১৯ নেতার বিরুদ্ধে মামলা করার কার্যক্রম চূড়ান্ত

গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে বিএনপি ও আওয়ামী লীগের সাবেক মন্ত্রী-এমপিসহ ১৪ জন শীর্ষ নেতা এবং অপর ৫ জনসহ মোট ১৯ জনের বিরম্নদ্ধে নিয়মিত মামলা করার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়েছে। আগামী ২/১ দিনের মধ্যে মামলা দায়ের করা হবে বলে জানা গেছে। গ্রেফতারকৃত বাকি ১৫ জনের বিরুদ্ধে পর্যায়ক্রমে মামলা দায়ের করা হবে। এই সকল মামলার বাদি হবে টাস্কফোর্স। যৌথ বাহিনীর একজন কর্মকর্তার নেতৃত্বে ২০টি টাস্কফোর্স গঠিত হয়েছে। এই টাস্কফোর্স দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ঘোষিত তালিকাভুক্ত ৫০ জনের বিরুনদ্ধে তদন্ত করছে।

যারা গ্রেফতার হয়েছে তাদের বিরম্নদ্ধে টাস্কফোর্সের তদনত্ম প্রায় শেষ পর্যায়ে। গ্রেফতারের পর থানায় সোপর্দ করার সময় তাদের বিরম্নদ্ধে বিশেষ ড়্গমতা আইনে মামলা হয়েছিল এবং কারো কারো আগের মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। ঐ সময় তাদের বিরম্নদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার তেমন প্রমাণ আইন-শৃঙ্খলা রড়্গাকারী বাহিনীর হাতে ছিল না। গ্রেফতারের পর তাদের বিরম্নদ্ধে তদনত্ম করে অভিযোগের প্রমাণ পেয়ে নিয়মিত মামলা করার চূড়ানত্ম সিদ্ধানত্ম নেয় টাস্কফোর্স।

এদিকে দুদকের ঘোষিত ৫০ জনের মধ্যে ৩৫ জন সম্পদের বিবরণ দাখিল করেছেন এবং ১৫ জন করেননি। এই ১৫ জনের বিরম্নদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ এবং তাদের স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদ ক্রোক করার জন্য দুদক থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পত্র পাঠিয়ে সুপারিশ করেছে। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টা ড. ফখরম্নদ্দীন আহমদ অনুমোদন দেয়ার পরই ১৫ জনের স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ ক্রোকের কার্যক্রম কয়েক দিনের মধ্যে শুরম্ন হবে বলে দুদক সূত্রে জানা গেছে।

৫০ জনের মধ্যে ৩৪ জন জেলে রয়েছেন। জরম্নরি অবস্থার মধ্যে গ্রেফতারের ৩০ দিনের মধ্যে তাদের বিরম্নদ্ধে নিয়মিত মামলা করার প্রাথমিক সিদ্ধানত্ম রয়েছে বলে সংশিস্নষ্ট এক কর্মকর্তা জানান। গ্রেফতারকৃত ১৯ জনের মধ্যে ১৪ জন ৪ ফেব্রম্নয়ারি এবং ৫ জনকে তার আগের দিন গ্রেফতার করা হয়। এই ১৯ জন হচ্ছেন বিএনপির সাবেক যোগাযোগ মন্ত্রী ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা, সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সংসদ বিষয়ক উপদেষ্টা সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরী, সাবেক বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, সাবেক প্রতিমন্ত্রী মীর মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন, সাবেক প্রতিমন্ত্রী আমান উলস্নাহ আমান, সাবেক অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমানের ছেলে নাসের রহমান বাবু, সাবেক এমপি মনজুরম্নল আহসান মুন্সি, সাবেক এমপি আবদুল ওয়াদুদ ভুঁইয়া, টিএন্ডটির সিবিএর সভাপতি ও শ্রমিক দল নেতা ফিরোজ মিয়া, বিএনপির নেতা ও সন্ত্রাসীদের গডফাদার হাজী শোয়েব সাঈদ ডিকন এবং আওয়ামী লীগের নেতা হচ্ছেন সাবেক স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, প্রতিমন্ত্রী ডঃ মহিউদ্দিন খান আলমগীর, সালমান এফ রহমান, সাবেক এমপি লোটাস কামাল, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক পংকজ দেবনাথ, আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর সহকারী একানত্ম সচিব ডঃ আওলাদ হোসেন, আলোচিত ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের ঘনিষ্ঠ বন্ধু ও টেন্ডারবাজ স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ডাঃ জাহাঙ্গীর সাত্তার টিংকু, ডাকসুর সাবেক সদস্য আবদুর রাজ্জাক ও আওয়ামী লীগ নেতা মাহমুদ হাসান বাবুল। Source:দৈনিক ইত্তেফাক
Date:2007-03-02

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: