টিএন্ডটির দুর্নীতিবাজ গডফাদাররা এখনও বহাল তবিয়তে

গত ১১ জানুয়ারি থেকে দেশের পরিস্থিতির পরিবর্তন ঘটলেও টিএন্ডটি বোর্ডের দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ক্ষেত্রে পরিবর্তনের ছোঁয়া লাগেনি। গত ৪ ফেব্রুয়ারি রাতে টিএন্ডটি বোর্ডের সিবিএ সভাপতি ফিরোজ মিয়া যৌথ বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হলেও গডফাদার ও সহযোগীরা এখনও রয়েছে বহাল তবিয়তে। ফিরোজ মিয়া গ্রেফতার হওয়ায় টিএন্ডটি বোর্ডে কিছুটা স্বসিত্ম ফিরে আসে। কালো টাকার মালিক ও সন্দেহভাজন তালিকাভুক্ত দুর্নীতিবাজদের ৫০ জনের মধ্যে ফিরোজ মিয়া একজন। সে গ্রেফতার হওয়ার পর গত ৫ বছরে টিএন্ডটি বোর্ডের একশ্রেণীর কর্মকর্তা ও সিবিএ নেতা দুর্নীতি, অনিয়ম, টেন্ডারবাজি, নিয়োগ ও বদলি বাণিজ্যের মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার মতো পুকুর চুরির ঘটনা একের পর এক বের হয়ে আসছে। এই পুকুর চুরির নায়কদের মধ্যে লাইনম্যান ও গাড়ির চালকরা জিরো থেকে কোটিপতি বনে গেছে।

টিএন্ডটি বোর্ডের কয়েকজন কর্মকর্তা এর সত্যতা স্বীকার করে বলেছেন, টিএন্ডটি সিবিএর সভাপতি গ্রেফতার হলেও তার গডফাদার এবং অনুসারীরা এখনও দাপটের সঙ্গে তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। মাত্র ছয় জন কর্মকর্তা মাঠ পর্যায় থেকে এখনও অনিয়ম করে যাচ্ছেন। এ কারণে ১১ জানুয়ারি থেকে দেশের শাসন ব্যবস্থায় পরিবর্তন ঘটলেও টিএন্ডটির দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা এখনও ড়্গমতাধর। এই সকল কর্মকর্তা- কর্মচারী গত পাঁচ বছর জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দলের ব্যানারে থেকে পুকুর চুরির ঘটনা ঘটিয়েছে। পেশায় লাইনম্যান হলেও চলেন শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত দামী গাড়িতে। কারও কারও রাজধানীতে ২ থেকে ৩টি করে বিলাসবহুল বাড়িও রয়েছে। টিএন্ডটি বোর্ডের দুর্নীতির শীর্ষে রয়েছে সিবিএ মহাসচিব আব্দুল কাইয়ূম, যুগ্ম মহাসচিব হারম্নন অর রশীদ ওরফে হারম্নন মিয়া ও গাড়ি চালক ফারম্নক। তাদের দুর্নীতি ও অনিয়মের সহযোগী হলো উক্ত ছয় কর্মকর্তা। তারা টিএন্ডটি বোর্ডের মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তা ও সিবিএ নেতারা ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারী হলেও চলতি দায়িত্বে তৃতীয় শ্রেণীর কর্মচারী। সিবিএর মহাসচিব আব্দুল কাইয়ূম ছিল টেলিফোন অপারেটর। সিবিএ নেতা হওয়ার পর সে টিএন্ডটি বোর্ডের স্বঘোষিত সম্রাট। যুগ্ম মহাসচিব হারম্নন মিয়া মাস্টার রোলে ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারী হিসেবে চাকরি নেয় গ্রেফতারকৃত সিবিএ সভাপতি ফিরোজ মিয়ার হাত ধরে। এরপর কয়েক বছর যেতে না যেতেই সে লাইনম্যান হিসেবে নিয়োগ পায়। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরের বাসুদেব গ্রামে হারম্নন মিয়ার জন্ম। তার অতীত কর্ম মাছ বেচা থেকে শুরম্ন। সিবিএর দোর্দন্ড প্রতাপশালী নেতা গ্রেফতারকৃত ফিরোজ মিয়ার সহযোগী হওয়ার কারণে হারম্নন মিয়া টিএন্ডটিতে একইভাবে প্রভাব খাটিয়ে চলছে। গাড়ি চালক ফারম্নক চালকদের নেতা। তার মগবাজার ও উত্তরায় রয়েছে ২টি বাড়ি। যার মূল্য প্রায় ২ কোটি টাকা বলে টিএন্ডটি সূত্রে জানা যায়। যুগ্ম মহাসচিব হারম্নন মিয়ার খিলড়্গেত নামাপাড়ায় রয়েছে বিলাসবহুল একটি বাড়ি। এছাড়াও নামে-বেনামে রয়েছে তার আরও কয়েকটি বাড়ি। গাড়ি ব্যবহার করছেন ৩টি। কাইয়ুমের রয়েছে বিশাল ধনসম্পদ। গত বিএনপি সরকারের আমলে তাদের উত্থান হলেও পরবর্তীতে চারদলীয় জোট সরকারের আমলে টিএন্ডটি বোর্ডের সিবিএ নেতা ও কতিপয় কর্মকর্তা সমগ্র টিএন্ডটিকে জিম্মি দশায় পরিণত করে। তারা জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দলের সিবিএ নেতা হওয়ার কারণে টিএন্ডটি বোর্ড মূলত এই সকল সিবিএ নেতা ও কর্মকর্তাদের হাতে নিয়ন্ত্রিত হতো। জানা গেছে, ক্যাবলসহ বিভিন্ন প্রকল্পের কোটি কোটি টাকার কাজে সিবিএ নেতাদের ভাগ না দিলে কারো পড়্গে কাজ করা সম্ভব হতো না। কর্মকর্তাসহ সকল সত্মরের কর্মচারি নিয়োগ ও বদলি বাণিজ্য সিবিএ নেতা ও ছয় কর্মকর্তা নিয়ন্ত্রণ করতেন। গ্রাহকদের লাইনে ত্রম্নটি সৃষ্টি কিংবা বিভিন্নভাবে বেকায়দায় ফেলে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়ার বাণিজ্য লাইনম্যান নেতারাই নিয়ন্ত্রণ করতো। কর্মচারিদের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য সিবিএ গঠন হলেও মূলত উক্ত কয়েক নেতাই সিবিএ করে জিরো থেকে হিরো বনে যায়। মুলত এই সিবিএ টিএন্ডটি বোর্ডের শত শত কর্মচারিদের সুযোগ-সুবিধা কিংবা ন্যায্য পাওনা আদায়ে চরম ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে আসছে বলে কয়েক কর্মচারি জানান।

ছয় কর্মকর্তার মধ্যে একজন সাবেক টিএন্ডটি মন্ত্রী ব্যারিস্টার আমিনুল হকের ভাগ্নে পরিচয় দিয়ে প্রচণ্ড দাপটে চলতেন। এ ব্যাপারে টিএন্ডটি বোর্ডের চেয়ারম্যান আলীবর্দী খন্দকার জানান, দুর্নীতি ও অনিয়মের সঙ্গে জড়িতদের বিরম্নদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। Source:দৈনিক ইত্তেফাক
Date:2007-03-04

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: