খালেদা হাসিনা ও সাবেক মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলাগুলো পর্যালোচনা হচ্ছে

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া ও শেখ হাসিনাসহ তাদের মন্ত্রিসভার সদস্যদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত দুর্নীতির মামলা পর্যালোচনা করছে অপরাধ দমনে গঠিত জাতীয় সমন্বয় কমিটি। গতকাল একটি সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। দুর্নীতি দমন কমিশন সূত্র জানায়, ৯১ সালে দেশের রাজনৈতিক পটপরিবর্তনের পর এ পর্যনত্দ ভিআইপিদের বিরুদ্ধে ২৬৩টি দুর্নীতির মামলা হয়েছে। এর মধ্যে একটি মামলা নিষ্পত্তির কাছাকাছি গিয়ে ঝুলে আছে, বাকি দুটি খারিজ হয়ে গেছে। প্রায় নিষ্পন্ন মামলাটি হলো সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদের বিরুদ্ধে দায়ের করা হাইকোর্টে বিচারাধীন জনতা টাওয়ার দুর্নীতি মামলা। সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুটি মামলা আদালতের রায়ে খারিজ হয়ে যায়। একটি হলো ক্যান্টনমেন্টের বাসভবন সজ্জা মামলা, অন্যটি পুলিশ বিভাগে সাব-ইন্সপেক্টর নিয়োগ সংক্রানত্দ মামলা।
আদালতে স্থগিত হয়ে থাকা দুর্নীতির মামলার সংখ্যা মোট ১২৬টি। শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে ৪টি দুর্নীতির মামলা রয়েছে। এগুলো হলো বেপজার জন্য পরামর্শক নিয়োগের নামে সরকারি টাকার ক্ষতিসাধন, মিগ-২৯ যুদ্ধবিমান ক্রয়, নৌবাহিনীর জন্য ফ্রিগেট ক্রয় এবং বিদু্যৎ উন্নয়ন বোর্ডের অধীনে মেঘনাঘাট সাইট প্রিপারেশন প্রকল্পে দুর্নীতি। সব মামলার কার্যক্রম হাইকোর্টের আদেশে স্থগিত আছে। খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত দুটি মামলা আদালতের রায়ে স্থগিত আছে।
এরশাদের বিরুদ্ধে দায়ের করা বেশ কিছু মামলা হাইকোর্ট স্থগিতাদেশ দিয়েছে। এগুলো হলো বিমান বাহিনীর জন্য রাডার ক্রয় দুর্নীতি। এছাড়া রয়েছে ৮৯টি উপজেলা টেলিফোন এক্সচেঞ্জ স্থাপন প্রকল্পে দুর্নীতি মামলা। সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের বিরুদ্ধে দায়ের করা ঘোড়াশাল সার কারখানা দুর্নীতি মামলার কার্যক্রমও হাইকোর্ট বিভাগে স্থগিত হয়ে আছে।
দুদক সূত্রে জানা গেছে, গত ১৫ বছরে প্রায় সব ক্ষেত্রেই সরকারপক্ষ বিরোধী দলের রাজনৈতিক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি মামলা দায়ের করে এসেছে। ৯১ থেকে ৯৬ সালের মধ্যে জাতীয় পার্টির বিভিন্ন নেতার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে ৬৪টি।
‘৯৬-সালে ক্ষমতায় এসে আওয়ামী লীগ সরকার বিএনপির বিভিন্ন নেতার বিরুদ্ধে দায়ের করে ৭৩টি মামলা। খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা হয় ৪টি দুর্নীতির মামলা।
২০০১-এ আবার ক্ষমতায় এসে বিএনপি সরকার আওয়ামী লীগ নেতাদের বিরুদ্ধে ৯৭টি দুর্নীতির মামলা দায়ের করে। এসব কারণেই সরকার দুর্নীতির বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলাগুলো পর্যালোচনার সিদ্ধানত্দ নিয়েছে।
সূত্রঃ http://amadershomoy.com/news.php?id=144011&sys=1

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: