চট্টগ্রামে আগুন কেড়ে নিলো ২১টি প্রাণ

১০ শিশু, ৮ মহিলা, ৩ বৃদ্ধ অঙ্গারে পরিণত ।। বাকলিয়ার বৌবাজারে সরু গলির কারণে ঢুকতে পারেনি দমকলের গাড়ি

বন্দরনগরী চট্টগ্রামের বাকলিয়া এলাকা বৌবাজারে সোমবার মধ্যরাতের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ হয়ে মারা যায় ২১ জন। এ মর্মন্তুদ মৃত্যুর শিকার হয় ১০ শিশু, ৮ মহিলা ও ৩ বৃদ্ধ। তাদের সকলের দেহই বলতে গেলে অঙ্গারে পরিণত হয়। আগুনে দশ সদস্যের দু’টি পরিবারের কেউ আর জীবিত নেই। একই পরিবারের ছয় সদস্যের মধ্যে রয়েছে কমলা বেগম (৪৫) ও তার পাঁচ সন্তান রোমেনা বেগম (১৪), মোমেনা বেগম (১০), খলিল (৭) ও শুক্কুর (৫)। গৃহকর্তা আবদুল মোমিন মুমূর্ষু অবস্থায় এখন চট্টগ্রাম মেডিক্যালে চিকিৎসাধীন। অপর পরিবারের ৪ সদস্যের মধ্যে রয়েছে মোরশেদ ও তার স্ত্রী নাজিয়া এবং তাদের সনত্মান সুমাইয়া (১) ও কাইয়ুম (১)। এছাড়া অগ্নিকাণ্ডে প্রাণ হারায় কুলসুম (১২) ও মুন্নী (৭), তিন সহোদরা বানু (২০), রম্নবি (১৬) ও মিতু। বানুর শিশুপুত্র ইমনও আগুনে পুড়ে মারা যায়। অপর এক পরিবারের খোরশেদ (৭০) ও তার স্ত্রী অপুলা খাতুন (৬০), তাদের নাতি আনিস (৮)। আরেক পরিবারের মনোয়ারা বেগম (৬০), তার মেয়ে পারভীন (৩০) আগুনে পুড়ে অঙ্গার হয়ে যায়। চট্টগ্রামে চিকিৎসাধীন ৫ জনের মধ্যে ১ জনের অবস্থা আশংকাজনক।

মাত্র ২ শতক জায়গায় উপর খালেক সওদাগর নির্মিত ইটের দেয়াল ঘেরা ৮টি খুপরি ঘরে দরিদ্র শ্রমজীবী প্রায় ৫০ জন লোক বাস করত। মধ্যরাতে আগুনের লেলিহান শিখা চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে গার্মেন্টস ঝুটকাপড়ের গুদামের পাশ ঘেঁষা সরম্ন রাসত্মা দিয়ে বাসিন্দারা সামনের দিকে অগ্রসর হতে না পেরে পিছনের দিকে একটি কড়্গে জড়ো হয়। সেখানেই আগুনে পুড়ে মারা যায় ২১ জন। অগ্নিকাণ্ডে অসহায় নারী-পুরম্নষের আহাজারি ও আর্তচিৎকার শুনে আশপাশে থেকে অনেকে এগিয়ে আসলেও আগুনের ভয়াবহতা ও সরম্ন রাসত্মার কারণে তাদের দূরে দাঁড়িয়ে থাকা ছাড়া কিছুই করার ছিল না। কারণ উঁচু প্রাচীর ঘেরা ২ শতকেরও কম এ জায়গাটি পুরোটাই একটি অগ্নিকুণ্ডে পরিণত হয়।

দমকল বাহিনীর লামা স্টেশন ইনচার্জ আবু তাহের জানান, প্রায় ১০ ফুট উঁচু সীমানা প্রাচীর ডিঙ্গাতে না পারায় নারী, শিশু ও বৃদ্ধদের এ মর্মানিত্মক পরিণতি ঘটে। তিনি বলেন, বৌবাজারের গলিগুলো সরম্ন হওয়ায় দমকল বাহিনীর গাড়ি সেখানে ঢুকতে পারেনি। প্রবেশ মুখটি সরম্ন থাকায় ও পিছনের দিকে বের হওয়ার কোন পথ না থাকায় হতাহতের সংখ্যা বেড়েছে। তারা ১২টি একশ’ ফুট লম্বা পাইপ জোড়া দিয়ে ঘটনাস্থলে পানি ছিটানোর ব্যবস্থা করেন। ততড়্গণে অনেক নারী-পুরম্নষ-শিশু মারা যায়।

ঘটনার সময় উপস্থিত শহিদুল ইসলাম বলেন, বিশ্বাস করতে খুবই কষ্ট হচ্ছে যে, কয়েক ঘন্টা আগেও সে জায়গাটি ছোট্ট শিশুদের কোলাহলে মুখর ছিল তা এখন এক মৃত্যুকূপে পরিণত হয়েছে। তিনি জানান, পাশের একটি একতলা বাড়ির ছাদ থেকে চেষ্টা করে কয়েকজনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা সম্ভব হয়।

মোমেনের পরিবারের বেঁচে যাওয়া একমাত্র মেয়ে কুলসুম জানায়, তার মা ও ভাই-বোনসহ ৬ জন আগুনে পুড়ে মারা গেছে। হাসপতালে চিকিৎসাধীন বাবা এ খবর শুনে হৃদরোগে আক্রানত্ম হন।

সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে নিহতদের দাফন সম্পন্ন

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে গতকাল মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টায় পুরাতন রেলস্টেশন চত্বরে নিহতদের নামাজে জানাজা এবং পরে চৈতন্যগলি করবস্থানে তাদের দাফন সম্পন্ন হয়। এ সময় সিটি মেয়র আলহাজ্ব এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী, ওয়ার্ড কমিশনারবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সকালে মেয়র অগ্নিকান্ডে ড়্গতিগ্রসত্ম এলাকা পরিদর্শন এবং ড়্গতিগ্রসত্ম পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। তিনি ড়্গতিগ্রসত্ম পরিবারের সদস্যদের আগামী দু’দিন চার বেলা খাবারের ব্যবস্থা করার জন্য সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন। মেয়র এ সময় বলেন, ড়্গতিগ্রসত্ম পরিবারগুলোর মাথা গোঁজার জন্য সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে টিনশেড ঘর তৈরি করে দেয়া হবে। এছাড়া অগ্নিকান্ডে ড়্গতিগ্রসত্ম বৌবাজার এলাকার সংকীর্ণ রাসত্মাসমূহ শীঘ্রই সম্প্রসারণের উদ্যোগ নেয়া হবে বলে তিনি ঘোষণা দেন।

রাষ্ট্রপতির শোক

বাসস ।। রাষ্ট্রপতি প্রফেসর ড. ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদ চট্টগ্রামের বাকলিয়ায় এক ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে মর্মানিত্মকভাবে ২১ জনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। গতকাল মঙ্গলবার এক শোক বার্তায় রাষ্ট্রপতি শোকসনত্মপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান এবং নিহতদের রম্নহের মাগফেরাত কামনা করেন। তিনি আহতদের সুচিকিৎসার জন্য সংশিস্নষ্টদের নির্দেশ দেন এবং অগ্নিকাণ্ড প্রতিরোধে ব্যাপক সতর্কতা অবলম্বনের জন্য দেশবাসীর প্রতি আহবান জানান।

প্রধান উপদেষ্টার শোক

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টা ড. ফখরম্নদ্দীন আহমদ সোমবার দিবাগত মধ্যরাতে চট্টগ্রামে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় প্রাণহানিতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি তার শোকবাণীতে নিহতদের রম্নহের মাগফেরাত এবং শোকসনত্মপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান। ড. ফখরম্নদ্দীন আহমদ আহতদের সুচিকিৎসা এবং পুনর্বাসনে সহযোগিতা করার জন্য সংশিস্নষ্ট কর্তৃপড়্গকে নির্দেশ দেন।

খালেদা জিয়ার শোক

বেগম খালেদা জিয়া চট্টগ্রামে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে বিপুল সংখ্যক নারী-পুরম্নষের প্রাণহানি ও সম্পদের ড়্গয়ড়্গতির ঘটনার গভীর শোক, দুঃখ ও উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তিনি অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা এবং তাদের পরিবার পরিজনদের প্রতি আনত্মরিক সমবেদনা জানিয়েছেন। একই সাথে তিনি আহতদের প্রতি সহানভূতি প্রকাশ করে সুচিকিৎসার জন্য সংশিস্নষ্ট কর্তৃপড়্গের প্রতি আহবান জানান এবং তাদের আশু সুস্থতা কামনা করেন।

শেখ হাসিনার শোক

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা এক বিবৃতিতে চট্টগ্রামের বৌবাজার বসিত্মতে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তিনি এই ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে শিশু ও নারীসহ কমপড়্গে ২১ জনের প্রাণহানির ঘটনায় শোক প্রকাশ করে তাদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন। এছাড়াও তিনি অগ্নিদগ্ধ ও আহতদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে তাদের দ্রম্নত আরোগ্য কামনা করেন ও ড়্গতিপূরণের ব্যবস্থা নিশ্চিত করার আহবান জানান। Source:দৈনিক ইত্তেফাক
Date:2007-03-07

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: