দেশত্যাগে খালেদা রাজি নন সরকার আবার হার্ডলাইনে

চলচ্চিত্রের জমজমাট চিত্রনাট্যের মতোই চমকপ্রদ সব ঘটনার ঘনঘটা সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে নিয়ে। ভিতরমহল-অন্দরমহলের নানা ঘটনার সঙ্গে কল্পনার ঈষৎ রঙ মিশিয়ে ছোট গল্পের মেজাজে লেখা নানা প্রতিবেদনে পরিপূর্ণ গত কয়েকদিনের সংবাদপত্রের প্রথম পাতা। কাহিনী সূত্র একটিই। বেগম খালেদা জিয়ার দেশত্যাগ। সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসনের ভাগ্য বিপর্যয়ের চূড়ান্ত পরিণতি তার দেশত্যাগ কিংবা নির্বাসন কিনা এ নিয়ে জল্পনা-কল্পনার শেষ নেই। তারেক রহমানকে গ্রেফতার, কোকোকে আটক- একের পর এক ঘটনায় বিপর্যস্ত খালেদা জিয়ার সর্বশেষ গন্তব্য সৌদি আরব বলে মনে করা হলেও দৃশ্যপট হঠাৎ বদলে গেছে।

গত দু’দিন থেকেই খালেদা জিয়ার পারিবারিক সূত্রের বরাত দিয়ে একাধিক বার্তা সংস্থা বলছে, খালেদা জিয়া অসুস্থ, আপাতত দেশত্যাগ করছেন না। খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা, অতিসম্প্রতি পাদপ্রদীপের আলোয় আসা ব্রিগেডিয়ার (অব.) হান্নান শাহ মঙ্গলবার বিবিসিকে বলেছেন, খালেদা জিয়া দেশত্যাগ করবেন না। এছাড়া সৌদি আরব, কুয়েত, আরব আমিরাত বর্তমান পরিস্থিতিতে খালেদা জিয়াকে ভিসা প্রদানে সম্মত হচ্ছে না বলেও খবর ছড়ানো হচ্ছে। নানা সূত্র থেকে সংবাদ পাওয়া যাচ্ছে, সরকারের উচ্চমহলের সঙ্গে যে অলিখিত সমঝোতা হয়েছিল তা থেকে খালেদা জিয়া সরে এসেছেন। ঘনিষ্ঠজনরা তাকে এখন নাকি নতুন পরামর্শ দিচ্ছেন। এহেন পরিস্থিতিতে সরকার খালেদা জিয়ার ব্যাপারে দ্রুত সমন্বিত পদক্ষেপ নিচ্ছে বলে জানা গেছে। সরকার তার ব্যাপারে দোদুল্যমানতা পরিহার করে আবার হার্ডলাইনে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। এবারও তুরুপের তাস হতে পারেন কোকো। তারেক রহমানের ব্যাংক একাউন্ট নিয়েও খোঁজখবর শুরু হয়েছে।

বেগম জিয়ার পারিবারিক সূত্র জানায়, মঙ্গলবার দুপুরে সংশ্লিষ্ট মহল থেকে বেগম জিয়াকে সৌদি দূতাবাসে ভিসার জন্য আবেদন করতে বলেন। বেগম জিয়া নিজে সশরীরে উপস্থিত না হলে পরিবারের অন্য কাউকে দিয়ে আবেদন করতে বলেন। তাও সম্ভব না হলে তাকে দূতাবাসে টেলিফোন করে স্বেচ্ছায় সৌদি আরব যাচ্ছেন বলে ভিসা চাইতে বলেন। এদিকে তারেক রহমানের মেয়ে জাইমা রহমান ও আরাফাত রহমান কোকোর দুই মেয়ে জাফিরা রহমান ও জাহিয়া রহমান স্কুল থেকে বিদায় আনার পরও সোমবার থেকে আবার স্কুলে যাওয়া শুরু করেছে। গতকালও বেগম জিয়ার ছোট ভাই মেজর (অব.) সাঈদ এস্কান্দার ক্যান্টনমেন্টের বাসভবনে যান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্র জানিয়েছে, যত কৌশলই নেয়া হোক না কেন, খালেদা জিয়াকে দেশত্যাগ করতেই হবে। এর কোন বিকল্পই নেই। এই সূত্রটি বলছে, খালেদা জিয়ার ব্যাপারে আদালত ৫ দিনের সময় বেঁধে দিয়ে যে নির্দেশ দিয়েছেন তাতে তার বিদেশ গমনে কোনরূপ প্রতিবন্ধকতাই নেই। খালেদা জিয়ার দেশত্যাগ নিয়ে গুজবের মাত্রা কিছুটা কমেছে। সামান্য গুঞ্জন শুনেই সাংবাদিকরা এখন বিমানবন্দরে ছুটে যাচ্ছেন না।

বিবিসি জানায়, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া দেশ ছাড়তে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার হান্নান শাহ গতকাল বিবিসিকে একথা বলেছেন। তিনি বলেন, তার সঙ্গে বেগম জিয়ার টেলিফোনে কথা হয়েছে এবং তিনি কোন অবস্থাতেই বিদেশ যেতে চান না বলে তাকে জানিয়েছেন। তবে সৌদি কর্তৃপক্ষ খালেদা জিয়াকে ভিসা দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে বলে যে খবর বেরিয়েছে সে ব্যাপারে তিনি কিছুই জানেন না বলে হান্নান শাহ বিবিসিকে জানান।

হান্নান শাহ বলেন, বেগম জিয়া তাকে দৃঢ়ভাবে জানিয়েছেন তার দেশ ছাড়ার ইচ্ছা নেই। তিনি বলেন, খুব অল্প সময় ফোনে তার সঙ্গে কথা হয়েছে। ফোনে তিনি বলেছেন, এখানে তার আত্বীয়স্বজন রয়েছে, দেশজুড়ে লাখ লাখ নেতাকর্মী রয়েছে। তাদের ছেড়ে কেন তিনি চলে যেতে চাইবেন? হান্নান শাহ দাবি করেন, বেগম জিয়া তার বিরুদ্ধে আনীত যে কোন অভিযোগ দেশে থেকেই মোকাবেলা করতে চান। তার বাইরে যাওয়ার ব্যাপারে এখনও সরকারের পক্ষ থেকে কোন চাপ আছে কিনা তা জানতে চাইলে হান্নান শাহ বলেন, এ বিষয়ে তার সঙ্গে কথা হয়নি। তবে গতকাল কথা বলার সময় বেগম জিয়াকে তার কাছে অনেকটা ‘রিলাক্সড্‌’ মনে হয়েছে। তিনি বলেন, বেগম জিয়ার মনোবল এখন অত্যন্ত দৃঢ় বলেই তার মনে হয়েছে। খালেদা জিয়ার ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র বিবিসিকে গতকালও নিশ্চিত করে বলেছে, দেশত্যাগের জন্য তার ওপর এখনও সরকার চাপ দিয়ে যাচ্ছে। ওই সূত্র বলেছে, ভিসার জন্য খালেদা ও তার পরিবারের অন্যদের পাসপোর্ট ইতিমধ্যেই নিয়ে নেয়া হয়েছে।

রয়টার্স জানায়, খালেদা জিয়া দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠছেন। তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) ডা. মাহতাব উদ্দিন বলেছেন, বেগম জিয়ার অবস্থা উন্নতি হচ্ছে। তবে তার নিম্ন রক্তচাপ ও হাঁটুর ব্যথা রয়েছে। এ জন্য তাকে আরও কয়েকদিন বিশ্রাম নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। Source:দৈনিক যুগান্তর
Date:2007-04-25

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: