সুপার এইটঃ স্বপ্ন পূরণের দিন আজ

বাংলাদেশের বাঁচা-মরার ম্যাচ আজ। বিশ্বকাপে টিকে থাকার লড়াই। প্রতিপৰ যদিও দুর্বল বারমুডা তারপরও মাত্র একদিনের ব্যবধানে সেই বারমুডাকেই অনেক বেশি শক্তিশালী মনে হচ্ছে বাংলাদেশের। এর পেছনে কৃতিত্ব যত না ক্যারিবিয়ান অঞ্চলের ছোট্ট দেশটির তার চেয়ে অনেক বেশি বাংলাদেশের সামনে হঠাৎ করে উজ্জ্বলতর হয়ে উঠা সুপার এইটে খেলার সম্ভাবনা। আজকের এই ম্যাচের মধ্য দিয়েই শেষ হচ্ছে বিশ্বকাপ ক্রিকেটের প্রথম পর্ব। অনেক ঘটনা, অঘটনের পর ১৩ দিনের প্রথম পর্ব শেষ হচ্ছে আজ। বাংলাদেশ যদি আজ বারমুডাকে হারাতে পারে তাহলে পেঁৗছে যাবে দ্বিতীয় পর্বে। আয়ারল্যান্ডের পর দ্বিতীয় চমক হবে এটি। পাকিসত্দানের পর বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিশ্চিত হয়ে যাবে আরেক পরাশক্তি ভারতের। শুক্রবারের ভারত-শ্রীলংকা ম্যাচের দিকে যেমন তাকিয়ে ছিল পুরো বাংলাদেশ তেমনি আজ বাংলাদেশ-বারমুডা ম্যাচে চোখ রাখবে ভারতীয় সমর্থকরা। প্রত্যাশা করবে দুর্বল বারমুডার জয়। বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৮টায় বাংলাদেশের খেলা। ত্রিনিদাদ-এর কুইন্স পার্ক ওভাল আজও ‘বি’ গ্রম্নপের ম্যাচের জন্য প্রস্তুত। গতকাল দুপুরে দুই দলই অনুশীলন করেছে ওভালে। শেষবারের মত ঘাম ঝরিয়েছে হাই টেনশন ম্যাচের আগে। বারমুডার সামনে অবশ্য কোন টেনশন, প্রত্যাশা বা চাওয়া-পাওয়ার কিছু নেই। বিশ্বকাপের মত বড় আসরে প্রথমবার খেলাটাই বড় অভিজ্ঞতা তাদের জন্য।

প্রতিপৰ হিসেবে বারমুডা নতুন নয় বাংলাদেশের সামনে। এবারের ক্যারিবিয়ান সফরের শুরম্নটাও হয়েছিল হাবিবুল বাশারের দলের বারমুডাকে হারিয়ে। কানাডা, বারমুডাকে নিয়ে ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টের শুরম্নটা হয়েছিল বারমুডাকে হারিয়ে। ৮ উইকেটের বড় জয়ই বলে দেয় প্রতিপৰ হিসেবে কতটা দুর্বল তারা। বিশ্ব ক্রিকেটে খুব বেশিদিন হয়নি পদার্পণ করেছে, তাই উন্নতির চিত্রটাও থ। প্রথম দুই ম্যাচে বড় ব্যবধানে হেরেছে তারা শ্রীলংকা ও ভারতের কাছে। ভারততো বিশ্বকাপের বিশ্বরেকর্ড গড়েছে বারমুডার বিরম্নদ্ধে। প্রায় ১১ বছর টিকে থাকা শ্রীলংকার ৩৯৮ রানের রেকর্ড ভেঙ্গে ৪১৩ রানের সবচেয়ে বড় স্কোর গড়েছে ভারত এই বারমুডার বিরম্নদ্ধে। জবাবে ২৫৭ রানের জয়। শ্রীলংকাও কম যায়নি দুর্বল প্রতিপৰকে পেয়ে। নিজেরা ৩২১ রান করেছে, বারমুডাকে অল আউট করেছে ৭৮ রানে, জয় ২৪৩ রানের। এমন পরিসংখ্যান আশ্বান্বিত করতেই পারে টাইগার বাহিনীকে।

বাংলাদেশ ১৫১ ওয়ানডেতে বারমুডাকে একবারই সামনে পেয়েছিল। শতভাগ জয়ের কৃতিত্ব নিয়ে আজ দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে নামছে। সাথে থাকছে বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ভারতের বিরম্নদ্ধে অবিস্মরণীয় জয়ের সেই স্মৃতি। সেই সাথে থাকছে পরের ম্যাচে শ্রীলংকার বিরম্নদ্ধে বাজেভাবে পরাজয়ের দুঃস্মৃতিগুলোও। শংকা না সাফল্যকে অনুসরণ করবে আজ বাংলাদেশ?

শুক্রবার দিনটি বাংলাদেশ দলের জন্য দারম্নণ উৎকক্তায় কেটেছে। অথচ বাংলাদেশের কোন ম্যাচ ছিল না এদিন। ভারত-শ্রীলংকা ম্যাচের উপর নজর রাখতে যেয়েই ব্যতিব্যসত্দ থাকতে হয়েছে সারাদিন। কখনো রেডিও কমেন্ট্রি শুনতে, কখনো দেশে নিজ পরিবারের সাথে যোগাযোগ করে সর্বশেষ অবস্থা জানা, আবার কখনো কুইন্স পার্ক ওভালে ঢুকে একটু খেলা দেখা, সাপ্তাহিক জুমার নামাজে আলস্নাহর কাছে প্রার্থনা সবই করেছে বাংলাদেশ। ভারতের পরাজয় এত কষ্টের স্বার্থকতা এনেছে। বাংলাদেশের প্রবল সম্ভাবনা জেগেছে সুপার এইটে খেলার। শ্রীলংকার ৬৯ রানের জয় হাসি ছড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়, কর্মকর্তা এবং ১৫ কোটি বাংলাদেশীর মুখে। আমরা এখন একটু নিশ্চিনত্দ। নিশ্চিনত্দ কেননা ভারত জিতলে আমাদের বাসত্দবসম্মত কোন সুযোগ থাকত না, কিন্তু এখন বুঝতে পারছি আসলেই বড় সম্ভাবনা আছে। বললেন বাংলাদেশী অধিনায়ক হাবিবুল বাশার।

ভারতের ম্যাচের সাথে যেহেতু একইদিন স্বাগতিক ওয়েষ্ট ইন্ডিজের খেলা ছিল তাই ত্রিনিদাদের স্থানীয় টেলিভিশন চ্যানেল সেই খেলা দেখিয়েছে হোটেলে বসে নিশ্চিনত্দে খেলার খবর জানতে পারেনি বাংলাদেশী ক্রিকেটাররা। রেডিওই ছিল তাদের ভরসা। এমনকি যখন অনুশীলনে গিয়েছিল বাংলাদেশ দল তখনও তাদের মনে ছিল একটাই চিনত্দা পারবে তো শ্রীলংকা। আমাদের প্র্যাকটিস মাঠ ছিল কুইন্স পার্ক ওভালের পাশে। একটা রাসত্দার এদিক ওদিক। যখনই দর্শকরা চিৎকার করত তখনই ভয়ে বুক কেঁপে উঠত। হয়ত শ্রীলংকার উইকেট পতন হয়েছে। তারপর তো এক সময় আমরা সবাই মাঠে গিয়ে খেলা দেখেছি। এবং শ্রীলংকার বিজয়ে নিজেদের সম্ভাবনার পথ উন্মুক্ত হতে দেখেছি। বললেন বাশার।

আমি যদি বলি বারমুডার মত দুর্বল দলের বিরম্নদ্ধে শেষ গ্রম্নপ ম্যাচে চাপমুক্ত হয়ে খেলব এমনটা বললে মিথ্যা বলা হবে। কেননা যখন জয়ই আমাদের সুপার এইটে নিয়ে যেতে পারে তখন চাপ অবশ্যই থাকবে। যে কারণে আমি খেলোয়াড়দের সাথে বসে আলোচনা করেছি এই ম্যাচ নিয়ে এবং তাদের মানসিক শক্তি চাঙ্গা করতে চেষ্টা করেছি। মাঠে নৈপুণ্য প্রদর্শনের চেয়েও মানসিক লড়াই হবে আজ বেশি। সবার সাথে আলোচনা করে আমার ভাল লেগেছে কারণ সবাই যে কোন উপায়ে দ্বিতীয় পর্বে খেলতে চায়। তাদের এই ইচ্ছাশক্তি আমাদের প্রেরণা যোগাবে।

দুপুরে পোর্ট অব স্পেনের নূর ইসলাম মসজিদে জুমার নামাজ পড়ে বাংলাদেশী ক্রিকেটাররা। এমনকি বাংলাদেশ দলকে মসজিদে পেয়ে পুলকিত ইমাম বিশেষ দোয়ার আয়োজন করেন টাইগারদের সাফল্য কামনায়। বাশারও মসজিদের ইমামের আতিথেয়তায় মুগ্ধ। তারা আমাদের কেক, ড্রিংকস, অফার করেছে। নিজ উদ্যোগে দোয়া করেছে। আজ জিতলেই সুপার এইট নিশ্চিত। হারলে অবশ্য রান রেটের ফাঁকতালে ভারত টপকে যেতে পারে বাংলাদেশকে। অবশ্য সুপার এইটে উঠলে ৬টি ম্যাচ নিশ্চিত বাংলাদেশের। ৩১ মার্চ প্রথম প্রতিপৰ হতে পারে অস্ট্রেলিয়া। তবে বাংলাদেশী অধিনায়ক এখনই সুপার এইট নিয়ে ভাবতে চান না। এখনো অনেকটা পথ বাকি। আগে আমাদের দায়িত্বটুকু পালন করতে দেন। সবার কাছে সেরা, পেশাদার পারফরম্যান্স আসা করছি আমি এবং একটি ম্যাচই আমরা একবারে চিনত্দায় রেখেছি।

ভারতের বিশ্বকাপ ব্যর্থতা এবং প্রথম পর্ব থেকে বিদায়ের সম্ভাবনা সৃষ্টি হওয়াকে বিশ্ব ক্রিকেটের সম্প্রসারণ হিসেবে দেখতে চান বাংলাদেশ অধিনায়ক। আমি তো একে পজিটিভ হিসেবেই দেখতে চাই। এটা প্রমাণ করে ক্রিকেট বিসত্দৃত হচ্ছে। আমরা ভাল ক্রিকেট খেলেছি। আয়ারল্যান্ডও দারম্নণ খেলে দ্বিতীয় পর্বে উঠেছে। এটা সত্য চার গ্রম্নপ না হয়ে দুই গ্রম্নপ থাকলে বড় দলগুলোর ব্যর্থতা কাটিয়ে উঠার সম্ভাবনা বেশি থাকত। বড় দলগুলো তেমনটাই চায়- যা প্রমাণ করে তারা দুর্বল দলগুলোর বিরম্নদ্ধে খেলতে ভয় পায়। যদি কেউ সত্যিই নিজেকে বড় দল ভাবে তাহলে যে ফরম্যাটই হোক তাদের দ্বিতীয় পর্বে যাওয়া উচিত।

বাংলাদেশে থাকা কালেই সুপার এইটের লৰ্যের কথা বলে চলেছিলেন হাবিবুল বাসার। তখন তা যতটা না বাসত্দবসম্মত ছিল তারচেয়ে এখন অনেক বেশি। আমি জানতাম একটা টার্গেট দাঁড় না করালে কখনো সাফল্য পাওয়া যায় না। ভারতের বিরম্নদ্ধে জয় ভাবতে শিখিয়েছিল অবশ্যই সম্ভব সুপার এইটে খেলা। গোড়ালিতে আঘাতের কারণে বা হাতি স্পিনার আব্দুর রাজ্জাক শুক্রবারের অনুশীলনে বোলিং করেননি। ব্যাটিং করেছেন। তবে তার ইনজুরি মারাত্মক নয় এমনটাই জানিয়েছে টিম ম্যানেজমেন্ট।
Source:দৈনিক ইত্তেফাক
Date:2007-03-25

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: