খাদ্য শস্য সরবরাহ, মজুদ ও বাজার পরিস্থিতি স্থিতিশীল রাখতে পদক্ষেপ

খাদ্য শস্যের মূল্য জনগণের সামর্থ্য ও ক্রয়-ক্ষমতার মধ্যে রাখতে এবং দেশব্যাপী এর পর্যাপ্ত সরবরাহ বজায় রাখতে সরকার তার নিয়মিত কার্যক্রম সম্প্রতি জোরদার করেছে। বর্তমানে খাদ্য-শস্যের অভ্যনত্মরীণ সংগ্রহ, মজুদ, সংরক্ষণ ও বিতরণ পরিস্থিতি স্থিতিশীল আছে। পরিস্থিতির আরো উন্নয়নে সরকার বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। সেগুলো হচ্ছে-মাসব্যাপী খোলা বাজারে খাদ্য শস্য বিক্রয় (ওএমএস) কার্যক্রম চালু; খাদ্য শস্য আমদানির উপর ৫ শতাংশ শুল্ক প্রত্যাহার; কাজের বিনিময়ে খাদ্য কর্মসূচি বাসত্মবায়ন; অভ্যনত্মরীণ ও বৈদেশিক বাজার থেকে খাদ্যশস্য সংগ্রহ ও বিতরণ কার্যক্রম জোরদার; বিডিআর এর মাধ্যমে ন্যায্যমূল্যে খাদ্যশস্য বিক্রয়; দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির কারণ অনুসন্ধান এবং তা উত্তরণে করণীয় সম্পর্কে সুপারিশ করতে বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠানকে দায়িত্ব প্রদান; সৎ আমদানিকারকদের এলসি মার্জিন নমনীয় করতে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে নির্দেশ প্রদান; সিলগালাকৃত খাদ্যগুদামগুলো খুলে দেয়া যাতে খাদ্যশস্যের ভালো অংশ বাজারে সরবরাহের জন্য ব্যবসায়ীরা ফেরত পান এবং এ ব্যাপারে আটক ব্যবসায়ীদের জামিনের জন্য আইনি সহায়তা প্রদান। বাজার-মূল্য স্থিতিশীল রাখতে সরকার বর্তমান অর্থ বছরের বাজেটে ওএমএস কার্যক্রমের আওতায় ৩ লাখ টন চাল বিতরণের লড়্গ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। এর মধ্যে ১ দশমিক ১ লাখ টন গত সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে ব্যবহৃত হয়েছে। বাজারমূল্য স্থিতিশীল রাখতে এই কার্যক্রমের আওতায় আগামী ১৮ মার্চ থেকে ১৯ এপ্রিল পর্যনত্ম সপ্তাহে ৩ দিন করে মোট ১ লাখ টন চাল বিতরণ করা হবে। এ বাবদ প্রদত্ত সরকারী ভর্তুকী ৩২ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে। সিটি কর্পোরেশন থেকে শুরম্ন করে জেলা সদর ও ইউনিয়ন পর্যায় পর্যনত্ম এই কার্যক্রম চলবে। প্রতিটি পর্যায়ে কমিটির মাধ্যমে ডিলার নিয়োগ করা হবে এবং সুষ্ঠু তদারকির লড়্গ্যে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সরকারী কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে মনিটরিং কমিটি গঠন করা হবে।

বেসরকারি খাতে চাল ও গমের আমদানি ও সরবরাহ বৃদ্ধির জন্য সরকার সম্প্রতি এগুলোর উপর ধার্যকৃত ৫ শতাংশ আমদানি শুল্ক রহিত করার সিদ্ধানত্ম নিয়েছে। এই সিদ্ধানত্ম শীঘ্রই বাসত্মবায়িত হবে। গ্রামাঞ্চলে অতি দরিদ্রদের মৌসুমী বেকারত্ব নিরসনে সরকার কাজের বিনিময়ে খাদ্য খর্মসূচীতে এ বছর ২ দশমিক ১৬ লাখ টন চালের বরাদ্দ করেছে। এর মধ্যে ১ লাখ টন চাল ইতিমধ্যেই ছাড় করা হয়েছে। ১৫ মার্চ থেকে মাঠ পর্যায়ে এই কর্মসূচী বাসত্মবায়ন হবে। এর বাইরে টেস্ট রিলিফ খাতে বরাদ্দকৃত দেড় লাখ টন চালের মধ্যে ১ দশমিক ২০ লাখ টন ছাড়ের অনুমোদনও ইতিমধ্যেই দেয়া হয়েছে।

খাদ্য ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, সরকারিভাবে খাদ্যশস্য মজুদ গড়ার লড়্গ্যে গত বোরো মৌসুমে ১০.৩৯ লাখ টন চাল এবং চলমান আমন সংগ্রহ অভিযানের মাধ্যমে ১.৬২ লাখ টন চাল সংগ্রহ করা হয়েছে। ২০ মার্চ থেকে ২৫ এপ্রিল পর্যনত্ম অভ্যনত্মরীণ উৎপাদন থেকে বোরো সংগ্রহের কার্যক্রম পুনরায় পরিচালিত হবে।

বর্তমান অর্থবছরের বাজেটে সংস্থানকৃত ৩.৩৭ লাখ টন গমের মধ্যে সরকার ২৫ হাজার টন ইতিমধ্যেই আমদানি করেছে। ১ লাখ টন গম সরবরাহের আনত্মর্জাতিক দরপত্র সম্প্রতি গৃহীত হয়েছে। সকল আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে এপ্রিল মাসের শেষ নাগাদ এই গম দেশে পৌঁছবে বলে আশা করা যাচ্ছে। বাজেটের সংস্থান মোতাবেক অবশিষ্ট ২.১২ লাখ টন গম আমদানির প্রক্রিয়া দ্রম্নতসম্পন্ন করার জন্য খাদ্য অধিদপ্তরকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বর্তমানে সরকারি মজুদে ৬.২০ লাখ টন খাদ্যশস্য রয়েছে, যার মধ্যে চাল ৫.৮৮ লাখ টন এবং গম ৩১.২ হাজার মেট্রিক টন। বর্তমান অর্থবছরের প্রথম আট মাসে ৮.০৮ লাখ টন খাদ্যশস্য বিতরণ করা হয়েছে। বাজেটে সংস্থানকৃত অবশিষ্ট ৫.৭০ লাখ টন খাদ্যশস্য মার্চ-জুন সময়ে বিতরণ করা হবে।

গত রমজান মাসে বিডিআর-এর সদস্যরা বিভিন্ন স্থানে ন্যায্যমূল্যে খাদ্যদ্রব্য সরবরাহ করেছে। বাজারে খাদ্যদ্রব্যের মূল্য স্থিতিশীল রাখতে একইভাবে এবারও তাদের মাধ্যমে ন্যায্যমূল্যে খাদ্যশস্য বিতরণ করা হবে।

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির কারণ অনুসন্ধান এবং তা উত্তরণে করণীয় সম্পর্কে বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠানকে দায়িত্ব দেয়া হবে। গবেষণা প্রতিষ্ঠান বাজার নিয়ন্ত্রণে বিসত্মারিত করণীয় সম্পর্কে অর্থমন্ত্রণালয়ে সুপারিশ জমা দেবে।

সৎ আমদানিকারকদের পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে এলসি মার্জিন নমনীয় করার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক সকল বাণিজ্যিক ব্যাংককে নির্দেশ দিয়েছে। ছোট ও মাঝারি আমদানিকারকদের উৎসাহিত করার জন্যও বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

সরকার আশা করছে, গৃহীত পদড়্গেপের ফলে একদিকে যেমন খাদ্যশস্যের বাজার মূল্য স্থিতিশীল থাকবে তেমনি অভ্যনত্মরীণ বাজারে এর পর্যাপ্ত সরবরাহও নিশ্চিত হবে। Source:দৈনিক ইত্তেফাক
Date:2007-03-14

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: