মেজর মান্নানের হুঁশিয়ারি ‘ষড়যন্ত্রকারীরা বহিষ্কার হবে’ ।। বি চৌধুরীর সঙ্গে আমার ৩০ বছরের সম্পর্ক ভবিষ্যতেও অটুট থাকবে ইনশাল্লাহ: কর্নেল অলি

এলডিপি সভাপতি অধ্যাপক বদরুদ্দোজা চৌধুরী ও নির্বাহী সভাপতি অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল অলি আহমদের মধ্যে সৃষ্ট টানাপড়েনের অবসানের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। কিছু ইস্যুতে দুজনের বিরোধ সম্পর্কে গত কদিন ধরে সংবাদপত্রে লেখালেখি হলেও উভয়ই কোনো কথা বলেননি, প্রতিবাদও জানাননি। তবে এ ব্যাপারে গতকালই প্রথম মুখ খুললেন কর্নেল অলি আহমদ ও দলের মহাসচিব মেজর (অব.) আব্দুল মান্নান।
গতকাল সন্ধ্যায় রাজধানীর মগবাজারে এলডিপির নতুন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আমাদের সময়ের সঙ্গে আলাপকালে কর্নেল অলি বলেন, অধ্যাপক বি চৌধুরীর সঙ্গে আমার সম্পর্ক খুবই ঘনিষ্ঠ। এ সম্পর্ক প্রায় ৩০ বছরের। ঈর্ষান্বিত হয়ে কেউ কেউ হয়তো চায় না, আমাদের মধ্যে এ সম্পর্ক অটুট থাকুক। তবে আমাদের দুজনের এ চমৎকার সম্পর্ক ভবিষ্যতেও অটুট থাকবে ইনশাল্লাহ।
সংবাদপত্রে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী অধ্যাপক বি চৌধুরীর সঙ্গে মনসত্মাত্ত্বিক দূরত্ব সৃষ্টির কারণসমূহের ব্যাপারে তিনি বলেন, এগুলো কোনো ইসু নয়। একেকজন একেকভাবে বিষয়গুলোকে দেখেছে বা ব্যাখ্যা করেছে। অনেকে মনের মাধুরী মিশিয়ে কয়েকগুণ বেশি প্রচারের চেষ্টা করেছে। তবে চলার পথে এ ধরনের বাধা আসবেই। ধৈর্য ও অভিজ্ঞতা দিয়ে এগুলোকে আমরা মোকাবিলা করবো।
অধ্যাপক বি চৌধুরীর সঙ্গে সম্প্রতি আপনার দেখা হয়েছে কিনা, না হলে কবে হবে- জানতে চাইলে কর্নেল অলি বলেন, তার সঙ্গে আমার যোগাযোগ নেই, এ কথা ঠিক নয়। দেশে জরুরি অবস্থার পর থেকে এ পর্যনত্ম আমরা একত্রে বসে ৩ বার দলের প্রেসিডিয়াম বৈঠক করেছি। সভা শেষে দুজনে একসঙ্গে খানাপিনাও করেছি। অন্য এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, একক সিদ্ধানেত্ম নয়, নেতাকর্মীদের যাতায়াত সুবিধার জন্য সবার সঙ্গে আলোচনা করেই মগবাজারে কেন্দ্রীয় কার্যালয় করেছি।
এদিকে প্রায় এক মাসের অসুস্থতা শেষে গতকালই প্রথম মগবাজারে দলের নতুন কার্যালয়ে এসেছিলেন মেজর (অব.) আব্দুল মান্নান। এসময় উপস্থিত দুই শতাধিক নেতাকর্মী ফুল দিয়ে তাকে স্বাগত জানান। তিনি বলেন, এলডিপির দুচারজন লোক দলকে জনসমক্ষে বিতর্কিত করার ষড়যন্ত্র করছে। আমি এর তীব্র নিন্দা জানাই। ষড়যন্ত্রকারীদের শিগগিরই শোকজ নোটিশ দেবো। প্রয়োজনে তাদেরকে দল থেকে বহিষ্কার করবো।
তিনি বলেন, যারা ষড়যন্ত্র করছে তারা দলের বন্ধু হতে পারে না। কারণ এ ষড়যন্ত্র এলডিপির বিরুদ্ধে। এটা প্রতিরোধ ও মোকাবিলা করতে হবে। মেজর মান্নান বলেন, পত্রপত্রিকায় এ ধরনের সংবাদ দেখে বি চৌধুরী ও অলি আহমদ মর্মাহত। দুজনই এ ষড়যন্ত্র প্রতিরোধের চেষ্টা করছেন। বিষয়টি নিয়ে গতরাতেই তিনি বি চৌধুরী ও কর্নেল অলির সঙ্গে কথা বলেছেন।
অন্যদিকে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য মাহী বি চৌধুরী বলেছেন, অধ্যাপক বি চৌধুরী ও অলি আহমদের মধ্যে ব্যক্তিগত সম্পর্ক মোটেই খারাপ নয়। যুগ্ম-মহাসচিব শাহাদাৎ হোসেন সেলিমও আমাদের সময়কে বলেন, একটি স্বার্থান্বেষী মহল উদ্দেশ্যমূলকভাবে দলে বিতর্ক সৃষ্টির অপচেষ্টা চালাচ্ছে। তবে বি চৌধুরী-অলি আহমদের চমৎকার সম্পর্ক কখনোই নষ্ট হবে না। Source:দৈনিক আমাদের সময়
Date:2007-02-19

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: