জরুরি অবস্থা তুলে নেওয়া নির্ভর করে বিদ্যমান পরিস্থিতির ওপর

দেশ থেকে জরুরি অবস্থা প্রত্যাহারের বিষয়টি সরকারের বিবেচনাধীন আছে। তবে এ ব্যাপারে এখনো সময়সীমা নির্দিষ্ট করা সম্ভব হয়নি। কারণ, জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার নির্ভর করছে বিদ্যমান পরিস্থিতির ওপর। গতকাল শনিবার উপদেষ্টা পরিষদের বৈঠক শেষে ব্রিফিংকালে এক প্রশ্নের জবাবে প্রধান উপদেষ্টার প্রেস সচিব সৈয়দ ফাহিম মুনয়েম এ কথা বলেন।
প্রেস সচিব বলেন, জর\”রি অবস্থা তুলে দেওয়ার মতো উপযুক্ত ক্ষেত্র তৈরি করার জন্য সরকার সম্ভাব্য সব কিছু করছে। তবে এখনো জর\”রি অবস্থা তুলে দেওয়ার মতো ক্ষেত্র তৈরি হয়নি। তাই কবে নাগাদ জর\”রি অবস্থা তুলে দেওয়া যাবে এই মুহূর্তে তা নির্দিষ্ট করে বলা সম্ভব হচ্ছে না। বিএনপি নেতা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব) হান্নান শাহ অভিযোগ করেছেন যে, তার নেত্রী খালেদা জিয়াকে বিদেশে পাঠানোর জন্য সরকার চাপ প্রয়োগ করে চলেছে। এ ব্যাপারে প্রেস সচিবের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, এ ব্যাপারে তিনি কিছুই জানেন না। তিনি বলেন, তাদের বক্তব্যে ধারাবাহিকতা পাওয়া যায় না। এক নেতার বক্তব্য একই দলের আর এক নেতা খণ্ডন করেন।
নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধিতে মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে। জিনিসপত্রের চড়া দামের ব্যাপারে উপদেষ্টা পরিষদের বৈঠকে কোনো রকম আলোচনা এবং মূল্য নিয়ন্ত্রণের ব্যাপারে পদক্ষেপ গ্রহণের বিষয়ে সিদ্ধানত্দ নেওয়া হয়েছে কিনা সে বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে প্রেস সচিব জানান, আলোচনা হয়েছে। বৈঠকে জানানো হয়, বর্তমানে আনত্দর্জাতিক বাজারেই জিনিসপত্রের দাম বেশি। প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারতেও জিনিসপত্রের দাম অস্বাভাবিক চড়া। দেশে জিনিসপত্রের দামের ব্যাপারে পর্যালোচনা করে দাম কমানোর পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য বৈঠকে নির্দেশ দেওয়া হয়।
ঢাকা মহানগরীর বিজয় সরণির পূর্ব প্রানত্দে নির্মিত বহুল আলোচিত র্যাংগস ভবনের সর্বশেষ পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে প্রেস সচিব জানান, ভবনটি ভেঙে ফেলার ব্যাপারে সিদ্ধানত্দ নেওয়া হয়েছে। ভবনটি নিয়ে আদালতে মামলা বিচারাধীনসহ কিছু আইনগত বাধ্যবাধকতা আছে। সেটা নিষ্পন্ন করার চেষ্টা চলছে। মামলা নিষ্পন্ন হয়ে গেলেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
বিশিষ্ট কূটনীতিবিদ ফার\”ক সোবহানকে বিশেষ দূত হিসেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পাঠানোর কারণ এবং তার সফরের ফলাফল সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে প্রেস সচিব জানান, বর্তমানে ওয়াশিংটনে বাংলাদেশের কোনো রাষ্ট্রদূত নেই। বাংলাদেশের পরিস্থিতি নিয়ে দেশে-বিদেশে নানারকম কথাবার্তা চলেছে। বাংলাদেশের সত্যিকার পরিস্থিতি সম্পর্কে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে অবহিত করার জন্য তাকে সেখানে পাঠানো হয়। যাদের সঙ্গে দেখা করার জন্য তিনি ঠিক করে গিয়েছিলেন, তাদের প্রত্যেকের সঙ্গেই তার সাক্ষাৎ হয়েছে। তিনি ফিরে এসে অবশ্যই সরকারকে তার সফরের ফলাফল সম্পর্কে রিপোর্ট দেবেন। তার সফরের ফলাফল সম্পর্কে তখনই পরিষ্কার তথ্য পাওয়া যাবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
প্রেস সচিব জানান, প্রধান উপদেষ্টা ড. ফখর\”দ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে উপদেষ্টা পরিষদের এ নিয়মিত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। আট উপদেষ্টা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। তিনি জানান, বৈঠকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় সংশোধনী অধ্যাদেশ-২০০৬, পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্প বাসত্দবায়ন, ভূমি অধিগ্রহণ অধ্যাদেশ ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে জনশক্তি রপ্তানি বিষয়ে চুক্তি সম্পাদনের প্রসত্দাব অনুমোদন করা হয়। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় সংশোধনী অধ্যাদেশে ফাজিল ও কামিল মাদ্রাসায় সরকারি মনোনয়নে দুজন অধ্যক্ষ নিয়োগের প্রসত্দাব করা হয়। উপদেষ্টা পরিষদের বৈঠকে ঐ প্রসত্দাব নীতিগতভাবে অনুমোদন করা হয়। নির্মাণাধীন পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্প সম্পর্কিত প্রসত্দাবে বলা হয়, বঙ্গবন্ধু বহুমুখী সেতু নির্মাণের সময় সরকারের কাছ থেকে বেশি হারে ক্ষতিপূরণ আদায়ের লক্ষ্যে এক শ্রেণীর লোক রাতারাতি হুকুম দখল করা জমিতে ঘরদোর তৈরি করে ফেলে। বাধ্য হয়ে সরকারি কোষাগার থেকে তাদের বেশি হারে ক্ষতিপূরণ দিতে হয়। পদ্মা বহুমুখী সেতুর ক্ষেত্রেও যাতে ঐ ধরনের পরিস্থিতির মুখে পড়তে না হয়, সে লক্ষ্যে পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পে ভূমি অধিগ্রহণ অধ্যাদেশ অনুমোদন করা হয়।
প্রেস সচিব বলেন, বর্তমানে সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে জনশক্তি রপ্তানির ব্যাপারে বাংলাদেশের আনুষ্ঠানিক কোনো চুক্তি নেই। তা সত্ত্বেও বাংলাদেশের প্রায় ৫ লাখ নাগরিক সেখানে কর্মরত আছেন। আগামী ২০ থেকে ২২ মে নাগাদ সংযুক্ত আরব আমিরাতের এক মন্ত্রী বাংলাদেশ সফর করবেন। তখন তার সঙ্গে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হতে পারে। উপদেষ্টা পরিষদের বৈঠকে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক চুক্তি স্বাক্ষর করার ব্যাপারে আনীত প্রসত্দাব অনুমোদন করা হয়।

সূত্রঃ http://bhorerkagoj.net/online/news.php?id=18257&sys=1

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: