জব্বারের বলী খেলা শেষ মর্ম সিংকে ধরাশায়ী করে দিদার বলী চ্যাম্পিয়ন

শত বছরের ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় উপচেপড়া অগণিত দর্শকের মন মাতোয়ারা করেছে চট্টগ্রামের জব্বারের বলী খেলা। গতকাল বুধবার বিকালে ছিল শেষ দিনের খেলা। লালদীঘি মাঠে হাজার হাজার মানুষ মন্ত্রমুগ্ধের মতো উপভোগ করেছেন নামিদামি বলীদের শ্বাসরম্নদ্ধকর লড়াই। গতবারসহ তিনবারের হ্যাটটৃক চ্যাম্পিয়ন কক্সবাজার রামুর দিদার বলী এবারো চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। গতবারের যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন মর্ম সিং বলী এবার আর পেরে ওঠেননি তার সঙ্গে। মাত্র দেড় মিনিটেই পুলিশের ঢাকা গুলশান জোনের এসআই মর্ম সিংকে ধরাশায়ী করে নিজের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করেন দিদার বলী। মর্ম সিংকে রানার্স আপ ট্রফি নিয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয়। বলী খেলার সবচেয়ে আকর্ষণীয় চ্যালেঞ্জিং এ বাউটে চ্যালেঞ্জধারী চারজনের মধ্যে বাকিদেরও পেশিশক্তি আর কৌশলের প্যাচে পরাজিত করেন দিদার। বলী খেলা শেষে বলীর নাচন ছিল দর্শকদের জন্য বোনাস। বিজয়ী বলীদের হাতে গ্রামীণফোনের সৌজন্যে নগদ টাকা ও ক্রেস্ট তুলে দেয়া হয়। পেশিশক্তির অনুপম কসরতের এ প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার জন্য দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা ৫৭ জন বলী নাম জমা দেন। সিঙ্গেল বাউটে বিজয়ী হন ২৫ জন বলী। পাচ শিশু বলীর মধ্যে তিনটি বাউটে রবিউল, সাদ্দাম ও সাবি্বর নামে তিন পথশিশু বিজয়ী হয়। ষাটোর্ধ কুমিলস্নার শহীদ বলী আর হাটহাজারীর মফিজ বলীকে যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয়। চ্যালেঞ্জিং বাউটে গতবারের যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন দিদার বলী ও মর্ম সিং বলী ছাড়াও মিরসরাইয়ের মোক্তার বলি এবং লেয়াকত বলী অংশ নেয়ার জন্য চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন। নতুন চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেয়া দু’জনের কেউই এক মিনিট টিকতে পারেননি সাবেক চ্যাম্পিয়নদের সঙ্গে। ফলে মূল চ্যালেঞ্জিং বাউটে মর্ম এবং দিদারই অংশ নেয়। বিশাল বপুধারী দুই জাদরেলের শ্বাসরম্নদ্ধকর বলী লড়াইটি দেড় মিনিটেই শেষ হয়। ফলাফল নির্ধারিত হওয়ার মুহূর্ত এবং বলীর নাচনের সময় হাজার হাজার দর্শক তুমুল করতালি আর উলস্নাস ধ্বনির মাধ্যমে মুখরিত করে তোলেন মেলা অঙ্গন। এবারের বলী খেলায় বৃহত্তর চট্টগ্রামের বাশখালী, মহেশখালী, টেকনাফ, পটিয়া, সীতাকু-, চন্দনাইশ, হাটহাজারী ছাড়াও নড়াইল, শরীয়তপুর, ঢাকা, কুমিলস্না ও ফেনীসহ বিভিন্ন এলাকার বলীরা অংশ নেন। খেলা শেষ হয় বিকাল পৌনে ৪টায়। উদ্বোধন করেন ভারপ্রাপ্ত সিটি মেয়র এম মনজুর আলম। প্রধান অতিথি ছিলেন সিএমপি কমিশনার মইনুর রহমান চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন গ্রামীণফোনের হেড অফ রিজিওন কমার্শিয়াল বিদু্যৎ কুমার বসু। প্রধান বিচারক ছিলেন সাবেক ওয়ার্ড কমিশনার এম এ মালেক। খেলার শুরম্ন থেকে শেষ পর্যনত্দ আট-নয়জন ঢুলি ঢোলের মহনীয় ছন্দের তালে নেচে-গেয়ে দর্শকদের মুগ্ধ করে রাখেন। উলেস্নখ্য, জব্বারের বলী খেলায় এবারের চ্যাম্পিয়ন দিদার বলী ২০০১ সাল থেকে খেলায় অংশ নিয়ে এ পর্যনত্দ পাচবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। এদিকে বলী খেলা উপলৰে গত মঙ্গলবার থেকে শুরম্ন হওয়া তিনদিনের বৈশাখী মেলা গতকালও ছিল জমজমাট। তবে আজ বৃহস্পতিবার মেলার শেষ দিনে রাসত্দার ওপর মেলাজীবীদের বসতে দেবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে পুলিশ। শুধু লালদীঘি মাঠে এবং এর আশপাশে বসা যাবে বলে পুলিশ জানায়।

সূত্রঃ http://www.jaijaidin.com/details.php?nid=7547

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: