কঠোর গোপনীয়তায় সিএমএইচে খালেদা-তারেক সাক্ষাৎ

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব তারেক রহমানকে সেন্ট্রাল জেল থেকে কাশিমপুর কারাগারে স্থানান্তর করা হয়েছে। একাধিক সূত্রের মতে, মাঝপথে তার সঙ্গে দেখা হয়েছে মা খালেদা জিয়ার। এ সময় সেখানে স্ত্রী এবং ছোট ভাই কোকোও ছিলেন। সাৰাতের এ বিশেষ ব্যবস্থা সিএমএইচে করা হয়েছিল বলে জানা গেছে। পারিবারিক এ সাৰাতে কি কথা হয়েছে, সে সম্পর্কে জানা যায়নি কিছু।

সূত্র জানিয়েছে, তারেক রহমানকে কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে গতকাল সকাল পৌনে ৬টায় সেন্ট্রাল জেল থেকে বের করা হয়। সেখান থেকে তাকে নেয়া হয় ক্যান্টনমেন্ট এলাকায়। এ সময়ই সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের কাছে দেখা হয় মা ও ছেলের। তখন তারেক রহমানের স্ত্রী ডা. জুবাইদা রহমান, কন্যা জাইমা রহমান ও ভাই আরাফাত রহমান কোকো সেখানে উপস্থিত ছিলেন বলে জানা গেছে। প্রায় আধা ঘণ্টা স্থায়ী হয় তাদের এ সাক্ষাৎ পর্ব।
এরপর তারেক রহমানকে নিয়ে যাত্রা করা হয় কাশিমপুর কারাগারের উদ্দেশে। জেল কতর্ৃপৰ জানিয়েছে, গতকাল তাকে সেন্ট্রাল জেল থেকে কাশিমপুরে স্থানানত্দর করা হয়। সেখানে তিনি কাশিমপুর-২ কারাগারে অবস্থান করছেন।

সূত্র আরো জানায়, ছেলের সঙ্গে দেখা করতে শহীদ মইনুল সড়কের বাসভবন থেকে খালেদা জিয়া সকাল সাড়ে ৬টার দিকে বেরিয়ে যান এবং ফেরেন সাড়ে তিন ঘণ্টা পর। এ সময়ের মধ্যেই তিনি তারেক রহমানের সঙ্গে সাৰাৎ করেন। এছাড়া ব্যক্তিগত কিছু কাজও করেন তিনি এ সময়। আগের মতো গতকালও সাবেক প্রধানমন্ত্রীর বাসায় ছিল কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। লোকজনের যাতায়াতও ছিল সীমিত।

তবে আর একটি সূত্র জানিয়েছে, পরিবারের সঙ্গে তারেক রহমানের সাৰাৎ সিএমএইচে নয়, হয়েছে কাশিমপুরে। আমাদের গাজীপুর প্রতিনিধি কাশিমপুর এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে জানান, শনিবার ভোর সাড়ে ৬টা থেকে পৌনে ৭টার দিকে চার-পাচটি গাড়ির বহর কাশিমপুর কারাগারে যায়। এ গাড়িগুলোর একটিতেই ছিলেন তারেক রহমান। এর কিছু পর সকাল ৭টা ২৫ মিনিটের দিকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া যান ওই কারাগারে। এলাকাবাসী জানান, খালেদা জিয়াকে বহনকারী গাড়ির সামনে ও পিছনে দুটি জিপ ছিল। চোখে সানগস্নাস ও সাদা শাড়ি পরা সাবেক প্রধানমন্ত্রী একেবারে জেল গেটে নামেন। একাধিক সূত্র মতে, কারাগারেরই একটি কৰে মা-ছেলের সাৰাৎ হয়েছে।

তবে পুলিশ ও জেল কর্তৃপৰের কেউই সিএমএইচ কিংবা কাশিমপুর, কোনো জায়গাতেই খালেদা জিয়ার সঙ্গে পুত্র তারেক রহমানের সাৰাৎ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেনি। ডিআইজি (পৃজন) মেজর শামসুল হায়দার সিদ্দিকী কেবল জানিয়েছেন, তারেক রহমান কাশিমপুর কারাগারে আছেন। এর বেশি তিনি কিছু বলতে রাজি হননি।

উলেস্নখ্য, ৭ মার্চ রাত সাড়ে ১২টার দিকে শহীদ মইনুল সড়কের বাসা থেকে তারেক রহমানকে যৌথ বাহিনী আটক করে। তার বিরম্নদ্ধে রাজধানীর গুলশান, ধানমন্ডি, কাফরম্নল ও কেরানীগঞ্জে চারটি মামলা হয়েছে।

গ্রেফতারের পর থেকে তারেক রহমানের সঙ্গে তার পরিবার সদস্যরা সেন্ট্রাল জেলে কয়েক দফা সাৰাৎ করেছেন। মা খালেদা জিয়া সেন্ট্রাল জেলে গিয়ে তাকে দেখে আসবেন বলে কয়েক দফা গুঞ্জন ছড়ালেও বাসত্দবে তা হয়নি। সর্বশেষ ১৮ এপৃল স্ত্রী ডা. জুবাইদা রহমান ও শাশুড়ি সৈয়দা ইকবাল মানদ বানু তারেক রহমানের সঙ্গে দেখা করেন। এদিনও খালেদা জিয়া জেল গেটে যাবেন বলে জোর গুজব ছিল। স্পেশাল ব্রাঞ্চ থেকে অনুমতি নিলেও খালেদা জিয়া সেন্ট্রাল জেলে তারেক রহমানকে দেখতে যাননি। গতকালের সাৰাৎ নিয়ে সংশিস্নষ্টদের রাখঢাক সাধারণের মনে নানা প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে।

সূত্রঃ http://www.jaijaidin.com/details.php?nid=6975

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: