এখন শুধু কোকোকে নিয়েই বিদেশ যেতে চান খালেদা

শর্তপূরণ করে বিদেশ যাওয়ার ব্যাপারে কোনো মহল থেকেই আশ্বস্ত হতে পারছেন না বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তাই শর্তপূরণ ছাড়াই  যে কোনোদিন তিনি সৌদি আরবের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করতে পারেন। সঙ্গে ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোকে নেওয়ার শেষ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে কোকোকে সঙ্গে নিতে পারবেন কিনা এ ব্যাপারে এখনো নিশ্চিত কোনো সিগন্যাল পাননি বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। এদিকে আত্মীয়স্বজন ও দলীয় রাজনীতিবিদদের বাসায় প্রবেশের ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা থাকায় গৃহবন্দী খালেদা জিয়া এখন ক্যান্টনমেন্টের বাসায় নিঃসঙ্গ জীবনযাপন করছেন। ঘনিষ্ঠজনদের সঙ্গে যোগাযোগের একমাত্র বাহন টেলিফোন। তাও আড়িপেতে রাখায় মন খুলে কথা বলতে পারছেন না। ব্যক্তি জীবনে এমন ভয়াবহ পরিস্থিতির শিকার হতে হবে তা কোনোদিনও খালেদা জিয়া ভাবেননি বলে অভিজ্ঞ মহল মনে করছেন। জানা গেছে, ক্যান্টনমেন্টের বাসায় আত্মীয়স্বজনের প্রবেশাধিকার নিষিদ্ধ হওয়ার আগেই তারেক রহমান ও আরাফাত রহমানের স্ত্রী বাবার বাড়িতে চলে
গেছেন মেয়েদের নিয়ে। বর্তমানে খালেদা জিয়া ও আরাফাত রহমান কোকো বিশাল এ বাড়িতে গৃহবন্দী রয়েছেন। তবে আরাফাত রহমানের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ থাকায় যে কোনো মুহূর্তে তাকে গ্রেপ্তার করা হতে পারে বলেও গুঞ্জন রয়েছে।

উল্লেখ্য, বিগত দুতিন সপ্তাহ ধরেই খালেদা জিয়ার বিদেশ যাওয়ার বিষয়টি বাতাসে ভেসে বেড়াচ্ছে। তাকে বিদেশ যাওয়ার ব্যাপারে দলীয় নেতাদের মাধ্যমে কয়েক দফা প্রস্তাবও দেওয়া হয়। প্রস্তাব পাওয়ার পর থেকেই তিনি সংশ্লিষ্ট মহলের সঙ্গে দেনদরবার চালিয়ে যাচ্ছিলেন। তার পক্ষে দুজন ঘনিষ্ঠ আত্মীয় সংশ্লিষ্ট মহলের সঙ্গে দেনদরবার চালায়।
কিন্তু ওই মহল থেকে বার বারই খালেদা জিয়াকে বিদেশ যাওয়ার ব্যাপারে পরামর্শ দেওয়া হয়। প্রথম দিকে রাজি না থাকলেও এক পর্যায়ে দুটি শর্তে তিনি বিদেশ যেতে রাজি হন। শর্ত দুটি হচ্ছে বড়ো ছেলে তারেককে চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানো এবং ছোট ছেলে কোকোকে সঙ্গে নিতে দেওয়া। এ ছাড়া দামি হিরার নেকলেসসহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সঙ্গে করে নিয়ে যেতে চাচ্ছেন তিনি। জানা যায়, দলীয় নেতা লে. জেনারেল (অব.) মাহাবুবুর রহমান, মেজর জেনারেল (অব.) জেড এ খান, লুৎফুজ্জামান বাবর, সাঈদ ইস্কান্দর ও তার স্ত্রী নাসরিন ইস্কান্দরের মাধ্যমে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বিদেশ যাওয়ার জন্য দফায় দফায় প্রস্তাব দেওয়া হয়। প্রথমে শক্ত অবস্থানে থাকলেও শেখ হাসিনার বিরsদ্ধে মামলা ও ক্যান্টনমেন্টের বাসায় ২ আত্মীয়, ১ জন ব্যক্তিগত সহকারী ও ১ জন ডাক্তার ছাড়া অন্য কাউকে প্রবেশ নিষিদ্ধ করায় তিনি এখন বিদেশ যাওয়ার সার্বিক প্রস্তুতি নিয়েছেন। বিদেশ না গেলে ছোট ছেলে কোকোকেও তারেকের ভাগ্য বরণ করতে হবে এমন একটি ম্যাসেজও খালেদা জিয়ার কাছে পৌঁছেছে বলে সূত্র জানিয়েছে।
বিএনপির মুখপাত্র ও দলের যুগ্ম মহাসচিব নজরুল ইসলাম খান ভোরের কাগজকে জানান, খালেদা জিয়া বিদেশ যাবেন কিনা এ ব্যাপারে আমি কিছু জানি না। তবে পত্রপত্রিকায় এ বিষয়ে লেখা হচ্ছে। Source:ভোরের কাগজ
Date:2007-04-12

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: