খালেদার দেশত্যাগ নিয়ে ধূম্রজাল

শেষ মুহূর্তের অজ্ঞাত কিছু জটিলতার কারণে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি’র চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার দেশ ত্যাগ প্রক্রিয়া বিলম্বিত হচ্ছে। গতকাল রবিবার রাত ১০টা পর্যন্ত তিনি যথারীতি ঢাকা সেনানিবাসের বাড়িতেই অবস্থান করছিলেন। তাকে বহন করে সৌদি আরবের জেদ্দায় নিয়ে যাওয়ার উদ্দেশ্যে দুবাই থেকে যে এক্সিকিউটিভ জেট বিমানটি আসার কথা ছিল, সেটির ঢাকায় পৌঁছানোর ব্যাপারেও সুনির্দ্দিষ্ট কোনো তথ্য জানা যায়নি। এসব কারণে খালেদা জিয়ার দেশ ত্যাগের বিষয়ে এক ধরনের ধূম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। সরকারি বা বেসরকারি কোনো সূত্রই এ ব্যাপারে পরিষ্কার করে কিছু বলছে না।

এর আগে গত শনিবার বিকাল থেকেই খবর ছড়িয়ে পড়ে যে, বেগম খালেদা জিয়া সপরিবারে শনিবার রাতের মধ্যেই ঢাকা ত্যাগ করছেন। তাকে বহন করে নিয়ে যাওয়ার জন্য দুবাই থেকে একটি এক্সিকিউটিভ জেট বিমান শনিবার সন্ধ্যা ৭টার মধ্যে জিয়া আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে এসে পৌঁছানোর আভাস দিয়েছিল সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সূত্র। কিন্তু শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত সময়ে সেটি আসেনি। এরপর সূত্রগুলো খবর দেয় যে, শনিবার ভোর রাত নাগাদ উড়োজাহাজটি ঢাকায় এসে পৌঁছাবে এবং রবিবার সকালের মধ্যে সপরিবারে বেগম খালেদা জিয়াকে নিয়ে সেটি জেদ্দার উদ্দেশ্যে উড়াল দেবে। সূত্রের দেয়া তথ্য অনুযায়ী বিভিন্ন সংবাদপত্র ও টেলিভিশন চ্যানেলের সাংবাদিকরা আগের দিনের মতো গতকালও দিনভর অপেক্ষা করেছেন বিমানবন্দরে।

খালেদা জিয়ার দেশ ত্যাগ প্রক্রিয়া বিলম্বিত হবার কারণ সম্পর্কে বিভিন্ন অসমর্থিত সূত্র গতরাতে ভিন্ন ভিন্ন তথ্য জানিয়েছে। একটি সূত্র বলেছে, দুবাই থেকে ভাড়ায় উড়োজাহাজ নিয়ে আসার খরচ নিয়ে দেখা দেয় প্রথম জটিলতা। মার্কিন মুদ্রায় প্রায় ১ লাখ ৪০ হাজার ডলার (বাংলাদেশী মুদ্রায় ১ কোটি টাকার কাছাকাছি) বিমান ভাড়া একযোগে কে পরিশোধ করবে তা নিয়ে বেশ দ্বিধা-দ্বন্দ্বে ছিলেন সংশ্লিষ্টরা। অন্য একটি সূত্র জানিয়েছে, মূলত ভিসা জটিলতার কারণেই খালেদা জিয়ার বিদেশ যাত্রা বিলম্বিত হচ্ছে। পরিবারের অন্যসব সদস্যের ভিসা স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় সংগ্রহ করা সম্ভব হলেও প্রক্রিয়াগত জটিলতার কারণে সাবেক প্রধানমন্ত্রীর ভিসা পেতে কিছুটা দেরী হয়। আর তাই বিলম্বিত হয় তার দেশ ত্যাগ প্রক্রিয়া। এছাড়া গতকাল দুপুরের দিকে বেগম জিয়ার হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ার গুজবও ছড়িয়ে পড়ে। তবে এসব তথ্যের কোনোটিই আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকার করেনি সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীল কোনো সূত্র।

এ পরিস্থিতিতে বেগম খালেদা জিয়া ঠিক কখন দেশ ত্যাগ করছেন কিংবা আদৌ তিনি বিদেশে যাচ্ছেন কিনা তা নিয়ে এক ধরনের ধূম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। Source:দৈনিক ইত্তেফাক
Date:2007-04-23

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: