বিএনপির ‘পিপীলিকা’দের ভবিষ্যৎ অন্ধকার : হান্নান শাহ্

‘পিপীলিকার পাখা গজায় মরিবার তরে’। বিএনপির অনেক নেতার অবস্থাই এরকম। বললেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আসম হান্নান শাহ। তিনি বলেন, বিএনপির যেসব পিপীলিকা দলে নেতৃত্বে পরিবর্তন আনতে দৌড়ঝাঁপ করেছেন তাদের ভবিষ্যৎ অন্ধকার। ঘরোয়া রাজনীতি শুরু হলেই বেগম জিয়া তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন।
শনিবার সকালে নিউ ডিওএইচএসের নিজ বাসভবনে বিএনপির বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।
হান্নান শাহ নির্বাচন অনুষ্ঠানের সময়সীমা সম্পর্কে বলেন, যে দেশ স্বাধীন করতে নয় মাস সময় লাগে, সে দেশে ভোটার লিস্ট তৈরিতে এত সময় লাগার কথা নয়। একইভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠানেও এত সময় লাগতে পারে না। কারণ নির্বাচন স্বাধীনতা অর্জনের চেয়ে কঠিন কাজ নয়।
বেগম জিয়ার সঙ্গে মান্নান ভূঁইয়ার সাক্ষাৎকে স্বাভাবিক ঘটনা হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, চেয়ারপারসনের সঙ্গে মহাসচিব দেখা করবেন_ এটাই স্বাভাবিক। কিন\’ এত বিলম্বে দেখা হওয়াটা অস্বাভাবিক।
এ প্রসঙ্গে হান্নান শাহ আরও বলেন, মান্নান ভূঁইয়া সাক্ষাৎ করতে পারলেও দলের দফতর সম্পাদক নজরুল ইসলাম খানসহ অনেক নেতা-নেত্রীকে দেখা করতে দেয়া হয়নি। এতে করে প্রেসনোটের বক্তব্যের সঙ্গে বাস-বের খুব একটা মিল পাওয়া যাচ্ছে না। তিনি প্রেসনোটে দেয়া বক্তব্য সরকার পুরোপুরি বাস-বায়ন করবে বলে আশা প্রকাশ করেন।
রাজনীতিবিদদের পরামর্শ অনুযায়ী আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা ও বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে দেশত্যাগের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছিল বলে আইন উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বক্তব্য প্রসঙ্গে হান্নান শাহ বলেন, তিনি বর্তমান সরকারকে নিরপেক্ষ বলে জানেন। একটি নির্দলীয়-নিরপেক্ষ সরকার কেন রাজনীতিবিদের পরামর্শ নেবে এটা তার বোধগম্য নয়। এটা নৈতিকতাবিরোধী। যেসব রাজনীতিবিদ সরকারকে এ ধরনের পরামর্শ দিয়েছে তাদের সম্পর্কে জনগণ কমবেশি জানে। তারপরও দেশ ও জনগণের স্বার্থে এসব রাজনীতিকের নাম জনসম্মুখে প্রকাশ করা সরকারের উচিত বলে তিনি মন-ব্য করেন।
সেনাপ্রধান লে. জেনারেল মইন উ আহমেদের বক্তব্যের প্রশংসা করে হান্নান শাহ বলেন, তিনি শতভাগ নিয়মমাফিক সময়োপযোগী বক্তব্য দিয়েছেন। সেনাবাহিনীর কাজই হল দেশের দুর্যোগকালীন সময়ে এগিয়ে আসা এবং দায়িত্ব পালন শেষে ব্যারাকে ফিরে যাওয়া।
বেগম জিয়ার ওমরা পালন সম্পর্কে হান্নান শাহ বলেন, বেগম জিয়া অবসর পেলেই ওমরা করতে যান। এ নিয়ে অন্য কিছু ভাবার অবকাশ নেই। তবে আর কয়েকদিন পর গেলে ভালো হবে বলে তিনি মন-ব্য করেন। শেখ হাসিনার মতো দেশের বাইরে গেলে বেগম জিয়ার ওপর কোন নিষেধাজ্ঞা আসতে পারে বলে নেতাকমর্ীরা যে আশংকা করছেন সে প্রসঙ্গে হান্নান শাহ বলেন, ‘ঘর পোড়া গরু সিঁদুর দেখলে ভয় পায়’।
শুদ্ধি অভিযান প্রসঙ্গে হান্নান শাহ বলেন, ঘরোয়া রাজনীতি শুরু হলে বেগম জিয়ার নেতৃত্বে শুদ্ধি অভিযান পরিচালিত হবে। কাউন্সিল ডাকা হবে কি-না, এ প্রশ্নের জবাবে হান্নান শাহ বলেন, এটাও নির্ভর করছে বেগম জিয়ার ইচ্ছার ওপর। তিনি ইচ্ছানুযায়ী কাউন্সিল ডাকবেন। তখন মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি ভেঙে নতুন করে কমিটি গঠন করা হবে।

সূত্রঃ http://jugantor.com/online/news.php?id=61683&sys=1

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: