সেনাবাহিনীর সমর্থনে কোনো রাজনৈতিক দল গঠিত হচ্ছে না

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের বিশেষ দূত ফারুক সোবহান বলেছেন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কোনো রাজনৈতিক অভিলাষ নেই। এজন্য সেনা সমর্থনে কোনো দল গঠিত হচ্ছে না। এ নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্ব বা অনুমানের কোনো সুযোগ নেই। তিনি বলেন, এরশাদ শাসনামলে সেনাবাহিনী অনুধাবন করেছে এর নেতিবাচক পরিণতি। সেই অভিজ্ঞতা থেকেই তারা নিজেদের রাজনীতিতে জড়াতে চায় না বলেই আমি মনে করি।
ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক ইনস্টিটিউট এনডিআইয়ের সাউথ এশিয়া বিষয়ক একজন কর্মকর্তার সঙ্গে সাক্ষাতের সময় তিনি এই মন্তব্য করেন।
গত শুক্রবার ওয়াশিংটনে তিনি তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বাংলাদেশ পরিস্থিতি তুলে ধরেন। এই সময় এনডিআই প্রতিনিধি পিটার মানিকস বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কর্তৃক কোনো রাজনৈতিক দলগঠনের সম্ভাবনা আছে কিনা প্রশ্ন করলে ফারুক সোবহান এই জবাব দেন।
ফারুক সোবহান নির্বাচনকে স্বচ্ছ করতে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ ও পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন। এক সময় এনডিআই কর্মকর্তা নির্বাচন অনুষ্ঠানে ১৮ মাস সময়কে দীর্ঘসূত্রতা হিসেবে অভিহিত করেন। এর জবাবে ফারুক সোবহান বলেন, একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য এই সময়ের প্রয়োজন রয়েছে। এর মধ্যেই সরকার সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের রাজনৈতিক ও গণতান্ত্রিক স্থিতিশীলতার জন্য অনেক ধরনের সংস্কার প্রয়োজন। এই হিসেবে মৌলিক কিছু বিষয়ে সরকারকে পদক্ষেপ নিতেই হচ্ছে। যার ফলে একটু সময় লাগবেই। এই হিসেবে ১৮ মাস সময় তেমন বেশি নয়।
ফারুক সোবহান এনডিআই কর্মকর্তাদের কাছে সরকারের দুর্নীতিবিরোধী অভিযানের বিষয়টিও তুলে ধরেন বলে জানা গেছে।
আগামী ১০ মে ওয়াশিংটনে সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিকোলাস বার্নসের সঙ্গে রাষ্ট্রদূত ফারুক সোবহানের বৈঠক ঠিক হয়েছে বলে কূটনৈতিক সূত্র জানিয়েছে। Source:ভোরের কাগজ
Date:2007-05-06

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: