ইপিজেডে ৯ মাসে বিনিয়োগ ৪৬২ মিলিয়ন ডলার চালু আছে ২৫৫টি শিল্প, ১৪৮টি চালু হওয়ার অপেক্ষায়

গত নয় মাসে দেশের আটটি ইপিজেডে (রফতানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চল) নতুন বিনিয়োগ এসেছে প্রায় ৪৬২ মিলিয়ন ডলার এবং পুরনো শিল্পগুলোকে আধুনিকীকরণের জন্য বিনিয়োগ হয়েছে আরো প্রায় ১১৫ মিলিয়ন ডলার। ইপিজেডগুলোয় বর্তমানে ২৫৫টি শিল্প চালু রয়েছে এবং ১৪৮টি চালু হওয়ার অপেৰায় আছে।

ইপিজেড সূত্র জানায়, রফতানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চল থেকে গত ৯ মাসে (জুলাই থেকে মার্চ) প্রায় ১ হাজার ৫০৩ মিলিয়ন ডলারের উৎপাদিত পণ্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রফতানি হয়েছে। গত অর্থ বছরের এ সময়ে ইপিজেডের শিল্পগুলো থেকে রফতানি হয়েছিল প্রায় ১ হাজার ৩০৩ মিলিয়ন ডলারের পণ্য। নতুন আদমজী ইপিজেডের তিনটি শিল্প চালু হওয়ায় এখান থেকে এ সময়ে রফতানি আয়ের হিসাবে যোগ হয়েছে বাড়তি ৭ দশমিক ৮৪ মিলিয়ন ডলার।

বেপজার এক ঊধর্্বতন কর্মকর্তা জানান, দেশের ইপিজেডগুলোয় এ পর্যনত্দ প্রায় ২ লাখ দৰ শ্রমিকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হয়েছে। এ সময়ে চট্টগ্রাম ইপিজেড থেকে রফতানি হয়েছে প্রায় ৭১৭ দশমিক ৩৪ মিলিয়ন ডলারের পণ্য। একই সঙ্গে এ ইপিজেডে নতুনভাবে বিনিয়োগ হয়েছে প্রায় ২২ দশমিক ৮৮ মিলিয়ন ডলার। ঢাকা ইপিজেড থেকে গত ৯ মাসে রফতানি হয়েছে প্রায় ৭৪১ দশমিক ৩৩ মিলিয়ন ডলারের পণ্য। একই সময়ে এ ইপিজেডে নতুনভাবে বিনিয়োগ হয়েছে প্রায় ৭৫ দশমিক ৬৯ মিলিয়ন ডলার। নতুন কুমিলস্না ইপিজেড থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রফতানি হয়েছে প্রায় ৩৩ দশমিক ১৯ মিলিয়ন ডলারের পণ্য। ওই সময়ে কুমিলস্না ইপিজেডে নতুন করে বিনিয়োগ এসেছে প্রায় ৯ দশমিক ৫৮ মিলিয়ন ডলার। ঈশ্বরদী ইপিজেড থেকে রফতানি হয়েছে মাত্র ১ দশমিক ৬১ মিলিয়ন ডলারের পণ্য। এখানে নতুনভাবে কোনো বিনিয়োগ হয়নি বলে সংশিস্নষ্ট সূত্রে জানা গেছে। সূত্রটি আরো জানায়, মংলা ইপিজেড থেকে রফতানির পরিমাণ খুবই কম, যা ডলারের হিসাবে প্রায় ৭ লাখ ৩০ হাজার। এখানে ওই সময়ে বিনিয়োগের পরিমাণও খুব কম অর্থাৎ প্রায় ৭০ হাজার ডলার। উত্তরা ইপিজেড থেকে রফতানির পরিমাণ ছিল প্রায় ৮ হাজার ডলারের। দেশের ইপিজেডগুলোয় কিছু অসাধু মালিক ও কর্মকর্তার বন্ডেড ওয়্যার হাউস থেকে মাঝে মধ্যে শুল্ক ফাকি দিয়ে কিছু কাপড় ও সুতা বিক্রির এবং সাবেক সরকারের আমলে ঢাকা ইপিজেডে শ্রমিক অসনত্দোষের কারণে দু’-চারটি শিল্প প্রতিষ্ঠান ভাংচুর ও বন্ধ ছাড়া তেমন কোনো বড় দুর্ঘটনা ঘটেনি বলে জানা যায়।

নতুন ও সম্ভাবনাময় আদমজী ইপিজেডের সংশিস্নষ্ট ঊধর্্বতন এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বর্তমানে সাত-আটটি শিল্প নির্মাণের কাজ দ্রম্নত এগিয়ে চলেছে। আদমজী ইপিজেড প্রায় ১৮০টি শিল্প কারখানা স্থাপনের জন্য তৈরি করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে দেশি-বিদেশি ২২টি কম্পানিকে শিল্প প্রতিষ্ঠান স্থাপনের অনুমোদন দেয়া হয়েছে।
সূত্রঃ http://www.jaijaidin.com/details.php?nid=9055

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: