অবিরাম ভারি বর্ষণ দমকা হাওয়া, ঝড়

ঢাকা ও সিলেট বিভাগের ওপর দিয়ে গত সন্ধ্যায় দমকা হাওয়াসহ ঝড় বয়ে গেছে। বজ্রবৃষ্টি হয়েছে দেশের অনেক জায়গায়। সন্ধ্যা থেকে অবিরাম ভারি বর্ষণের ফলে রাজধানী ঢাকার স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় দুর্ভোগ নেমে আসে।
প্রবল বৃষ্টির কারণে প্রধান প্রধান সড়কে পানি জমে যায়। এর ফলে সিএনজি অটোরিকশা, ট্যাক্সি ক্যাবসহ উলেস্নখযোগ্য সংখ্যক যানবাহন বিকল হয়ে পড়ে। মতিঝিল, সবুজবাগ, রাজারবাগ, বাসাবো, খিলগাও, মুগদাপাড়া, কাকরাইল, রামপুরা, বাড্ডা, মগবাজার, মালিবাগ, ফকিরাপুল, বেইলি রোড, কাঠালবাগান, হাতিরপুর এলাকার বেশিরভাগ সড়ক ও রাসত্দায় হাটু পানি জমে। পুরনো ঢাকার বেশিরভাগ রাসত্দা এবং

ধানমন্ডি এলাকার কোথাও কোথাও পানি জমে যাওয়ায় যান চলাচল বিঘি্নত হয়েছে। কেন্দ্রীয় আবহাওয়া অফিস রাতে জানিয়েছে, ঢাকায় ১৫ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে সন্ধ্যার দিকে। প্রায় দুই ঘণ্টা অবিরাম বৃষ্টি হওয়ায় রাসত্দা ও অপেৰাকৃত নিচু এলাকায় পানি জমে যায়। গ্যাস চালিত বেশিরভাগ সিএনজি বেবি ট্যাক্সিই রাসত্দায় পানির মধ্যে বিকল হয়েছে। পথচারী এবং ঘরমুখী মানুষের দুর্ভোগ বাড়িয়ে দেয় দমকা হাওয়া ও ঝড়ো বৃষ্টি। প্রায় ৩৫ কিলোমিটার গতিতে ঢাকায় এবং ৫২ কিলোমিটার গতিতে সিলেট বিভাগের ওপর দিয়ে দমকা হাওয়া বয়ে গেছে বলে আবহাওয়া অফিস জানায়। তবে উলেস্নখযোগ্য কোনো ৰয়ৰতির খবর রাতে পাওয়া যায়নি।

আবহাওয়া অফিসের মতে, এখন কালবৈশাখী পিরিয়ড। সকালের দিকে আবহাওয়া ভালো থাকলেও বিকাল ৩টার পর থেকেই এ অঞ্চলের আকাশ সীমানায় প্রচুর পরিমাণ জলীয় বাষ্প জমতে থাকে। ভৌগোলিক অবস্থানের কারণে দৰিণে বঙ্গোপসাগর থাকায় বাংলাদেশের উপরি অংশে জলীয় বাষ্প ভেসে আসতে থাকে। আবার পশ্চিমা লঘুচাপ এ অঞ্চলের দিকে আসে উত্তর- পশ্চিম দিক থেকে। দৰিণ দিক থেকে আসা প্রচুর জলীয় বাষ্প এবং উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে আসা লঘুচাপের সংযোগ হলেই বজ্রমেঘের সৃষ্টি হয়ে থাকে। এ অবস্থা সাধারণত এ সময়ে বেশি বেশি লৰণীয় হবে, যা আবহাওয়ার স্বাভাবিক গতি হিসেবে ধরে নেয়া যায়।

ঢাকা ও সিলেট বিভাগ ছাড়াও রাজশাহী ও চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় গতকাল অস্থায়ী দমকা হাওয়া বয়ে গেছে। খুলনা বিভাগের দু’একটি জায়গায়ও অনুরূপ দমকাসহ ঝড়ো হাওয়া বয়ে যায়। আজো এসব বিভাগের কোনো কোনো জায়গায় এরূপ আবহাওয়া বিরাজ করতে পারে বলে জানায় কেন্দ্রীয় আবহাওয়া অফিস। গতকাল চুয়াডাঙ্গায় সর্বোচ্চ ৩৭ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সৈয়দপুরে সর্বনিম্ন ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। আজো তাপমাত্রা অপরিবর্তিত থাকবে বলে অফিস উলেস্নখ করেছে।

চাদপুর প্রতিনিধি জানান, চাদপুরে কালবৈশাখীর প্রথম আঘাত হেনেছে গতকাল রবিবার রাত সাড়ে ৮টায়। মাত্র ১০ মিনিট স্থায়ী এ ঝড়ে ফরিদগঞ্জ উপজেলার দুই শতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বসত্দ হয়েছে। ঘর চাপায় রূপসা গ্রামের মরিয়ম বেগম (৪০) মারা গেছে। ব্যাপক ৰতি হয়েছে পাকা বোরো ধানের। স্থানীয় পলস্নী বিদু্যৎ সমিতি জানিয়েছে, ঝড়ে বিদু্যতের খুটি ও তার উপড়ে গেছে। তবে কতোজন আহত হয়েছে এ রিপোর্ট লেখা পর্যনত্দ তা জানা যায়নি।

সূত্রঃ http://www.jaijaidin.com/details.php?nid=7117

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: