দুবাইয়ে মাফিয়া ডন দাউদের সাথে তারেকের গোপন বৈঠক

কোটি টাকা চাঁদাবাজির মামলায় গ্রেফতারকৃত বিএনপি’র সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব তারেক রহমান সম্পর্কে ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআই চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। এই রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আগ্নেয়াস্ত্র ও বিস্ফোরকদ্রব্য সংগ্রহের জন্য তারেক রহমান মধ্যপ্রাচ্যের দুবাইয়ে কুখ্যাত মাফিয়া ডন দাউদ ইব্রাহিমের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন। তারেক রহমান তার একানত্ম কাছের ও বিশ্বসত্ম সঙ্গী সাবেক মেজর জেনারেল রেজ্জাকুল হায়দার চৌধুরীকে নিয়ে গত বছর মার্চে দু’দিনের ব্যক্তিগত সফরে দুবাই গিয়েছিলেন। দুবাইয়ে মাফিয়া ডন দাউদ ইব্রাহিমের সাথে তারেকের বৈঠক সম্পর্কে বিসত্মারিত রিপোর্ট ভারতের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা (সিবিআই) এ সপ্তাহে কেন্দ্রীয় সরকারের নিকট পেশ করেছে। গতকাল বুধবার ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে চাঞ্চল্যকর এ খবর প্রকাশিত হয়।

রিপোর্টে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের তারেক রহমানকে ‘বহু সমস্যার উৎস’ বলে মনে করছে কেন্দ্রীয় সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। সিবিআই পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যে রিপোর্ট দিয়েছে তাতে বলা হয়, মাফিয়া ডন দাউদ ইব্রাহিমের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রেখে চলতেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার জ্যেষ্ঠ পুত্র তারেক রহমান। অভিযোগ রয়েছে, বাংলাদেশ থেকে অবৈধভাবে অর্থ পাচারের জন্যে সন্ত্রাসী ওসামা বিন লাদেনের আল কায়দার সাথেও তারেকের যোগসূত্র ছিল। ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে বলা হয়েছে গত বছরের মার্চে দু’দিনের ব্যক্তিগত কাজে তারেক রহমান ও মেজর জেনারেল রেজ্জাকুল হায়দার চৌধুরী দুবাইতে যান। দু’জনের ব্যক্তিগত কাজে সফর হলেও তাতে সরকারের কোষাগার থেকে ঢালতে হয়েছে এক লাখ ৬৫ হাজার টাকা। দুবাইয়ের একটি বিলাস বহুল হোটেলে দাউদ ইব্রাহিমের সাথে তারেক রহমানের দীর্ঘ বৈঠক হয়। বৈঠকে উভয়ের মধ্যে বেশ কিছু ‘ডিল’ হয়েছিল।

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে জমা দেয়া সিবিআই’র রিপোর্টে বলা হয়, যেসব ডিল হয়েছিল তার অন্যতম হচ্ছে বাংলাদেশের নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচন। নির্বাচনকে সামনে রেখে বড় অংকের আগ্নেয়াস্ত্র ও বিস্ফোরক দ্রব্য কেনার জন্যে দাউদের সঙ্গে তারেকের কথাবার্তা হয়েছিল। দ্বিতীয়টি হচ্ছে, দুবাইয়ে বেশ কিছু জমি কেনার সিদ্ধানত্ম নিয়েছিলেন তারেক রহমান। কেনা জমিতে ব্যবসা করবেন দাউদ ইব্রাহিম। সিবিআই’র রিপোর্টে আরো বলা হয়েছে, তারেক রহমান ছয় কোটি ডলার দিয়ে দুবাইয়ে একটি বিশাল অট্টালিকা কিনেছেন। দাউদ ইব্রাহিমের সাথে দুবাইয়ে তারেক রহমানের গোপন বৈঠকের গোয়েন্দা রিপোর্ট পেয়ে প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিংহ বিষয়টি নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রণব মুখোপাধ্যায় এবং জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা এম কে নারায়ণের সাথে ইতোমধ্যে আলোচনা করেছেন। ভারত অপর কোন সার্বভৌম দেশের অভ্যনত্মরীণ রাজনীতিতে কোনভাবেই নাক গলাতে চায় না। কিন্তু বাংলাদেশের বিষয়টি ভিন্ন। বাংলাদেশের অশানিত্ম দড়্গিণ-পূর্ব এশিয়ার শানিত্মর বাতাবরণকে নষ্ট করতে পারে এমন আশংকা রয়েছে ভারতের। Source:দৈনিক ইত্তেফাক
Date:2007-03-22

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: