তারেকের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা ছয় মাস স্থগিত

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব তারেক রহমানের বিরুদ্ধে বিচারাধীন ১ কোটি টাকার চাঁদাবাজির মামলার সব কার্যক্রম ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে আদালত ওই মামলাটি কেন খারিজ করা হবে না আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে তার জবাব দাখিলের জন্য সরকারকে নির্দেশ দিয়েছেন। বিচারপতি মোঃ আবদুল ওয়াহহাব মিয়া এবং বিচারপতি মোঃ এমদাদুল হকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের একটি ডিভিশন বেঞ্চ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন।

মামলাটি আদেশের জন্য উত্থাপিত হলে সরকার পক্ষে ডেপুটি এটর্নি জেনারেল আবদুর রউফ মিয়া আদালতে আইন শৃংখলা বিঘ্নকারী অপরাধ (দ্রুত বিচার) আইন, ২০০২-এর সংশোধনীর গেজেট উপস্থাপন করে বলেন, দ্রুত বিচার আইনের সংশোধন করা হয়েছে। সংশোধনী অনুসারে মামলা খারিজের কোন সুযোগ নেই। এ সময় আবেদনকারীর পক্ষের আইনজীবী টিএইচ খান আদালতে বলেন, আদালতের কার্যক্রমে বিঘ্ন সৃষ্টির উদ্দেশ্যে এ সংশোধনী আনা হয়েছে। আদালত উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদেশে বলেন, মামলা শুনানির পর আদেশের জন্য থাকা অবস্থায় আইন সংশোধন করলে তাতে আবেদনকারীর অর্জিত অধিকার ক্ষুণ্ন হবে কিনা তা পরীক্ষা করা দরকার। আদালত চাঁদাবাজির মামলার সব কার্যক্রম ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেন এবং মামলা কেন খারিজ করা হবে না এ ব্যাপারে চার সপ্তাহের রুল জারি করেন। তবে আদালত তারেক রহমানের জামিনের আবেদন মঞ্জুর করেননি।

হাইকোর্টের এ আদেশের বিরুদ্ধে সুপ্রিমকোর্টে আপিল করা হবে কিনা- এ প্রশ্নের জবাবে এটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার ফিদা এম কামাল বলেন, এখন পর্যন্ত এ ব্যাপারে কোন নির্দেশ নেই। তবে আদালতের আদেশ প্রাপ্তির পর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

যৌথ বাহিনী বিএনপি নেতা তারেক রহমানকে ক্যান্টনমেন্টের বাসা থেকে ৭ মার্চ রাতে গ্রেফতার করে। ৮ মার্চ বিএনপি নেতা ও ঠিকাদার আমিন আহমেদ ভূঁইয়া বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব তারেক রহমানের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় ১ কোটি টাকার চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় ৮ মার্চ পুলিশ তারেক রহমানকে চারদিনের রিমান্ডে নেয় এবং রিমান্ড শেষে ১২ মার্চ আদালতে হাজির করে। তদন্ত শেষে পুলিশ ১৮ মার্চ তারেক রহমানের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে। দ্রুত বিচার আইন অনুযায়ী হাতেনাতে গ্রেফতার না হলে ঘটনা ঘটার দিন থেকে ৬০ দিনের মধ্যে চার্জশিট এবং বিচার করতে হবে। কিন্তু বিএনপি নেতা তারেক রহমানের বিরুদ্ধে আনীত মামলার ঘটনার দিন হিসেবে ৪ জানুয়ারি উল্লেখ করা হয়েছে। আইনের বিধান লংঘন করে বিলম্বে চার্জশিট দাখিল করায় ওই মামলা খারিজের জন্য বিএনপি নেতা তারেক রহমান হাইকোর্টে আবেদন করেন। মামলায় উভয় পক্ষের শুনানি শেষে মঙ্গলবার আদেশের জন্য দিন ধার্য করা হয়। কিন্তু ১৬ এপ্রিল দ্রুত বিচার আইন সংশোধন করে কোন আসামি যেদিন গ্রেফতার হবে বা আদালতে আত্বসমর্পণ করবে সেদিন থেকে অপরাধের বিষয়ে যত দ্রুত সম্ভব ধারা ৯(২)-এর অধীনে রিপোর্ট বা অভিযোগ দাখিল করতে হবে এবং অভিযোগ প্রাপ্তির তারিখ থেকে ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে বিচার কাজ শেষ করতে হবে বলে নির্ধারণ করা হয়।

মামলা শুনানির পর আদেশের জন্য থাকা অবস্থায় আইনের সংশোধনী করায় তা আবেদনকারীর অধিকার ক্ষুণ্ন করবে কিনা তা পরীক্ষা করার জন্য আদালত মামলা খারিজের রুল জারি করেন। তবে ১৬ এপ্রিলের সংশোধনীতে ভূতাপেক্ষা কার্যকারিতা দিয়ে বলা হয়েছে, দ্রুত বিচার আইন যে তারিখে কার্যকর হয়েছে এই সংশোধনীও ওইদিন থেকে কার্যকর হবে।

আদালত আদেশ দেয়ার সময় বিএনপি নেতা তারেক রহমানের স্ত্রী ডা. জোবায়দা রহমান উপস্থিত ছিলেন। আদালতে আইনজীবী টিএইচ খানকে সহায়তা করেন খন্দকার মাহবুব উদ্দিন আহমভদ, আবদুল ওয়াদুদ খন্দকার, ব্যারিস্টার নওশাদ জমির, সানাউল্লাহ মিয়া ও ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল।

কোর্ট রিপোর্টার জানান, সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জ্যেষ্ঠপুত্র ও বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব তারেক রহমানের বিরুদ্ধে বিচারাধীন চাঁদাবাজি মামলাটি চার্জ গঠনের জন্য আগামী ২২ এপ্রিল পুনরায় দিন ধার্য করেছেন আদালত। সোমবার এ মামলাটি ঢাকার দ্রুত বিচার ম্যাজিস্ট্রেট আবদুর রউফ খানের আদালতে চার্জ গঠন ও হাইকোর্টের কোয়াশমেন্ট সংক্রান্ত আদেশের কপি দাখিলের জন্য দিন ধার্য ছিল। তবে তারেক রহমানকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়নি। তারেক রহমানের আইনজীবীরা হাইকোর্টের আদেশের কপি দাখিলের বিষয়ে সময় চেয়ে চার্জ গঠন মুলতবি রাখার অনুরোধ জানান। এ কারণে বিচারক ওই মামলায় চার্জ গঠনের তারিখ পুনঃনির্ধারণ করেন। একই সঙ্গে তারেক রহমানের কারাগারে ডিভিশন সংক্রান্ত অপর একটি আবেদন দ্বিতীয় দফায় খারিজ করেছেন আদালত। গুলশানের ব্যবসায়ী আমিন আহমেদের কাছ থেকে ১ কোটি টাকা চাঁদাবাজির অভিযোগে তারেক রহমান ও তার ব্যক্তিগত সহকারী পলাতক মিয়া নুরুদ্দিন অপুর বিরুদ্ধে এ মামলার বিচার প্রক্রিয়া চলছে। Source:দৈনিক যুগান্তর
Date:2007-04-18

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: