দুর্নীতির দায়ে শাস্তি হলে নির্বাচনে অযোগ্য শাসনতান্ত্রিকভাবেই

‘তত্ত্বাবধায়ক সরকারের এক মাসপূর্তিতে জনগণের প্রত্যাশা ও প্রাপ্তির বিচারক এদেশের জনগণ। আমরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছি। একটি সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা করে দেশকে শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থায় ফিরিয়ে দেওয়া আমাদের দায়িত্ব। বড়ো বড়ো দুর্নীতির সঙ্গে যারা জড়িত তাদের বিচার করা জনগণের দাবি। দুর্নীতি ও সন্ত্রাস দমনের জন্য আমরা সবার সহযোগিতা চাচ্ছি। যদি নির্বাচনকে কালোটাকামুক্ত ও দুর্নীতিমুক্ত করতে হয় তা হলে অবশ্যই দুর্নীতিবাজদের বিচার করতে হবে। বিচার যাতে দ্র”ত হয় এজন্য জজ বিচারকদেরও দায়িত্ব রয়েছে। বিচারকদেরও কঠোর হতে হবে। দুর্নীতিবাজ ও সন্ত্রাসীদের ধরা হচ্ছে। তাদেরকে বিচারের মুখোমুখি করা হবে। দুর্নীতির বিচারে যাদের শাস্তি হবে তারা শাসনতান্ত্রিকভাবেই নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারবে না। এর জন্য নতুন আইন করার প্রয়োজন নেই’। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন গতকাল সচিবালয়ে তার মন্ত্রণালয়ে এক অনানুষ্ঠানিক প্রেসব্রিফিঙে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।
বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব তারেক রহমানের বির”দ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠলেও তাকে কেন গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না – একজন সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের জবাবে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন বলেন, আমি তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আইনকানুন ও বিচার বিভাগ সংক্রান্ত বিষয়ের উপদেষ্টা। কাকে গ্রেপ্তার করা হবে আর কাকে করা হবে না এটা দেখা আমার কাজ নয়। তবে এ নাম আমি শুনতে চাই না। এ সময় একজন সাংবাদিক আরো জানতে চান, উপদেষ্টা এই নামটিকে ভয় পান কিনা? জবাবে তিনি বলেন, আমি ভয় পাবো কেন?
তত্ত্বাবধায়ক সরকার জর”রি অবস্থা জারি করে প্রকাশ্যে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করার পর নোবেল বিজয়ী ড. মুহম্মদ ইউনূস রাজনৈতিক দল করার ঘোষণা দিয়ে প্রকাশ্যে যে খোলা চিঠি দিয়েছেন তার বৈধতা কতোটুকু এমন এক প্রশ্নের জবাবে উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন বলেন, সরকার সব রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করেনি। রাজনীতির নামে যারা দুর্বৃত্তায়ন করছে তাদের কর্মকাণ্ডের ওপরই বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে।
নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগ পৃথক করার সর্বশেষ ধাপ ফৌজদারি কার্যবিধি আইনে সংশোধনী এনে রাষ্ট্রপতির অধ্যাদেশ জারির বিষয়টিকে তিনি তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সবচেয়ে সাহসী পদক্ষেপ হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, আমরা বিরাট সংকটের মধ্যে থাকা অবস্থায় বিচার বিভাগ পৃথক করার সাহসী পদক্ষেপ নিয়েছি। এখন থেকে জজ বিচারকরা স্বাধীন। কেউ তাদের কাজে হস্তক্ষেপ করবে না। এখন বিচারকদের তাদের যোগ্যতার প্রমাণ দেখাতে হবে।
বর্তমান তত্ত্বাবধায়ক সরকারের এক মাসপূর্তিতে সরকারের সফলতা কী জানতে চাইলে উপদেষ্টা বলেন, জনগণ আমাদের কাজের মূল্যায়ন করবে। আমরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছি। আমাদের লক্ষ্য হলো দেশে একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করে দেশকে শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থায় ফিরিয়ে দেওয়া।
কতদিনের মধ্যে এই নির্বাচন হতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সম্ভব হলে তো ৬ মাসের মধ্যেই নির্বাচন করতে চাই। কিন’ নির্বাচন করা শুধু আমাদের ওপরই নির্ভরশীল নয়। নির্বাচন কমিশনকে বলতে হবে কতোদিনের মধ্যে নির্বাচন করা যাবে। তিনি বলেন, আমরা চাচ্ছি দুর্নীতি ও কালোটাকামুক্ত একটি সুষ্ঠু নির্বাচন। এটা শুধু আমাদের চাওয়াই নয় দেশের সব নাগরিকই তা চান। আর এ ধরনের একটি সুষ্ঠু নির্বাচন করতে হলে সন্ত্রাসী দুর্নীতিবাজদের বির”দ্ধে ব্যবস্থা নিতেই হবে। বারবার তো দেশে জর”রি অবস্থা ঘোষণা করা সম্ভব নয়। তিনি বলেন, স্বাভাবিক অবস্থা ও জর”রি অবস্থার মধ্যে আইনের প্রয়োগের একটি তফাত থাকবেই।
কতোদিন জর”রি অবস্থা থাকতে পারে এ প্রশ্নের জবাবে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন বলেন, যতোদিন প্রয়োজন ততোদিনই থাকবে। তিনি বলেন, দেশের যে সমস্যার কারণে জর”রি অবস্থা ঘোষণা করতে হয়েছে এ সমস্যা দেশের সাধারণ মানুষ সৃষ্টি করেনি। রাজনীতিবিদরা সৃষ্টি করেছেন। এখন রাজনীতিবিদদের তাদের অতীত ভুলভ্রান্তি সংশোধন করতে হবে। তাদের যেসব কর্মকাণ্ডের জন্য দেশে জর”রি অবস্থা জারি করা হয়েছে তার একটি বিচার-বিশ্লেষণ রাজনীতিবিদদের করতেই হবে। রাজনীতিবিদদের কারণেই তো নির্ধারিত সময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠান করা সম্ভব হয়নি। তিনি বলেন, বিদেশী কূটনীতিকরা যারা দেখা করছেন তারা আমাদের কাজকর্মকে সমর্থন জানাচ্ছেন, কিন’ তারা এও বলছেন আমরা যেন সুষ্ঠু একটি নির্বাচন অনুষ্ঠানের ব্যাপারে পদক্ষেপ নিই। আমরাও সেদিকে এগুচ্ছি। Source:ভোরের কাগজ
Date:2007-02-13

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: