্যমে, বা এরকম অন্যান্য বিষয়ে।
আপনি রাজনৈতিক নেতা হোন, কর্মী হোন, কোনো সমিতি বা সংগঠনের নেতা হোন বা কর্মী হোন, শিল্পপতি হোন ব্যবসায়ী হোন, অধ্যাপক হোন, শিক্ষক হোন, দোকানদার হোন, কৃষক হোন, শ্রমিক হোন, শিল্পী-সাহিত্যিক-চিন্তাবিদ হোন, পেশাজীবী হোন, সাংবাদিক হোন, চাকরিজীবী হোন, গৃহিণী হোন, কিশোর-কিশোরী হোন, তরুণ-তরুণী হোন, বিদেশে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশী হোন, আমি আপনার মতামত জানতে চাই ও পরামর্শ পেতে চাই।
আপনি নিজে আমার চিঠির সংক্ষিপ্ত কিংবা বিস্তারিত জবাব দিন। আপনার বন্ধুবান্ধব, পরিবারের সকল সদস্য, পাড়াপড়শি, আপনার সহপাঠী, সহকর্মীদের নিয়ে সবাই মিলে এক চিঠিতে জবাব দিতে পারেন। ইমেইলে জবাব দিয়ে তার কপি আপনার পরিচিত সকলকে দিতে পারেন। এসএমএস যোগে সংক্ষিপ্ত জবাব দিতে পারেন। আপনার পরিচিত সবাইকে এসএমএস করতে উৎসাহিত করতে পারেন। আপনার আ্তীয়স্বজন, বন্ধুবান্ধব যারা বিদেশে আছেন তাদেরকে আমার চিঠির কপি পাঠিয়ে তাদেরকে জবাব দিতে উদ্বুদ্ধ করতে পারেন। নতুন রাজনীতি সৃষ্টির প্রচণ্ড একটা উদ্যোগ সৃষ্টি করতে না পারলে পুরনো রাজনীতি থেকে পরিষ্কারভাবে বেরিয়ে আসা সম্ভব হবে না। হালকা সমর্থনে আমাদের লক্ষ্যে পৌঁছানো যাবে না।
আশা করবো আমার এই চিঠিটি এবং এর উত্তরে আপনি যে চিঠিটি আমাকে লিখবেন তা হবে আমাদের আন্তরিক যোগাযোগের প্রারম্ভ মাত্র। এরপর থেকে আমাকে যোগাযোগ একই লক্ষ্যে আরো সক্রিয়ভাবে এগিয়ে যেতে পারবে।
চিঠি পৌঁছানোর সুবিধার্থে আপনি আমার নিচের ঠিকানা ব্যবহার করতে পারেন বা অন্য যে কোনোভাবে আমার কাছে তা পৌঁছাতে পারেন।
যোগাযোগের ঠিকানা: ড. মুহাম্মদ ইউনূস
হাল মারস্‌, ৬/ডি, ৬৬ আউটার সার্কুলার রোড
মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। ফ্যাক্স: ৯৩৩৪৬৫৬
ই-মেইল: prof.yunus@gmail.com
dryunus2006@yahoo.com
চিঠি সম্পর্কে যোগাযোগ করতে ফোন
০১৭১-৩০৮২২৭৭, ০১৭১-৭৭৬০৮৭০
আপনার চিঠির অপেক্ষায় রইলাম।
ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছান্তে,
মুহাম্মদ ইউনূস
১১ ফেব্রুয়ারি, ২০০৭ Source:দৈনিক আমাদের সময়
Date:2007-02-12

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: