পদত্যাগ করলেন দুদকের কমিশনার মনিরউদ্দিন আহমেদ

অবশেষে পদত্যাগ করলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কমিশনার মনিরউদ্দিন আহমেদ৷ সপ্তাহখানেক আগে চেয়ারম্যান বিচারপতি সুলতান হোসেন খান ও আর এক কমিশনার প্রফেসর মনিরুজ্জামান মিঞা পদত্যাগ করলেও নানা টালবাহানা করে পদত্যাগের বিষয়টি দীর্ঘায়িত করছিলেন তিনি৷  শেষ পর্যন্ত নানামুখী চাপের কারণে মনিরউদ্দিন আহমেদ গতকাল রবিবার বেলা সাড়ে ১১টায় পদত্যাগের চিঠি পাঠালেন৷ তবে কমিশন আইন অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদের কাছে এক মাসের লিখিত নোটিশ পাঠিয়ে তিনি এ পদত্যাগের আবেদন করেছেন বলে জানা গেছে৷
কমিশনার মনিরউদ্দিন গত বৃহস্পতিবারের মতো গতকালও কমিশন কার্যালয়ে আসেননি৷ তার পদত্যাগপত্রটি বেলা সাড়ে ১১টায় পরীবাগে তার বাসভবন থেকে দূত মারফত তিনি প্রেসিডেন্Uরে কার্যালয় বঙ্গভবনে পাঠান৷ এ সময় প্রেসিডেন্ট তার কার্যালয়ে উপস্থিত ছিলেন না বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে৷ তবে বেলা ১টায় তার পদত্যাগপত্রটি গৃহীত হয়৷
কমিশনার মনিরউদ্দিনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমি আমার পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দিয়েছি৷ তিনি আরো বলেন, প্রেসিডেন্টকে পাঠানো এ
চিঠিতে কমিশন আইনের ১০(১) ধারার উল্লেখ করা হয়েছে৷ উল্লেখ্য, দুর্নীতি দমন কমিশন আইনের এ ধারা অনুযায়ী কোনো কমিশনার প্রেসিডেন্ট বরাবর এক মাসের লিখিত নোটিশ পাঠিয়ে স্বীয় পদত্যাগ করতে পারবেন বলে উল্লেখ রয়েছে৷ একাধিক সূত্র থেকে জানা গেছে, প্রধান উপদেষ্টা ড. ফখরুদ্দীন আহমদের কাছে তার পাঠানো চিঠির জবাবের অপেক্ষাতেই তিনি আরো এক মাসের সময় চান৷ এ কারণেই অন্য দুই কমিশনার প্রেসিডেন্Uরে সঙ্গে দেখা করে তার অনুরোধে কমিশন পুনর্গঠনের স্বার্থে পদত্যাগ করলেও তিনি এ বিষয়টি দীর্ঘায়িত করতে চাচ্ছেন৷ এর আগেও তিনি সাংবাদিকদের বলেন, কমিশনের নানা বিষয় নিয়ে প্রধান উপদেষ্টা বরাবর একটি চিঠি পাঠিয়েছেন তিনি৷ শিগগিরই এ বিষয়ে উপদেষ্টা প্রধানের সঙ্গে তার সাক্ষাতের সম্ভাবনাও রয়েছে৷ এছাড়া তিনি আগেই জানিয়েছিলেন, পদত্যাগের চিঠি তিনি তার আইনজীবীর সঙ্গে পরামর্শ করেই পাঠাবেন৷
কমিশনের সচিব মোঃ দেলোয়ার হোসেন খান বলেন, এক মাসের নোটিশে কমিশনার মনিরউদ্দিন যে পদত্যাগের চিঠি পাঠিয়েছেন তা আইনসম্মত উপায়েই পাঠিয়েছেন৷ তবে তিনি জানান, কমিশনার গত দুই কার্যদিবস অফিস করেননি৷ এ বিষয়ে তিনি কাউকে কিছু জানাননি৷ কোনো ধরনের ছুটিও তিনি নেননি৷ তবে গত বৃহস্পতিবার দুর্নীতি দমন বুরোর প্রত্যাহারকৃত অফিসার ও স্টাফদের বিক্ষোভের কারণে তিনি সম্ভবত অফিস করেননি বলে অনুমান করেন তিনি৷ পদত্যাগের পর তার ব্যবহারের জন্য কমিশনের গাড়িটি গতকাল পর্যন্ত তিনি জমা দেননি৷ তবে তিনি জানান, শিগগিরই গাড়িটি জমা দেবেন৷ এছাড়া কমিশন পুনর্গঠনের অন্যান্য কাজও এগিয়ে চলছে বলে শিগগিরই নতুন কমিশনার কমিশনে ন্যস্ত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি৷ তিনি আরো বলেন, কমিশন আইন অনুযায়ী কমিশনারসহ অন্যদের নিয়োগের জন্য ক্যাবিনেট বিভাগ এরই মধ্যে বাছাই কমিটি কার্যক্রম শুরু করেছে৷ জনবল ও দক্ষ কর্মীর অভাব কমিশনের বড় সমস্যা বলে এবার জনবল কিছু বাড়ানো হতে পারে৷ তিনি বলেন, জটিলতা এড়াতে কমিশনের জনবল মন্ত্রিপরিষদে আবারো ন্যস্ত করে নতুন করে বাছাই করা হতে পারে৷
এদিকে বুরোর প্রত্যাহারকৃতরা তার পদত্যাগের ঘটনায় সন্তোষ প্রকাশ করেন৷ একজন অফিসার বলেন, কমিশনার মনিরউদ্দিনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা থাকা সত্ত্বেও তিনি কমিশনার হিসেবে নিয়োগ পান৷ দলীয় প্রভাবের কারণেই তাকে নিয়োগ দেয়া হয় বলে একাধিক অফিসার মন্তব্য করেন৷
সূত্রঃ যাযাদি, 12-02-07

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: