সাবেক মন্ত্রী-এমপিসহ ৫৩ জনের ব্যাংক একাউন্ট জব্দ

এবার নির্বাচনী সরঞ্জাম কেনায় কোটি কোটি টাকা নয়ছয়ের অভিযোগ উঠেছে। নির্বাচন কমিশনের কয়েকজন কর্মকর্তা এ অনিয়মের সঙ্গে জড়িত। এসব কর্মকর্তা মিথ্যা পরিদর্শন রিপোর্টের মাধ্যমে কিছু নামসর্বস্ব অযোগ্য প্রতিষ্ঠানকে নির্বাচনী সরঞ্জাম সরবরাহের কাজ পাইয়ে দিতে সাহায্য করেছেন। নবগঠিত নির্বাচন কমিশন বিভিন্ন নির্বাচনী মালামাল পরিদর্শন করার পর এই অনিয়মের বিষয়টি ধরা পড়ে। দেখা গেছে, মালামাল সরবরাহের দু’মাসের মাথায় অনেক জিনিস ব্যবহার অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এগুলোর মধ্যে ভোটকেন্দ্রে ব্যবহূত গুরুত্বপূর্ণ স্ট্যাম্প প্যাড, কাঠের বাক্স, অমোচনীয় কালিসহ নানা দ্রব্য রয়েছে। এ প্রসঙ্গে নির্বাচন কমিশনার ছহুল হোসেইন যুগান-রকে বলেন, নির্বাচন সামগ্রীর ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে কমিশন থেকে ইসি সচিবকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তিনিই এ ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা নেবেন। ইসি সচিব হুমায়ুন কবীর এ প্রসঙ্গে যুগান-রকে বলেন, নির্বাচনী সামগ্রী সরবরাহের কাজে কোন অনিয়ম আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হবে। কোন অযোগ্য প্রতিষ্ঠান কাজ পেলে তাও দেখবে কমিশন। কারও বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ প্রমাণিত হলে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, ২২ জানুয়ারির বাতিলকৃত নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে তড়িঘড়ি করে দরপত্র আহ্বান করে বিভিন্ন নির্বাচনী সামগ্রী কেনা হয়। এ সময় ইসির একটি শক্তিশালী চক্র নানা অনিয়মের মাধ্যমে পছন্দের প্রতিষ্ঠানকে কাজ পাইয়ে দেয়। এভাবে গত জোট সরকারের সমর্থক একটি চক্র বিপুল পরিমাণ টাকা পকেটস্থ করে। ২২ জানুয়ারির নির্বাচন বাতিলের আগে তড়িঘড়ি করে কেনা এ মালামালের মধ্যে রয়েছে ২ লাখ ৭৭ হাজার ২০০টি স্ট্যাম্প প্যাড, একই পরিমাণ অফিসিয়াল সিল, প্লাস্টিক পিরিচ ও পলিথিন শিশি। এছাড়া ৩ লাখ ৬৯ হাজার ৪০০টি মার্কিং সিল, ৪৬ হাজার ২০০টি ব্রাশ সিল, ১ হাজার ৬৪ কেজি লাল গালা, ২ হাজার ১০০ লিটার মিথানল এবং ৩ হাজার ৩৮৫টি করে দুই ধরনের কাঠের বাক্স।
সংশ্লিষ্টরা জানান, বাতিল করা ২২ জানুয়ারির নির্বাচনে ব্যবহারের লক্ষ্যে প্রায় ৪০ লাখ টাকা মূল্যের স্ট্যাম্প প্যাড তৈরির কাজ দেয়া হয় অনামিকা ট্রেডার্স নামের একটি প্রতিষ্ঠানকে। এ প্রতিষ্ঠান স্ট্যাম্প প্যাড তৈরির কাজে সর্বনিম্ন দরদাতা। এর পরিপ্রেক্ষিতে ইসির উপসচিব ফরিদ আহমেদ ভূঁইয়া এবং সিনিয়র সহকারী সচিব ইসরাইল হোসেন এ প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করে এসে এক রিপোর্টে বলেন, অনামিকা ট্রেডার্স সর্বনিম্ন দরদাতা। কিন’ বিপুল পরিমাণ প্যাড বানানোর মতো যোগ্যতা ও দক্ষতা এ প্রতিষ্ঠানের নেই। তাদের নিজস্ব কারখানা, গুদাম, লোকবল কিছুই নেই। ভেতরের জায়গাও অপরিসর। এছাড়াও প্রতিষ্ঠানের এ ধরনের কাজ করার পূর্বঅভিজ্ঞতাও নেই। ওই রিপোর্টের পর প্রাথমিক পর্যায়ে প্রতিষ্ঠানটি বাদ পড়ে। কিন’ কয়েকদিন পর রহস্যজনকভাবে ইসি সচিবালয় থেকে এক উপসচিবকে প্রধান করে দু’সদস্যের আরেকটি পরিদর্শক টিম ওই প্রতিষ্ঠানে পাঠানো হয়। তারা পরিদর্শন করে এসে জানান, অনামিকা ট্রেডার্স এ কাজ করার বিষয়ে শতভাগ উপযুক্ত। এরপরই ইসি সচিবালয় এ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করতে অতি আগ্রহী হয়ে ওঠে। কিন’ অনামিকা ট্রেডার্সের কাগজপত্রে অসামঞ্জস্য থাকায় তখন চুক্তি সম্পাদন সম্ভব হয়নি। পরে এ প্রতিষ্ঠান আলীম মেটাল নামক অপর প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়ে চুক্তিনামা দাখিল করে ৩৯ লাখ ৫০ হাজার ১০০ টাকা মূল্যের ২ লাখ ৭৭ হাজার ২০০ স্ট্যাম্প প্যাড সরবরাহের কার্যাদেশ নিয়ে নেয়।
একইভাবে এসআর এন্টারপ্রাইজকে কয়েক হাজার কাঠের বাক্স সরবরাহের কার্যাদেশ দেয়া হয়। কিন’ নিম্নমানের কাঠ ব্যবহার করায় ইতিমধ্যে এসব বাক্স বাঁকা হয়ে গেছে। এ প্রতিষ্ঠান অল্প সরঞ্জাম সরবরাহ করেই আর্নেস্টমানি উঠিয়ে নিয়ে গেছে বলে জানা গেছে।
প্রতিবার জার্মানি থেকে নির্বাচনে ব্যবহূত অমোচনীয় কালির উপাদান সংগ্রহ করা হয়। কিন’ ইসির একটি চক্র এবার ভারত থেকে অমোচনীয় কালির উপাদান আমদানি করে বিপুল পরিমাণ টাকা আত্মসাৎ করেছে বলে জানা গেছে। অযোগ্য প্রতিষ্ঠানকে কাজ দেয়ায় ইসির কোটি কোটি টাকার নির্বাচনী মালামাল নষ্ট হওয়ার পথে। মালামাল ক্রয়ে নানা অনিয়মের বিষয় খতিয়ে দেখছে ইসি। এর আগে অযোগ্য ৩৮টি প্রতিষ্ঠানকে ভোটার তালিকা মুদ্রণের কাজ দিয়ে ইসির এ চক্র ৩ কোটি টাকা ভাগ বাটোয়ারা করে নিয়েছে বলে খোদ ইসির এক যুগ্ম সচিব সিইসির কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। বর্তমানে এ অভিযোগেরও তদন- চলছে। Source:দৈনিক যুগান্তর
Date:2007-03-02

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: