সুনির্দিষ্ট কারণ ছাড়া কারো ব্যাংক একাউন্ট ফ্রিজ করা হবে না

অর্থ উপদেষ্টা বললেনঃ যৌক্তিক কারণেই মওদুদ ও সাইফুর রহমানের একাউন্ট ফ্রিজ করা হয়েছে ০ শীঘ্রই পণ্যের শুল্ক কাঠামো পুনর্বিন্যাস হচ্ছে

অর্থ উপদেষ্টা ড. এবি মির্জা আজিজুল ইসলাম বলেছেন, শিগগিরই আমদানিকৃত নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের শুল্ক কাঠামো পুনর্বিন্যাস করা হচ্ছে। দেশীয় বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের সরবরাহ বৃদ্ধি ও মূল্য নিয়ন্ত্রণে এই উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। বুধবার সংবাদপত্র, বেসরকারি টিভি চ্যানেল ও বার্তা সংস্থার সম্পাদক ও বার্তা বিভাগের প্রধানদের সাথে বৈঠকশেষে তিনি সাংবাদিকদের একথা বলেন। তিনি আরো বলেছেন, সুনির্দিস্ট কারণ ছাড়া কারো ব্যাংক একাউন্ট ফ্রিজ করা হবে না। যৌক্তিক কারণেই সাবেক অর্থমন্ত্রী ও আইনমন্ত্রীর ব্যাংক একাউন্ট ফ্রিজ করা হয়েছে। পরিকল্পনা কমিশনে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে বিভিন্ন সংবাদপত্র, বেসরকারি টিভি চ্যানেল ও বার্তা সংস্থার সম্পাদক ও বার্তা বিভাগের প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

সম্প্রতি রাজনীতিবিদ, ব্যবসায়ীদের ব্যাংক একাউন্ট ফ্রিজ করা সম্পর্কে অর্থ উপদেষ্টা বলেন, সুনির্দিস্ট কারণ ছাড়া কারো ব্যাংক একাউন্ট ফ্রিজ করা হয়নি। এ ব্যাপারে কারো দ্বিমত আছে বলে আমি মনে করি না। কোন ব্যক্তির প্রদর্শিত আয়ের সাথে প্রকৃত আয়ের অসঙ্গতি রয়েছে বলে সন্দেহের অবকাশ থাকলে আয়কর আইন অনুযায়ী রাজস্ব বোর্ড যে কারো ব্যাংক একাউন্ট ফ্রিজ করতে পারে। তিনি আরো বলেন, অনুসন্ধানে যদি দেখা যায়, যে কারণে তাদের ব্যাংক একাউন্ট ফ্রিজ করা হয়েছিল সেই অভিযোগ প্রমাণিত হয় তাহলে আয়কর আইনানুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। প্রমাণিত না হলে তাদের ব্যাংক একাউন্ট আবার ‘ওপেন’ করে দেয়া হবে। সাবেক অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমান ও সাবেক আইনমন্ত্রী মওদুদ আহমেদের ব্যাংক একাউন্ট ফ্রিজ করা সম্পর্কে তিনি বলেন, যৌক্তিক কারণেই তাদের ব্যাংক একাউন্ট ফ্রিজ করা হয়েছে। এই বিষয়ে সাবেক আইনমন্ত্রী যে প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন তাও স্বাভাবিক। যে কোন ব্যক্তির ব্যাংক একাউন্ট ফ্রিজ হলে একই প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতেন।

দ্রব্যমূল্য সম্পর্কে তিনি বলেন, দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করা প্রশাসনিকভাবে বেশ দুরূহ ব্যাপার। যেসব নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য আমদানি করতে হয় সেসব পণ্য মূল্য আনত্মর্জাতিক বাজারে হরহামেশাই উঠানামা করে। সম্প্রতি ইন্দোনেশিয়ায় ভয়াবহ বন্যার কারণে আনত্মর্জাতিক বাজারে ভোজ্যতেলের সরবরাহ কমে গেছে। এতে দামও বেড়ে গেছে। তাই শিগগিরই নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের শুল্ক কাঠামো পুনর্বিন্যাস করা হবে। বাজেটের আগেই এই শুল্ক কাঠামো পুনর্বিন্যাস করা হচ্ছে বলে তিনি ইঙ্গিত দিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, যারা অতীতে কালো টাকা সাদা করেছেন তারা আইনের আওতায় এই সুযোগ নিয়েছেন। তাই তাদের হয়রানি করা হবে না। তবে যেসব ব্যক্তি ঘোষণা দেয়া কালো টাকার চেয়ে বেশি অর্থের মালিক, তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

আগামী অর্থ বছরের বাজেট সম্পর্কে তিনি বলেন, আগামী বাজেট হবে কার্যকর ও বাসত্মবসম্মত। দারিদ্র্য বিমোচনকে বেশি প্রাধান্য দেয়া হবে। চলতি অর্থ বছরের মতো বিশাল অংকের থোক বরাদ্দ রাখা হবে না। তবে থোক বরাদ্দ অবসায়ন করা ঠিক হবে না, জাতীয় দুর্যোগ মোকাবিলায় সীমিত পরিমাণে থোক বরাদ্দ রাখা হবে।

ফাইনান্সিয়াল এক্সপ্রেসের সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, দারিদ্র্য বিমোচনকে প্রাধান্য দিয়ে আগামী বাজেট প্রণয়নের পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। এছাড়া কর ব্যবস্থা সংস্কারের উপরও গুরম্নত্ব দিয়েছেন উপস্থিত সম্পাদকরা। চ্যানেল আই-এর বার্তা বিভাগের প্রধান শাইখ সিরাজ বলেন, কৃষিপ্রধান অর্থনীতি হওয়ায় কৃষিখাতে বরাদ্দ বাড়ানো দরকার। এছাড়া সারের ভর্তুকি সরাসরি কৃষকদের দেয়া উচিত। বৈঠকে আরো অংশ নেন যুগানত্মর সম্পাদক গোলাম সারওয়ার, জনকণ্ঠ সম্পাদক আতিকউলস্নাহ খান মাসুদ, মানবজমিন প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী, ইনকিলাব সম্পাদক এএমএম বাহাউদ্দীন, ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্তসহ বিভিন্ন গনমাধ্যমের প্রতিনিধিরা। Source:দৈনিক ইত্তেফাক
Date:2007-03-08

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: