ভবিষ্যৎ নিয়ে উদ্বিগ্ন বিএনপি নেতারা

রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা। দুর্নীতির অভিযোগে শীর্ষস্থানীয় নেতাদের গ্রেফতারে দলের ভবিষ্যৎ পরিণতি কি হবে তা নিয়ে চিন্তিত তারা। দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও মহাসচিব আবদুল মান্নান ভূঁইয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে নেতাকর্মীরা তাদের উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার কথা জানিয়েছেন।

জানা গেছে, বর্তমান বৈরী পরিস্থিতির মুখে উৎকণ্ঠিত নেতাকর্মী ও দলের ভবিষ্যতের কথা ভেবে অবশেষে সরকারের প্রধান উপদেষ্টা ও সেনাপ্রধানের কাছে বিশেষ দূত পাঠিয়েছেন বিএনপি হাইকমান্ড। তারা বুঝতে পেরেছেন, খুব খারাপ দিন যাচ্ছে। বাস্তবতা লংঘন করার কোন সুযোগ আর নেই। দলীয় সূত্র জানায়, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব তারেক রহমানসহ দলের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের গ্রেফতার এবং দলীয় নেতাদের অব্যাহত চাপের মুখে দলের হাইকমান্ড আগের অবস্থান থেকে পিছু হটছে। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রতি মনোভাব নমনীয় হতে শুরু করেছে। তারা তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সঙ্গে একটি সমঝোতায় পৌঁছতে চাইছেন। প্রথমদিকে বর্তমান তত্ত্বাবধায়ক সরকারের বৈধতা নিয়ে বিএনপি যে প্রশ্ন তুলেছিল তা থেকেও এখন সরে এসেছে। বিষয়টি পরিষ্কার করতে গত সপ্তাহে হাইকমান্ড তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টাসহ কয়েকজনের কাছে দলের একজন কেন্দ্রীয় নেতাকে পাঠান। বিশেষ দূত দলীয় হাইকমান্ডের বার্তা নিয়ে প্রধান উপদেষ্টা ড. ফখরুদ্দীন আহমদ, আইন উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন, যোগাযোগ উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) এমএ মতিনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন।

সূত্র মতে, বিএনপির বিশেষ দূত সাবেক রাষ্ট্রপতি শহীদ জিয়াউর রহমান ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বড় ছেলে হিসেবে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব তারেক রহমানকে গ্রেফতারের বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। একই সঙ্গে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কর্মকাণ্ড সম্পর্কে বিএনপির মূল্যায়নসহ আগামী নির্বাচনের বিষয় নিয়েও বিস্তারিত আলোচনা হয়। সূত্র জানায়, উপদেষ্টারা দেশের প্রচলিত আইন সবার জন্য সমান স্মরণ করিয়ে দিয়ে বিশেষ দূতকে বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকার দুর্নীতি দমনে কোন পক্ষপাতিত্ব করছে না। যাদের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে, শুধু তাদেরই আইনের আওতায় আনা হচ্ছে। এতে সৎ রাজনীতিবিদদের দুশ্চিন্তার কোন কারণ নেই।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঘরোয়া রাজনীতি নিষিদ্ধ হওয়ার পর বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার ক্যান্টনমেন্টের বাসায়ও সীমিতসংখ্যক নেতা যাতায়াত করছেন। গত কয়েকদিনে ঢাকা মহানগর বিএনপির সভাপতি ও মেয়র সাদেক হোসেন খোকা, মেজর জেনারেল (অব.) জেডএ খান, সাবেক সাংসদ মোহাম্মদ শাহজাহান, মোঃ ফজলুল আজিম, ব্যারিস্টার মাহবুবউদ্দিন খোকন প্রমুখ বেগম জিয়ার বাসভবনে যান। একইভাবে দলের মহাসচিব আবদুল মান্নান ভূঁইয়ার গুলশানের বাসভবনেও দলের বিভিন্ন স্তরের নেতারা যাতায়াত করছেন।

রোববারও সাবেক আইন প্রতিমন্ত্রী ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর, মেজর (অব.) কামরুল ইসলাম, সিরাজুল ইসলাম সেলিম, রিজভী আহমেদ, এমরান সালেহ প্রিন্স মান্নান ভূঁইয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সূত্র জানায়, দলের চেয়ারপারসন ও মহাসচিব উৎকণ্ঠিত নেতাদের ধৈর্য ধারণ করার পরামর্শ দেন। তারা সময়ের ব্যবধানে সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে বলে আশ্বস- করেন নেতাদের। অবশ্য দলের শীর্ষ নেতৃত্বের সান-্বনার বাণী শুনে সন’ষ্ট হতে পারছেন না নেতাকর্মীরা। দলের নেতাকর্মীদের অব্যাহত চাপের মুখে বেগম খালেদা জিয়া তত্ত্বাবধায়ক সরকার সম্পর্কে তার আগের অবস্থান পরিবর্তন করেন বলে সূত্র জানিয়েছে।

দলীয় চেয়ারপারসনের সঙ্গে সাক্ষাৎকারী একজন নেতা যুগান্তরকে জানান, বেগম খালেদা জিয়ার ঘোর কাটতে শুরু করেছে। তিনি এখন তরুণ নেতাদের ওপর ক্ষুব্ধ। বেগম খালেদা জিয়া তাদের এও বলেছেন, দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে দলীয়ভাবে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এমনকি আগামীতে তিনি দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্তদের দলীয় মনোনয়ন দেবেন না।

বিএনপির একাধিক সাবেক মন্ত্রী-এমপি ও নেতা আলাপকালে জানান, দলের মুষ্টিমেয় কিছু নেতার লাগামহীন দুর্নীতির কারণে দলকে আজ নাজুক পরিস্থিতিতে পড়তে হয়েছে। দলের বর্তমান এ বিপর্যয়কর পরিস্থিতিতে তারা ক্ষুব্ধ ও ভীতসন্তস্ত্র। নেতাকর্মীরাও ঘরছাড়া। দলীয় শীর্ষ নেতৃত্ব আগে থেকে দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে সচেতন হলে এ পরিণতি ভোগ করতে হতো না। আগে থেকে ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় আজ দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্ব নিয়েও অনেকে প্রশ্ন তুলছেন। তাকে বিদেশে পাঠিয়ে দেয়ার এবং বাসভবন ছেড়ে দেয়ার গুঞ্জন উঠছে। এদিকে বেগম খালেদা জিয়ার বাসভবনে রাজনৈতিক নেতাদের যাওয়ার ব্যাপারে কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে বলে শোনা যাচ্ছে। তবে এর সত্যতা যাচাই করা যায়নি। Source:দৈনিক যুগান্তর
Date:2007-03-19

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: