যেকোনো দিন কার্যকর হতে পারে জঙ্গিদের ফাঁসি

যেকোনো দিন কার্যকর হতে পারে জঙ্গিদের ফাঁসি। তবে তা আগামী ১৯ এপ্রিলের মধ্যে হবে। এই মৃত্যুদণ্ডের তারিখ ও সময় ঘোষণা না-ও করা হতে পারে। জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পরামর্শে কারা কর্তৃপক্ষ এ ধরনের সিদ্ধান্ত নিতে পারে। উল্লেখ্য, মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত শীর্ষ ছয় জঙ্গির ফাঁসি প্রতিহত করার লক্ষ্যে জঙ্গিরা বড় ধরনের নাশকতা ঘটাতে পারে, এ ধরনের আশঙ্কা করছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। ইতোমধ্যে জেএমবি’র পক্ষ থেকে এ ধরনের হুমকির খবরও শোনা গেছে। আশঙ্কা রয়েছে, জঙ্গিরা ফাঁসি ঠেকাতে দেশী-বিদেশী গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের জিমিমও করতে পারে। এ ধরনের আশঙ্কাকে মাথায় রেখে ইতোমধ্যে ঢাকাসহ দেশের সবক’টি কারাগারে এবং জেলা শহরগুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। গতকাল কারা অধিদফতরে শীর্ষ জঙ্গিদের ফাঁসি ও নিরাপত্তা বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে র‌্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অংশ নেন। কারা সূত্রে জানা গেছে, পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই এই ফাঁসি কার্যকর হতে পারে। জঙ্গিদের আত্মীয়স্বজনকে ডেকে এনে তাদের লাশ হস্তান্তরের পরই এই ফাঁসির খবর প্রচার করা হবে।
সূত্র মতে, গতকাল বেলা ২টা থেকে ৪টা পর্যন্ত ডিআইজি প্রিজন্স মেজর সামসুল হায়দার সিদ্দিকীর সঙ্গে বৈঠক করেন র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক গুলজার আহমেদ। রুদ্ধদ্বার এ বৈঠকের পর তারা দুজনে যান আইজি (প্রিজন্স) ব্রিগেডিয়ার জে. জাকির হাসানের দফতরে। সেখানে তারা আবারো জঙ্গিদের ফাঁসি নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন। চলে সনধ্যা পর্যন্ত। একদিকে বৈঠক অন্যদিকে জঙ্গিদের সঙ্গে তাদের স্বজনদের সাক্ষাৎ করার ঘটনায় ফাঁসির দিনক্ষণ নিয়ে ক্রমে রহস্য সৃষ্টি হচ্ছে। কারা সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, জেলকোডে উল্লেখ রয়েছে, স্বরাষ্ট মন্ত্রণালয় থেকে যেদিন চিঠি কারা অধিদফতরে পৌঁছবে, তারপর ২১ থেকে ২৮ দিনের মধ্যে যেকোনো দিন ফাঁসি কার্যকর করতে হবে। এ সময়ে কোন দিন ফাঁসি দেবে তা কারা কর্তৃপক্ষই নির্ধারণ করবে। ইচ্ছা করলে আবার তারাই তা আরো দু-এক দিন পিছিয়ে দিতে পারে। তবে এ ক্ষেত্রে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের স্বজনদের মানবিক আবেদন করতে হবে। সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জ শহরে যৌতুকের অভিযোগে স্ত্রী মামমীকে হত্যার দায়ে তার স্বামী আবুল কালাম আজাদকে আদালত ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার নির্দেশ দেয়। সে নির্দেশে কারা কর্তৃপক্ষ ফাঁসির দিন ধার্য করেছিল। কিন্তু পরে তার স্বজনরা তিন দিন পিছিয়ে দেয়ার আবেদন করলে মানবিক বিবেচনায় কারা কর্তৃপক্ষ তা তিন দিন পিছিয়ে ফাঁসি কার্যকর করে।
গতরাতে রুদ্ধদ্বার বৈঠক প্রসঙ্গে ঢাকা বিভাগের ডিআইজি মেজর সামসুল হায়দার সিদ্দিকী নয়া দিগন্তকে বলেন, জঙ্গিদের নিয়ে কোনো রুদ্ধদ্বার বৈঠক হয়নি। তাদের ব্যাপারে আগামী ৩০ মার্চ সিদ্ধান্ত হবে। তবে ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসকে সামনে রেখে দেশের কারাগারগুলোতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতেই র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক গুলজারের সঙ্গে আলাপ হয়েছে। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ইতোমধ্যে আমাদের কারারক্ষীদের জরুরি ছুটি ছাড়া সব ছুটি বাতিল করা হয়েছে। তা ছাড়া জেএমবি’র হামলার আশঙ্কায় প্রত্যেক কারাগারে পুলিশ, র‌্যাব, বিডিআর ও কারারক্ষীদের সমন্বয়ে নিরাপত্তা বলয় তৈরির ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে কারাগারে আটক বন্দীদের জেএমবি’র হামলা সম্পর্কে অবগত করা হয়েছে। Source:দৈনিক নয়া দিগন্ত
Date:2007-03-27

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: